তিন ফরম্যাটেই পাকিস্তানের নেতৃত্বে সরফরাজ

0

মাত্র কদিন আগে দলকে অপ্রত্যাশিতভাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জিতিয়েছেন। সেরাদের সেরা হওয়ার তকমা গায়ে লাগার কয়েকদিন পরই সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে বড় উপহার পেলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার সরফরাজ আহমেদ। ওয়ানডে এবং টি-২০’র পর পাকিস্তান টেস্ট দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্বও দেওয়া হয়েছে ৩০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারকে।

অধিনায়কত্বে তার পটুতা সরফরাজ প্রমাণ করেছেন আগেই। সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে তার অধীনেই শিরোপা জেতে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। এতে নির্বাচকরা তার মাঝে আস্থার জায়গা খুঁজে পান আরও বেশি। তিন ফরম্যাটের দায়িত্বই তার হাতে তুলে দিয়ে এবার তাই খুশিমনে আগামী মিশনগুলোর দিকে নজর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের।

Also Read - এইচপি দলের প্রথম ম্যাচ বুধবার

সরফরাজ টেস্ট দলের দায়িত্ব পাবেন, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি শেষে ব্যাপারটা অনুমেয়ই ছিল। মঙ্গলবার পিসিবি থেকে আসলো আনুষ্ঠানিক ঘোষণাটাও। পাকিস্তান সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ঠিক আগ মুহূর্তে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। মিসবাহ-উল-হকের নেতৃত্বে সেই সিরিজে ক্যারিবীয়দের ধরাশায়ী করে ইতিহাস রচনা করে পাকিস্তান। সিরিজের পরপরই মিসবাহ তার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের ইতি টানলে পাকিস্তানের নতুন টেস্ট অধিনায়ক কে হবেন এ নিয়ে শুরু হয় গুঞ্জন। শেষপর্যন্ত সরফরাজের উপরই আস্থা রাখল দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

২০১৬ সালের টি-২০ বিশ্বকাপের পর তৎকালীন অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি দায়িত্ব ছেড়ে দিলে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে পাকিস্তানের নেতৃত্বের ভার দেওয়া হয় সরফরাজের কাঁধে। এরপর চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ওয়ানডে দলের অধিনায়কও করা হয় তাকে। অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে বড় সফলতার (চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি) পর টেস্টের দায়িত্ব পেয়ে এবার তিন ফরম্যাটেই পাকিস্তানের দলনেতা হওয়ার কীর্তি গড়লেন ২০০৭ সালে পাকিস্তানের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটা এই ক্রিকেটার।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম