ইতিবাচক অবদানে খুশি সুনীল যোশি

0

সুনীল যোশি- ভারতের সাবেক ক্রিকেটার। নব্বইয়ের দশকে ভারত জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন দাপটের সাথে। তার অফ স্পিনে উড়ে গেছে কত ব্যাটসম্যানের স্ট্যাম্প-বেল! তবে সেই সুনীল যোশির এখন আছে নতুন একটি পরিচয়। তিনি বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচ।

ইতিবাচক অবদানে খুশি সুনীল যোশি

নতুন এই ভূমিকায় অবশ্য খুব বেশিদিন হয়নি যোশির। মাত্র কয়েকদিন আগে নিয়োগ পেয়েছেন। নিয়োগ পাওয়ার পর তার প্রথম মিশনই ছিল শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে, ঢাকা টেস্ট। সেই মিশনে যোশির ছাত্ররা পার পেয়েছেন সফলতার সাথেই। বলতে গেলে বাংলাদেশকে ঢাকা টেস্ট জিতিয়েছেন টাইগার স্পিনাররাই।

Also Read - টাইমস অব ইন্ডিয়ার চোখে বাংলাদেশ 'নতুন শ্রীলঙ্কা'

শিষ্যদের এমন পারফরমেন্সে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বাসিত সুনীল যোশি। প্রথম চ্যালেঞ্জেই এমন ইতিবাচক অবদান রাখতে পেরে বেশ খুশি তিনি।

২০০০ সালে বাংলাদেশের উদ্বোধনী টেস্ট ম্যাচে ভারতকে জিতিয়ে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন যোশি। যদিও সেই সময়ের দল নিয়েই ভারতের সাথে বেশ লড়াই করেছিল বাংলাদেশ। ঐ ম্যাচের কথা উল্লেখ করে সম্প্রতি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে যোশি বলেন, ‘এটা ছিল ঐতিহাসিক এক ঘটনা।’

ঢাকা টেস্টে অস্ট্রেলিয়া বধের পেছনে কাজ করেছে যে স্পিন, সেই স্পিনে অবদান আছে যোশিরও। ভারতীয় কোচ এই মুহূর্তকেও উল্লেখ করলেন ‘ঐতিহাসিক’ বলে। তিনি বলেন, ‘এখন, এই টেস্টটিও। এবং ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পেরে আমি খুশি।’

অস্ট্রেলিয়ার দুর্বলতার জায়গা কোথাও- এমন প্রশ্নের জবাবে যোশি বলেন, ‘একটি ডেলিভারি আছে, যেটি খেলতে অস্ট্রেলিয়ানরা সংগ্রাম করে আসছে সেই ভারত সিরিজ থেকেই।’

তিনি বলেন, ‘সিরিজ শেষ হওয়ার আগে আমি বলবো না সেই ডেলিভারি ঠিক কোনটি। আমি চাই না অস্ট্রেলিয়া কোনো কাউন্টার প্ল্যান নিয়ে আসুক। তবে ওরা যখন ভারতের বিপক্ষে খেলছিল তখনই আমি সেটা ধরতে পেরেছি। আমি বাংলাদেশি বোলারদের বলেছি সেভাবে বল করতে, এবং এটা কাজে দিচ্ছে।’

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম