বিশ্বকাপ নিয়ে তামিমের লক্ষ্য

0

Tamim-v-Aus

২০০৭ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে তামিমের অভিষেক। বয়সটা তখন ১৮ ছুঁই-ছুঁই, এই অল্প বয়সের মুশফিক, সাকিবদের পাশাপাশি ক্যারিয়ারের প্রথম বিশ্বকাপ খেলেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। প্রথম বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে মোটামোটি সফল ছিলেন সেই সময়ের তামিম।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পার করেছেন দশ বছরের মতো। আগের চেয়ে এখন অনেক পরিপক্ক ক্রিকেটার। ৩টি ওয়ানডে বিশ্বকাপও খেলে ফেলেছেন তামিম। স্বপ্ন দেখছেন আরো দুটি বিশ্বকাপ নামের পাশে বসাতে। তবে সেটার জন্য করতে হবে অক্লান্ত পরিশ্রম, থাকতে হবে ফিট তার সাথে করতে হবে পারফর্মও।

Also Read - অবসরের আগে অন্তত একটি টেস্ট খেলতে চান গেইল

দলে নিজের স্থান ও ফিট থাকতে পারলেই অনায়সে খেলতে পারবেন আরো দুটি বিশ্বকাপ। ফিট, ফর্মের ব্যাপারে একমত পোষণ করেন খোদ এই ওপেনার। স্বপ্ন রয়েছে দেশের জার্সি গায়ে আরো দুটি বিশ্বকাপ খেলার তবে সেটির জন্য ফিট থাকা জরুরী মনে করেন তামিম।

“আমি মনে করি, আমার আরো ৭-৮ বছর খেলা চালিয়ে যাওয়া উচিত কিন্তু এই ৭-৮ বছর খেলার জন্য প্রচন্ড পরিমাণ ফিট থাকা লাগবে, পারফর্ম করা লাগবে আমার। আর কয়টা বিশ্বকাপ খেলতে পারবো সেটি নির্ভর করবে সেসময় আমার ফিটনেস ও কেমন পারফর্ম করি। তবে একজন ক্রিকেটার হিসেবে অবশ্যই চাইবো আরো দুটি বিশ্বকাপ যেন খেলতে পারি।”

আগামী মাসেই বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই টেস্ট খেলতে আসার কথা অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের। তবে নিজেদের বোর্ডের সঙ্গে দ্বন্দ্ব থাকায় শেষ পর্যন্ত সিরিজটি হবে কিনা সেই নিয়ে রয়েছে সংশয়। তবে অজিরা যদি আসে তাহলে ভালো করার ব্যাপারে আশাবাদী দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল।

“২০০৬ থেকে টেস্ট ক্রিকেটে আমরা এখন অনেক ভালো দল। পারবো কি পারবো না সেটি নির্ভর করছে আমাদের পরিকল্পনার উপর। টিম মিটিংয়ের পরিকল্পনা, ব্যক্তিগত পরিকল্পনা। সবমিলিয়ে নিজেদের পরিকল্পনা গুলো মাঠে বাস্তবায়ন করতে পারলে আমার জয়ের সুযোগ থাকবে। আর তাছাড়া যেই দলই নিজেদের পরিকল্পনা মাঠে বাস্তবায়ন করতে পারবে তারাই সফল হবে।”

তিনি আরো যোগ করেন, “আমি মনে করি যে, এখনো আমাদের অনেক সময় রয়েছে। দলে নিজেদের কাজগুলো নিয়ে সবাই জানি। আমরা যদি নিজেদের ঐ কাজগুলো নিয়ে যদি এগুতে থাকি তাহলে আমাদের জন্যই মঙ্গল।”