পেন্ডুলামের মতো দুলছে ঢাকা টেস্ট

0

পেন্ডুলামের মতো দুলছে রোমাঞ্চকর ঢাকা টেস্ট! বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেওয়া ২৬৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে থাকা সফরকারী অস্ট্রেলিয়া চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনেই হারিয়েছে পাঁচটি উইকেট। আগের দিনের দুই ব্যাটসম্যানের বিদায়ে মোট সাত উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে রয়েছে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। আর এতে আবারও ম্যাচ জয়ের ভেঁপু শুনছে মুশফিক-সাকিবদের বাংলাদেশ।

চতুর্থ দিনের লাঞ্চ বিরতি শেষে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ৬৬ রান, বাংলাদেশের প্রয়োজন তিনটি উইকেট।

Also Read - লঙ্কান নির্বাচকদের আকস্মিক পদত্যাগ

ব্যাকফুটে থেকে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করার পর বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়েছেন সাকিব আল হাসান। প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করে রেকর্ড গড়া সাকিব দ্বিতীয় ইনিংসের সাত উইকেটের চারটিই শিকার করেছেন একা। অবশ্য সাতসকালে ওয়ার্নারকে সাকিব যখন এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান, নিজের কাজটুকু ভালোমতোই করে গেছেন অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যান। ১১২ রানের দুর্ধর্ষ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বাংলাদেশকে পরাজয়ের ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন সার্থকভাবেই।

তবে সেই ভয় যে বাংলাদেশের গায়ে লাগেনি, সেটি বোঝা গেছে টাইগারদের লড়াকু মনোভাবেই। রক্ষণাত্মক এবং আক্রমণাত্মক বল করে সফরকারীদের একপর্যায়ে কোণঠাসা করে ফেলেন স্বাগতিক বোলাররা। যার ফলস্বরূপ একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে লক্ষ্য পূরণে মরিয়া অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়া শিবিরে চতুর্থ আঘাতও হানেন সাকিব, মুশফিকের ক্যাচে পরিণত করে ফেরান বিপজ্জনক স্মিথকে। এতে ভেঙে গেছে দলটির মনোবল, আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে তাইজুল শিকার করে নেন হ্যান্ডসকমকে।

১৮৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া যখন খানিকটা দিশেহারা, তাদের চাপ আরও বাড়িয়ে তুলেন বাংলাদেশের স্পিনাররাই। ওয়েড এবং অ্যাগারকে ফেরান যথাক্রমে সাকিব ও তাইজুল। দলীয় স্কোর দুইশ পেরোনোর আগেই সাত ব্যাটসম্যানকে খুইয়ে রীতিমতো তখন ধুঁকছে অস্ট্রেলিয়া, আর পেন্ডুলামের মতো ক্রমশ দুলতে থাকা ঢাকা টেস্ট হেলে আছে বাংলাদেশের দিকে।

শেষ তিন উইকেটকে কেন্দ্র করে লড়তে থাকা অস্ট্রেলিয়া লাঞ্চ বিরতিতে গেছে ১৯৯ রান নিয়ে। অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান ম্যাক্সওয়েল এবং কামিন্সের উপরই এখন নির্ভর করছে দলটির এই টেস্টের ভবিষ্যৎ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (চতুর্থ দিনের লাঞ্চ বিরতি শেষে)

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস- ২৬০

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস- ২১৭

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস- ২২১

অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ইনিংস- ১৯৯/৭ (লক্ষ্য ২৬৫)

ওয়ার্নার ১১২, স্মিথ ৩৭, ম্যাক্সওয়েল ১৪*, কামিন্স ২*

সাকিব ২১-৫-৬৮-৪, তাইজুল ১৫-২-৪৯-২

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম