অ্যাগারে ভরসা অস্ট্রেলিয়ার

Share Button
অ্যাগারে ভরসা অস্ট্রেলিয়ার
সংবাদ সম্মেলনে লেম্যান

এ বছর চার টেস্ট খেলতে ভারত সফর করেছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই সফরে ভারতের ব্যাটসম্যানদের ভালোই ভুগিয়েছিলেন স্পিনার স্টিভ ও’কিফ। পুন টেস্টে ১২ উইকেট শিকার করে দলকে এনে দিয়েছিলেন জয়। ও’কিফের কীর্তি ফেলে দিয়েছিল হৈ চৈ! কিন্তু বাংলাদেশ সফরে ও’কিফ নেই। তবে বাংলাদেশ সিরিজে অ্যাশটন  অ্যাগারের মাঝে ভারত সফরের ও’কিফকে দেখতে চান অস্ট্রেলিয়ার কোচ ড্যারেন লেম্যান।

অ্যাশটন অ্যাগারের ওপর ভরসা রেখে লেম্যান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “অ্যাশটনের কাছে আমরা  ওরকম ফর্ম (ও’কিফের মতো) দেখতে চাই। ও’কিফ ভারতে অনেক ভালো করেছিল। আমরা অ্যাশটনের ওপর ভরসা রাখছি। ওর বোলিংয়ের লেন্থ আগের চেয়ে অনেক ভালো হয়েছে।”

স্পিনাররা যে সিরিজে বড় ভূমিকা রাখতে যাচ্ছে তা ভালো করেই জানা আছে অজিদের। ইতিমধ্যে এ কথা বলেছেন স্টিভ স্মিথ। তাই ধারণা করা হচ্ছে দুই স্পিনার নিয়েই বোলিং আক্রমণ সাজাবে স্পিনাররা। সেক্ষেত্রে নাথান লিয়নের সঙ্গী হওয়ার ক্ষেত্রে অ্যাগারই এগিয়ে আছেন।

Also Read - ম্যাচ জেতানো স্পেলের স্বপ্ন তাসকিনের

দলে আছেন আরেক তরুণ স্পিনার সোয়েপসন। কিন্তু বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও অবদান রাখার সামর্থ্য আছে অ্যাগারের। অ্যাগারের এমন অলরাউন্ডিং সামর্থ্যই এগিয়ে রাখছে তাকে।

চার বছর আগের এশেজ সিরিজে ১১ নম্বরে ব্যাট করে নেমে ৯৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন অ্যাগার। করেছিলেন বিশ্বরেকর্ড। ঘরোয়া ক্রিকেটেও ব্যাট হাতে রয়েছে দারুণ কিছু পারফরম্যান্স। ৪৪ প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ২ টি শতক ও ৮ টি অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন তিনি।

স্কোয়াডে থাকা আরেক তরুণ স্পিনার সোয়েপসনের মধ্যেও সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন লেম্যান। তিনি বলেন, “স্পিনারদের মধ্যে লড়াইটা কঠিন। তরুণ সোয়েপসন বেশ সম্ভাবনাময়।তবে অ্যাশটন ভালো ব্যাটিংও করে, ফিল্ডিংয়েও দারুণ। ওকে নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট। ওর অলরাউন্ড সামর্থ্য আছে।”

বোলিং আক্রমণে পেসার বাড়ালেও অ্যাগারকে উপরের দিকে ব্যাট করানো যাবে বলে মনে করেন অস্ট্রেলিয়ার কোচ। অ্যাগারের অলরাউন্ড সামর্থ্য অনেক পথ বের করে দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়াকে। অস্ট্রেলিয়ার অনেক আশা এ স্পিনার নিয়ে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা সেই আশায় গুড়েবাঁলি দিতেই চাইবেন।