SCORE

Breaking News

অনন্য সাকিব, অদম্য সাকিব

Share Button

পুরো ম্যাচজুড়ে দ্যুতি ছড়িয়েছেন। কখনো ব্যাট হাতে, কখনো বল হাতে। তার আলোয় উজ্জ্বল বাংলাদেশ। ম্যাচশেষে যে চওড়া হাসি নিয়ে বাংলাদেশ মাঠ ছেড়েছে তাতে সাকিব আল হাসানের অবদান অপরিসীম। পুরো টেস্টে সাকিব ছিলেন অনন্য। অস্ট্রেলিয়ানদের কাছে ছিলেন অদম্য। সব মিলিয়ে অনন্য সাকিব, অদম্য সাকিব।

ব্যাট হাতে হাল ধরা 

সাকিবের অর্ধশতক উদযাপন
সাকিবের অর্ধশতক উদযাপন

টস ভাগ্য সহায় হয়েছিল অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের। প্রথমে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। কিন্তু শুরুতেই পথহারা। প্যাট কামিন্সের তোপে খাদের কিনারায়। ১০ রানে নেই তিন উইকেট। এমন বিপর্যয়ের সময় ব্যাট হাতে মাঠে আসেন সাকিব আল হাসান। আবির্ভূত হন ত্রাতা রূপে।

Also Read - 'আমরাও ওদের মতো আক্রমণাত্মক ছিলাম'

ওপেনার তামিম ইকবালকে নিয়ে গড়লেন ১৫৫ রানের জুটি। এ জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দিল বাংলাদেশ। চাপের মুখেও করলেন স্বভাবসুলভ ব্যাটিং। সচল রাখলেন দলের রানের চাকা।

৮৪ রানের পথে সাকিব
৮৪ রানের পথে সাকিব

অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের টার্ন আর বাউন্স সাকিব সামলালেন ১৩২ বল। পরাস্ত হলেন ১৩৩ তম বলে। লায়নের ডেলিভারিতে ছিল আচমকা বাউন্স, ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন সাজঘরে। তবে তার আগে রান করে গিয়েছেন ৮৪। মেরেছেন ১১ টি চার।

কামিন্সের তোপে পথহারা বাংলাদেশকে পথ দেখিয়েছেন তিনি। স্বল্প রানে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় থাকা দলকে নিয়ে গিয়েছে সম্ভাবনার দিকে। সাকিব-তামিমের ব্যাটে দিশা ফিরে পেলো বাংলাদেশ।

বোলিং যাদু

Shakib-5
সাকিব আল হাসান মানেই যেন পুরোদস্তর এক অলরাউন্ডার। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংয়েও দেখালেন মুন্সীয়ানা।

প্রথমে ফেরালেন নাইটওয়াচম্যান নাথান লায়নকে। এসেই ফেরত যেতে হয়েছিল লায়নকে। স্মিথের নাইটওয়াচম্যানের পরিকল্পনা সফল হতে দেননি সাকিব।

সাকিবের উইকেট উদযাপন
সাকিবের উইকেট উদযাপন

এরপর একে একে বধ করেছেন ম্যাট রেনশ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, প্যাট কামিন্স ও জশ হ্যাজলউডকে। নবম উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়ে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কামিন্স, তাকে করেছেন বোল্ড। ম্যাক্সওয়েল এসেছেন ডাউন দ্যা উইকেটে, টার্ন হয়ে বল ব্যাট ফাঁকি দিয়ে গিয়েছে মুশফিকের গ্লাভসে। ফলাফল স্টাম্পিং। হ্যাজলউড ফিরেছে ক্যাচ দিয়ে। লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ছেন লায়ন আর রেনশ।

আবারো ত্রাতা সাকিব 

তৃতীয় দিন শেষে ম্যাচ তখন হেলে আছে সফরকারীদের দিকে। উপমহাদেশের উইকেটে ডেভিড ওয়ার্নারের রেকর্ড বড্ড বিবর্ণ। এবার তা ঘোচালেন। তুলে নিলেন শতক। তাকে সঙ্গ দিলেন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া বের করে নিয়েছে ম্যাচ। বাংলাদেশের দরকার একটা ম্যাজিকেল স্পেল! একটা ব্রেক থ্রু!

সাকিব আল হাসানকে ঘিরে সতীর্থদের উল্লাস
সাকিব আল হাসানকে ঘিরে সতীর্থদের উল্লাস

আবারো ত্রাতা হিসেবে আসলেন সাকিব। সাকিবের টার্ন মিস করলো ওয়ার্নারের পুল। বল লাগলো প্যাডে। এলবিডব্লিউ। এরপর স্টিভ স্মিথ ফিরেছেন মুশফিককে ক্যাচ দিয়ে। ম্যাথু ওয়েডও ব্যাট চালাতে পারেননি বলের লাইনে। ব্যাট ফাঁকি দিয়ে প্যাডে বল। লেগ বিফোর হয়ে ফিরলেন সাজঘরে। ম্যাক্সওয়েল আক্রমণাত্মক খেলতে চাইলেন। অফ স্টাম্পের বলকে সজোরে মারতে গিয়ে হলেন বোল্ড। দ্বিতীয় দিন ফিরিয়েছেন উসমান খাজাকে। আবারো উইকেট হলো পাঁচ।

সাকিব বদলে দিলেন ঢাকা টেস্টের রঙ, ঘুরিয়ে দিলেন মোড়। পরাজয়ের আতঙ্কে থাকা বাংলাদেশকে নিয়ে এগিয়ে গেলেন জয়ের বন্দরে।

সংখ্যায় আর রেকর্ডে সাকিবের ঢাকা টেস্ট

 

ম্যাচসেরার পুরস্কার হাতে সাকিব
ম্যাচসেরার পুরস্কার হাতে সাকিব

সংখ্যার দিক দিয়েও এ টেস্ট ছিল সাকিবের বিশেষ। এটি ছিল সাকিবের ৫০ তম টেস্ট। বিশেষ এ টেস্ট সাকিব রাঙালেন রঙিন পারফরম্যান্স দিয়ে।

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৫০ তম টেস্টে পঞ্চাশ রানের ইনিংস খেললেন সাকিব। স্পর্শ করলেন ৩৫০০ রান আর ১৫০ উইকেটের মাইলফলক। ১৫০ উইকেট পার করেছেন আগেই, পার করলেন ৩৫০০ রানের চৌকাঠ। এ যুগলবন্দী করতে সাকিবের লেগেছে মাত্র ৫০ টেস্ট। গ্যারি সোবার্স ও ইয়ান বোথামের মতো কিংবদন্তীদের ম্যাচ লেগেছিল ৬৩ টি। জ্যাক ক্যালিসের লেগেছিল ৬৯ টেস্ট।

প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করে নয় দলের বিপক্ষে টেসে ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়লেন সাকিব। নাম লিখিয়েছেন মুরালিধরন, ডেল স্টেইন ও রঙ্গনা হেরাথের পাশে। এখানেও সবচেয়ে কম ম্যাচে এ কীর্তি গড়েছেন সাকিব।

একই টেস্টে অর্ধশতক ও কমপক্ষে এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়ার কীর্তি সাকিব গড়লেন ৮ বারের মতো। রিচার্ড হ্যাডলির আছে ৬ বার। ইয়ান বোথাম ১১ বার করে আছেন সবার উপরে।

একই টেস্টে ৫০ রান ও ১০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড দ্বিতীবারের মতো গড়লেন সাকিব। এছাড়া তিন বার এ অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্স করেচফহেন স্যার রিচার্ড হ্যাডলি। তবে ৮০+ রান ও ১০ উইকেট শিকারের ক্ষেত্রে একমাত্র সাকিব আল হাসানই দুইবার করে দেখিয়েছেন।

এ নিয়ে ১৭ বার ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিলেন সাকিব। ছুঁয়ে ফেললেন ডেরেক আন্ডারউডকে। এছাড়া বাংলাদেশের একমাত্র বোলার হিসেবে টেস্টে সাকিবের রয়েছে এক ম্যাচে দশ উইকেট নেয়ার একাধিক কীর্তি।

ঢাকা টেস্টে আপন আলোয় উজ্জ্বল ছিলেন সাকিব। আর তার আলোতে আলোকিত ছিল বাংলাদেশ।

Related Articles

‘পীরবাবা’ মাশরাফি!

লায়নের রেকর্ডময় সিরিজ

আমাদের আশি ভাগ দিলেই সিরিজ জেতা সম্ভব

সৌম্যর পাশে আছেন তামিম

ঢাকা টেস্ট নিয়ে পড়ে নেই তামিম