টিকিট কেনার মানুষ নেই!

0
২০১৪ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি-২০ বিশ্বকাপের টিকিট পেয়ে উচ্ছ্বসিত দর্শক। যদিও আসন্ন ঢাকা টেস্ট নিয়ে এমন টিকিট-উন্মাদনা কমই।

ক্রীড়াপ্রেমি ঢাকাবাসী অতীতে বারবার প্রমাণ করেছে ক্রিকেটের প্রতি তাদের ভালোবাসা। কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্টের আগে টিকিট বিক্রি শুরু হলে সংগ্রহের জন্য পড়ে যেতো লম্বা লাইন। টিকিট সংগ্রহের জন্য অনেকের কাঁথা-বালিশ নিয়ে কাউন্টারের সামনে ‘ঘর’ পাতারও দৃষ্টান্ত আছে!

তবে আগামীকাল (রোববার) থেকে শুরু হতে যাওয়া অস্ট্রেলিয়া সিরিজের আগে ঠিক উল্টো চিত্র ঢাকায়। টিকিট বিক্রিতে এবার নেই কোনো ব্যস্ততা! বিগত সময়ে এমন দৃশ্য তো দেখা যায়নি বটেই, সর্বশেষ কবে এমন অবস্থা হয়েছিল সেটি মনে করাও দুঃসাধ্য!

অবশ্য এর পেছনে ঢাকাবাসীর ক্রিকেটের উপর থেকে ভালোবাসা কমে যাওয়ার মতো কোনো কারণ নেই। মূল কারণ হিসেবে কাজ করছে আসন্ন ঈদুল আযহা। আর এক সপ্তাহ পরই মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুটির একটি। এ উপলক্ষ্যে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ইতোমধ্যে নিজ নিজ এলাকায় পাড়ি দিয়েছেন অনেকে। এতে ফাঁকা হচ্ছে ঢাকা, যার কারণে টিকিট বিক্রির বুথগুলোতেও নেই কোনো হুড়োহুড়ি।

Also Read - জয় দিয়েই সিপিএলে অভিষেক রিয়াদের

শনিবার সকালে মিরপুর ১০ নম্বরের হোসেন শহিদ সোহরাওয়ার্দী স্টেডিয়ামে দেখা যায়, টিকিট বিক্রির বুথ বা কাউন্টারে নেই কোনো ভিড়। অল্প কজন ক্রেতা নির্বিঘ্নে-নির্ঝঞ্ঝাটে টিকিট কিনে হাসিমুখে বাড়ি ফিরছেন। কোনো কোনো বুথ নির্ধারিত সময়েও খোলা হয়নি, কারণ হিসেবে জানানো হয়েছে- টিকিট কেনার মানুষ নেই!

সোহরাওয়ার্দী স্টেডিয়ামের ইনডোরের বুথ তৈরি হয়নি সকালেও, অথচ শিডিউল অনুযায়ী ততক্ষণে শুরু হয়ে গেছে ঢাকা টেস্টের টিকিট বিক্রি। কর্তৃপক্ষ থেকে বুথ না বানানোর কারণ হিসেবে জানানো হয়, ‘টিকিট কেনার মানুষ নেই। এই তো আজকের মধ্যেই হয়ে যাবে।’

টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় না থাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তদবিরও খুব একটা চোখে পড়েনি। আগে যে জায়গায় থাকতেন জনা-দশেক পুলিশ সদস্য, সেখানে এবার এক-দুজনই দাঁড়িয়ে আছেন আয়েশি ভঙ্গিতে।

তবে টিকিট বিক্রি যেমনই হোক, ইতিহাস বলে- বাংলাদেশের ম্যাচে কখনও ফাঁকা থাকেনি ‘হোম অব ক্রিকেট’-এর গ্যালারি!

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম