SCORE

Trending Now

এশিয়াতে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের সাফল্য কেমন?

Share Button

টেস্ট সিরিজ খেলতে শেষ ১২ মাসে তিনবার এশিয়াতে আসলো টিম অস্ট্রেলিয়া। যদিও এশিয়াতে অজিদের টেস্টের রেকর্ড ভালো না এরপরেও বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজে কিছু বোলারের দিকে বিশেষ নজর থাকবে।

দুই টেস্টের দুই ভেন্যু মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট স্পিনবান্ধব হবে এমনটাই আশা করা হচ্ছে। অজিরাও তেমন পরিকল্পনা নিয়েই এসেছে।

Also Read - এখনো নিশ্চিত হয়নি প্রস্তুতি ম্যাচের ভেন্যু!

বাংলাদেশ ঘরের মাঠে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ খেলেছিল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। সেই সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ হয়। তবে টাইগারদের অস্ট্রেলিয়া বধ করতে আরো বেশি সাবধানী ও সতর্ক ব্যাটিং করতে হবে। কেননা অজি স্পিনাররা স্লো উইকেটে ভয়ঙ্কর হতে পারে।

১৪ সদস্যের স্কোয়াড নিয়ে গতকাল (শুক্রবার) রাতে বাংলাদেশে পা রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। দলে আছে চারজন স্পিনার ও চারজন পেসার। চলুন দেখে নেই এশিয়াতে এদের পারফরম্যান্স কেমন-

 

জস হ্যাজেলউডঃ ম্যাচ-৭, উইকেট-১৫, গড়-৩২.৭৫, বেস্ট বোলিং স্পেল-৬/৬৭, ৫ উইকেট-১ বার। 

এশিয়াতে গতি দিয়ে খুব বেশি সুবিধা করতে না পারলেও বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার বোলিং লাইনআপের নেতৃত্ব দিবেন হ্যাজেলউড। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের উপর চাপ তৈরী করবেন এই পেসার।

 

প্যাট কামিন্সঃ ম্যাচ-২, উইকেট-৮, গড়-৩০.২৫, বেস্ট বোলিং স্পেল-৪/১০৬

ভালো গতির কারণে বাংলাদেশীদের উপর বিপজ্জনক হতে পারেন এই পেসার। ভারতে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিতে ভালো প্রভাব রেখেছিলেন কামিন্স। 

নাথান লায়নঃ ম্যাচ-১৫, উইকেট-৬১, গড়-৩৭.১৮, বেস্ট বোলিং স্পেল-৮/৫০, ৫ উইকেট-৪ বার।

বাংলাদেশের বিপক্ষে এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় অস্ত্র লায়ন। স্পিনে দলকে নেতৃত্ব দিবেন এই ক্রিকেটার। শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজে ৩ ম্যাচে ১৬ উইকেট নিয়েছিলেন এই অফস্পিনার। ভারতের বিপক্ষে এক ইনিংসে ৮ উইকেট নেবার রেকর্ডও আছে লায়নের।

গ্লেন ম্যাক্সওয়েলঃ ম্যাচ-৫, উইকেট-৭, গড়-৪১.২৮, সেরা বোলিং ফিগার-৪/১২৭

লায়নের মতো এতো কার্যকরী না হলেও ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বল হাতেও ভেলকি দেখাতে পারেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

অ্যাস্টন অ্যাগারঃ ম্যাচ-২, উইকেট-৬, গড়-৩৩.৫০, সেরা বোলিং ফিগার-৩/১০৭ (এশিয়ার প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে)

 

জ্যাকসন বার্ডঃ এখনো এশিয়ায় খেলেন নি।

মিচেল সুইপসনঃ এখনো অভিষেক হয় নি।

হিল্টন কার্টরাইটঃ এখনো এশিয়ায় খেলেন নি। 

 

Related Articles

টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে মুশফিক-সাব্বিরদের উন্নতি

ম্যাক্সওয়েলের হিট স্ট্রোক!

ম্যাক্সওয়েলের ভয় সাকিব-মুস্তাফিজে

ম্যাক্সওয়েলকে ছয়েই দেখতে চান মাইক হাসি

বাংলাদেশী দুর্বল বোলিংয়ের সুবিধা নিতে চায় অস্ট্রেলিয়া