‘ভয় আমি কোনোদিনও পাই না’

0

শাহাদাত হোসেন- নিজের দোষে আড়ালে চলে যাওয়া এক নাম। সম্প্রতি সব বিতর্ক ঝেড়ে ফেলে আবারও ক্রিকেট অঙ্গনে আনাগোনা বেড়েছে তার।

১১ বছর পর চলতি মাসে আবারও বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট খেলতে আসছে অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে টাইগারদের দলে ছিলেন শাহাদাত হোসেন। সম্প্রতি শীর্ষ জাতীয় দৈনিক মানবজমিনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে সেই সিরিজের গল্প।

Also Read - শ্রীলঙ্কায় হচ্ছে বিশ্ব একাদশের ম্যাচ

সেই সময়ের অস্ট্রেলিয়া দলে ছিলেন রিকি পন্টিং, অ্যাডাম গিলক্রিস্টদের মতো বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যান। বল হাতে তাদের মুখোমুখি হতে ভয় পেয়েছিলেন কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে শাহাদাত বলেন, ভয় আমি কোনোদিনও পাই না। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই লর্ডসে আমার অভিষেক হয়েছিল। আমার মধ্যে তখন ভয়ের চেয়ে স্বপ্ন ও রোমাঞ্চটাই বেশি ছিল। কারণ ছোটবেলা থেকে যাদের নাম শুনেছি সেই রিকিং পটিং, গিলক্রিস্টদের বিপক্ষে বল করবো ভেবে দারুণ আনন্দে ছিলাম। চিন্তা ছিল তাদের উইকেট নিতে পারলেতো জীবনে এক ধাপ এগিয়ে যাওয়া যাবে। আর একটা স্বপ্ন পূরণ হয়েছে আমার সেই সিরিজে।

অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তী পেসার ব্রেট লি’র সাথে একই ম্যাচে বল করতে পেরে রোমাঞ্চিত ছিলেন জানিয়ে শাহাদাত বলেন,আমি ব্রেট লির সঙ্গে একই টেস্টে বল করতে পেরেছি। ব্রেট লি আমার প্রতিপক্ষ ছিল। মাঠে আমি তাকে দেখাতে পেরেছি যে আমিও পারি। আমি আমার ক্যারিয়ারে যে কটি টেস্ট খেলেছি তার মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজটিকে আলাদাভাবে জায়গা দিয়েছি। কারণ মনে মনে চিন্তা ছিল ওদের বিপক্ষে খেলতে পারলে আর কাউকে পাত্তা দিব না।

আলাপকালে শাহাদাত জানান ঐ ম্যাচের একটি স্মৃতির কথাও, ওদের ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছিল। আমাদের সামনে জয়ের একটা দারুণ সম্ভাবনা তৈরি হয়। কিন্তু সেই সময় ওদের হাল ধরে রাখেন পন্টিং ও ব্রেট লি। আগের ইনিংসে আমি পন্টিংকে আউট করেছিলাম। ভাবছিলাম এ ইনিংসে যদি আউট করতে পারি তাহলে জয় সহজ হবে। আমার বলে পন্টিং ক্যাচ তুলেছিল ফাইন লেগের দিকে। সেখানে ছিলেন রফিক ভাই ও মাশরাফি ভাই। রফিক ভাই গেলে ক্যাচটা ভালোভাবে নিতে পারতেন। আর মাশরাফি ভাই ছিলেন একটু দূরে। তবে চেষ্টা করেছিলেন মাশরাফি ভাই কিন্তু বলটি ধরেও হাত ফস্কে যায় তার। পন্টিং শেষ পর্যন্ত সেঞ্চুরি করে অপরাজিত থাকে আর আমরা জিততে জিততে হেরে যাই। সেই ক্যাচটি হলে হয়তো জিততে পারতাম। এখনো সেই ম্যাচটা চোখের সামনে ভাসে।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম