‘বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলতে পারাটা গর্বের’

0

Tamim-Iqbal-WorldXI

পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিষিদ্ধ অনেক বছর ধরেই। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের উপর সন্ত্রাসী হামলার কারণে দীর্ঘ সময় পাকিস্তানের মাটিতে অনুষ্ঠিত হয়নি কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ। পিসিবি বেশ কয়েকটি দলকে খেলার আমন্ত্রণ জানালেও আগ্রহ দেখায়নি কোন ক্রিকেট দলের বোর্ডই।

যেখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিষিদ্ধ সেখানে বাংলাদেশ দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালের যাওয়াটা কতটা নিরাপদ সেটা নিয়ে রয়েছে নানা আলোচনা-সমলোচনা। তবে পাকিস্তানে আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে চেষ্টার কমতি রাখছে না পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

Also Read - নাফিসের চোখে স্মিথ-ওয়ার্নাররা যেমন...

২০১৫ সালে পিসিবির আমন্ত্রণে সাড়া দিয়েছিল জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড। খেলেন কয়েকটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও। পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) এর কয়েকটি ম্যাচও আয়োজন করা হয়েছিল পাকিস্তানে। পিএসএলের ফাইনাল খেলতে পাকিস্তানে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয়।

পিএসএল ফাইনালকে ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় মুগ্ধ করেছিল ক্রিকেটারদের। তবে এবার আইসিসির সহযোগিতায় আবারো পাকিস্তানে ম্যাচ আয়োজন করতে যাচ্ছে পিসিবি। আগামী সেপ্টেম্বরে লাহোরে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বিশ্ব একাদশ। আর সেই দলে খেলার আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন ওপেনার তামিম।

শুধুমাত্র বিসিবির সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় ছিলেন তামিম। অবশেষে গতকাল ডু প্লেসিসের নেতৃত্বে ঘোষণা করা হয় ১৪ সদস্যের দল। সেই দলে রয়েছেন কলিংউড, আমলা, মিলারদের মতো তারকা ক্রিকেটাররা। পিসিবি পাকিস্তানে আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরানোর এমন প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানিয়েছে তামিম।

“আমার মনে হয়, ক্রিকেটিং ১০টা দেশ একটা পরিবারের মতো। পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে একজনকে না একজনকে তো সহায়তা করতে হবে। আমার মনে হয়, ওরা একটা চমৎকার জিনিস করছে এমন একটা আয়োজন করে। এটা যদি সফলভাবে আয়োজন করতে পারে, সামনে দেখবেন অনেক আন্তর্জাতিক দল পাকিস্তান যাচ্ছে।”

আগামী ১২, ১৩ ও ১৫ সেপ্টেম্বর লাহোরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ম্যাচে বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলতে পারাটাকে গর্বের মনে করেন জাতীয় দলের এই ড্যাশিং ওপেনার। মূলত ম্যাচগুলো আন্তর্জাতিক মর্যাদা থাকার কারণে এটিকে অন্যভাবে দেখছেন তামিম।

“প্রথমত এটা আইসিসি অনুমোদিত একটি টুর্নামেন্ট। ম্যাচগুলোর আন্তর্জাতিক মর্যাদা থাকবে। দ্বিতীয়ত, আমার মনে হয়, বিশ্ব একাদশকে প্রতিনিধিত্ব করা একটা বড় কথা। ওটার জন্য আমি গর্বিত।”