আকাঙ্ক্ষিত টেস্টে মুখোমুখি বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া

0

আকাঙ্ক্ষিত দেখে ভ্রু কুচকানোর কথা অনেকের। তবে এগার বছর পর বারবার পিছিয়ে ঝুলতে থাকা টেস্ট সিরিজকে আকাঙ্ক্ষিত বললে একটুও বাড়িয়ে বলা হবে না।

একটু পেছনে ফেরা যাক। ২০০৬ সালে সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচে মুখোমুখি হয় তখনকার পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়া আর টেস্ট আঙিনায় সদ্যই হাঁটতে শেখা বাংলাদেশ। ২০০৮ এর শীতে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে বাংলাদেশ দলের খেলার কথা ছিল দুটি টেস্ট ম্যাচ। বেইজিং অলিম্পিক এর অযুহাতে সে দুই টেস্ট পিছিয়ে যায় দুই বছর। কিন্তু ২০১০ সালেও অনুষ্ঠিত হয় নি টেস্ট দুটি।

Also Read - দুই স্পিনার নিয়ে প্রথম টেস্টের অস্ট্রেলিয়া একাদশ

২০১১ বিশ্বকাপের পরপর বাংলাদেশ সফর করে তখনকার বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্টরা। সে সিরিজেও খেলা হয় নি টেস্ট দুটি। তিন ওয়ানডে খেলেই অস্ট্রেলিয়ার বিমানে উঠেন সদ্য ক্লার্কের ঘাড়ে চড়া অজি দল। শেষমেষ ২০১৫ সালে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে সিরিজ পিছিয়ে দেয় ক্যাঙ্গারু বাহিনী। ২০১৭ সালের এই সিরিজও হয়ত লেখা হয়ে যেত পেছানোর তালিকায়। অস্ট্রেলিয়া বোর্ডের সাথে খেলোয়াড়দের ভেজালে দোটানায় পরে সিরিজ। এ মাসের শুরুতেও বাংলাদেশে আসা নিশ্চিত ছিল না অস্ট্রেলিয়ার।  অনেক দেন দরবার শেষে বোর্ড আর খেলোয়াড়েরা এক হয়েছে। এর আগে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষকের কয়েক দফা সফরে কেটে যায় নিরাপত্তা ইস্যু। অস্ট্রেলিয়া দলকে দেয়া হবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা। পুলিশ , আনসার , র‍্যাব এর সাথে কাজ করবে সেনাবাহিনীও।

এবার বাঘের দেশে পৌঁছে গেছে ক্যাঙ্গারুরা। আবহাওয়া খুব বেশি সমস্যা না করলে একটা চমৎকার লড়াই যে উপভোগ করবে ক্রিকেট বিশ্ব তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ না খেলেই মূল লড়াইয়ে নামবে সফরকারীরা। এশিয়ার মাটিতে বিগত রেকর্ডগুলো খুব বেশি সুখকর না অজিদের জন্য। স্লো লো টার্নিং উইকেটে বেশি সুবিধা করতে পারেন না ওয়ার্নার খাজা কেউই। তবে তাদের ২য় স্পিনার অ্যাশটন অ্যাগার যোগাচ্ছে ভরসা। আর এ সিরিজ ২-০ তে হারলে নিজেদের সবচেয়ে বাজে র‍্যাংকিং এ পৌছাবে অস্ট্রেলিয়া। নেমে যাবে ছয় নম্বরে।

অন্যদিকে আত্মবিশ্বাসী স্বাগতিকরা। দেশের মাটিতে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বেশ ভালো ছন্দে আছে তারা। এছাড়া লংকানদের মাটিতেও স্বাগতিকদের হারিয়ে এসেছে তারা। তাই মানসিক দিক থেকে যে টাইগাররা এগিয়ে থাকবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

বরাবরের মতই নজর থাকবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এর দিকে। ব্যাট হাতে ৪০ আর বল হাতে ৩৩ গড় থাকা যে কোনো খেলোয়াড়ই দলের জন্য ভরসা। নিজের অর্ধশততম টেস্ট খেলতে নামবেন তিনি। ভালো কিছু নিশ্চয়ই করতে চাইবেন অজিদের বিপক্ষে এবারই পয়লা নম্বর টেস্ট খেলতে নামা সাকিব। এবারের সিরিজে পাঁচ উইকেট পেলের ডেল স্টেইন , মুত্তিয়া মুরালিধরন ও রঙ্গনা হেরাথের পর কোনো বোলার হিসেবে সব দলের বিপক্ষে পাঁচ উইকেট পাবার অসাধারণ এক এলিট গ্রুপে ঢুকে যাবেন মাগুরার এই ক্রিকেটার।

prv_1486542964
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে উল্লাসরত সাকিব

অজি শিবিরের স্মিথের উপর নজর রাখবে টাইগাররা। স্পিনের বিপক্ষে বরাবরই ভালো খেলেন স্মিথ। ভারতের মাটিতে ধৈর্য আর কৌশলের ভালোই পরীক্ষা দিয়েছেন তিনি। চার টেস্টে হাঁকিয়েছেন তিন সেঞ্চুরি। আর তাই বাংলাদেশেও এর খুব বেশি ব্যতিক্রম হবে বলে মনে হয় না। আর স্মিথের ব্যাটে বড় স্কোর মানেই অজিদের ভালো অবস্থান তাই তাকেই সবার আগে ফেরাতে উন্মুখ থাকবে টাইগার বোলিং শিবির।

মিরপুরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যে পিচে খেলা হয়েছিল তেমন পিচেই খেলা হবে তবে আরো কিছুটা স্লো ও স্পিন সহায়ক বেশি হবে বলে মনে করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে ২য় দিন থেকেই বল টার্ন করবে। এছাড়া পাঁচদিনই বৃষ্টি হওয়ার পূর্বাভাস পাওয়া গেছে। তাই কত তাড়াতাড়ি মাঠ শুকাবে সেটার উপরও নির্ভর করবে টেস্টের ভাগ্য।

এ ম্যাচ দিয়ে হাবিবুল বাশার , মোহাম্মদ আশরাফুলয় আর বর্তমান অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এর পর ৫০ টেস্ট খেলার গৌরব অর্জন করবেন দুই পোস্টার বয় সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল।

আর তিন উইকেট পেলেই নাথান লায়ন অষ্টম অজি বোলার হিসেবে ছোঁবেন ২৫০ উইকেটের মাইলফলক। দুইদলের মধ্যকার চার টেস্টের চারটিতে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। তবে জয়ী দলের কোনো ক্রিকেটারই নেই এবারের স্কোয়াডে।

Ashton-Agar
অজিদের ভরসা অ্যাশটন অ্যাগার

বাংলাদেশ একাদশে লিটন দাসের জায়গা না হওয়ার সম্বাবনা বেশি। কিপিং গ্লাভস থাকবে মুশফিকের কাছে। শফিউল তাসকিন এর মধ্যে লড়াইয়ে জেতার কথা শফিউলেরই। বেশভালো ছন্দে আছেন তিনি। আর অনেকদিন পর একাদশে দেখা যেতে পারে নাসিরকে।  তবে এরই মধ্যে একাদশ ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া।

অস্ট্রেলিয়া একাদশঃ স্টিভ স্মিথ (অধিনায়ক) , ডেভিড ওয়ার্নার , ম্যাথু রেনশো , উসমান খাজা , পিটার হ্যান্ডস্কম্ব , গ্লেন ম্যাক্সওয়েল , ম্যাথু ওয়েড ,  অ্যাশটন অ্যাগার , প্যাট কামিন্স ,  নাথান লায়ন, জশ হ্যাজলউড ।

বাংলাদেশ একাদশঃ (সম্ভাব্য) মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক) , তামিম ইকবাল , সৌম্য সরকার , ইমরুল কায়েস , সাকিব আল হাসান , সাব্বির রহমান , নাসির হোসেন , তাইজুল ইসলাম , শফিউল ইসলাম , মুস্তাফিজুর রহমান

  • রাইয়ান কবির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম