স্পিন বিষে নীল অস্ট্রেলিয়া

0

শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার শঙ্কাটাই সত্যি হল!

বাংলাদেশ সফর নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে দুশ্চিন্তার জায়গা ছিল স্পিনই। সিরিজ শুরুর আগে এই স্পিন নিয়ে গবেষণা কম হয়নি। তবে স্পিন-বান্ধব উইকেট হলে অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে বাংলাদেশই যে সুবিধা পাবে বেশি, সেটি ছিল সহজেই অনুমেয়। সেই ‘সহজেই অনুমেয়’ ব্যাপারটিই এবার বেশ ভোগাচ্ছে অস্ট্রেলিয়াকে। ফলে ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের লাঞ্চ বিরতিতে ম্যাচটা হেলে আছে চালক বাংলাদেশের দিকেই।

Also Read - পাইলটের বাবার মৃত্যু, বিভিন্ন মহলের শোক

প্রথম দিনের শেষ সেশনে ব্যাটিং দলের ভূমিকায় থেকে উইকেটের চরিত্র বোঝার আগেই অস্ট্রেলিয়ার মনোবল ভেঙে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। স্পিনারদের রাজত্ব অব্যাহত থাকলো দ্বিতীয় দিনের উদ্বোধনী সেশনেও। বাংলাদেশের চোখে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বিপজ্জনক ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথকে ফ্লাইট মিস করিয়ে স্ট্যাম্প গুঁড়িয়ে দিয়ে দিনের উইকেট-পতনের সূচনা করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে এরপর টাইগারদের দিতে হয়েছে কিছুটা ধৈর্যের পরীক্ষা। স্মিথের বিদায়ের পর পিটার হ্যান্ডসকমকে নিয়ে অপরাজিত ওপেনার ম্যাট রেনশো ব্যাট চালাতে লাগলেন খুব সাবধানে। ডানহাতি ও বাঁহাতি দুই ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরাতে বাংলাদেশ এতটাই মরিয়া ছিল যে, দলের সবচেয়ে চৌকস খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান খরচ করেছেন আস্ত একটা রিভিউ। ইমরুল রেনশোর ক্যাচ ছাড়ার দুঃখ ভোলাতে সাহায্য করেছিলেন মিরাজ। তার এলবিডব্লিউ এর আবেদনে ইতিবাচক সাড়াও দিয়েছিলেন আম্পায়ার। কিন্তু অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যান রিভিউ নিয়ে সে যাত্রায় বেঁচে যান, তাতে ক্লান্তি বাড়ে স্বাগতিকদের।

তবে অস্ট্রেলিয়া স্পিন জুজুকে কাজে লাগিয়ে একটা সময় বিপজ্জনক হয়ে ওঠা রেনশো-হ্যান্ডসকমের পার্টনারশিপ ভাঙেন তাইজুল, স্ট্যাম্পগামী বল ডানহাতি ব্যাটসম্যানের পায়ে বিঁধিয়ে। অস্ট্রেলিয়া খেই হারিয়ে ফেলে তখনই। হাফ সেঞ্চুরি থেকে পাঁচ রান দূরে থেকে উইকেটে থিতু রেনশোও ফেরেন সাজঘরে, এবার শিকারির ভূমিকায় সাকিব।

একটি রানআউট বাদ দিলে অস্ট্রেলিয়ার পতন ঘটা ৬ উইকেটের ৭টিতেই রয়েছে স্পিনারদের অগ্রণী ভূমিকা। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বাংলাদেশের স্পিন বিষে টাইগারদের ছুঁড়ে দেওয়া প্রথম ইনিংসের বেঁধ অজিদের পেরোতে না পারারই কথা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (দ্বিতীয় দিনের লাঞ্চ বিরতি শেষে)

টস- বাংলাদেশ

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস- ২৬০

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস- ১২৩/৬

রেনশো ৪৫ (৯৪), হ্যান্ডসকম ৩৩ (৬৭), স্মিথ ৮ (১৬), ম্যাক্সওয়েল ৮* (১৩), ওয়েড ৫* (৪)

মিরাজ ১২-৪-২৬-২, সাকিব ৯-২-৩১-২, তাইজুল ৬-০-৩১-১

অস্ট্রেলিয়া ১৩৭ রানে পিছিয়ে।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম