অস্ট্রেলিয়াকে ‘ধবলধোলাই’ করার লক্ষ্য মুশফিকের

0

দীর্ঘ ১১ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সাদা পোশাকের লড়াইয়ে মেতেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার সুযোগটা মুশফিকদের এভাবেই কম মিলে, সিরিজ জয়ের হিসেব তো অনেক দূরের কথা। তবে এবার সুযোগ এসেছে। লম্বা সময়ের বিরতির পর অজিদের বিপক্ষে খেলার পাশাপাশি সিরিজ জয়ের হাতছানি এখন বাংলাদেশের সামনে।

অস্ট্রেলিয়াকে 'ধবলধোলাই' করার লক্ষ্য মুশফিকের

সফরকারী স্মিথ-বাহিনীর বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচটি ২০ রানে জিতে নিয়ে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ জয় ও ধবলধোলাইয়ের স্বাদ পাওয়ার সন্নিকটে বাংলাদেশ। তাই কিছুতেই এই সুযোগের অপমৃত্যু হতে দিতে নারাজ মুশফিক।

Also Read - সিপিএল থেকে ছিটকে গেলেন ম্যাককালাম

বরং ফায়দা তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে রুখে দেওয়ার মন্ত্রে উজ্জীবিত বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক। সোমবার থেকে বন্দরনগরীতে শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় টেস্টকে সামনে রেহে ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন টাইগার দলনেতা। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রতিপক্ষ হিসেবে, যে দলই আসুক আমরা জয়ের জন্য খেলি। প্রথম টেস্টের আগেও আমি বলেছিলাম, আমাদের চেষ্টা থাকবে প্রতিটা ম্যাচ জয়ের। অবশ্যই ২-০ করার জন্য যা যা করা দরকার আমরা করবো। আক্রমণাত্মক মনোভাব না নিয়ে খেললে কোনও দলের সঙ্গে কখনও জেতা সম্ভব হবে না। ওরা (অস্ট্রেলিয়া) যতই আগ্রাসী ক্রিকেট খেলুক, আমরা তার চেয়ে বেশি ভালো ও আগ্রাসী ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করবো। ওদের কাছ থেকে আক্রমণ আসলে, পাল্টা-আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করবো।’

পেশাদার দল হিসেবে পিছিয়ে পড়া থেকে আহত সিংহের মতো কীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয় অস্ট্রেলিয়ার তা বেশ ভালো করেই জানা। আর এই বিষয়টি মাথায় রাখছেন মুশফিক। ‘আমরা ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছি। অস্ট্রেলিয়া দল এরকম চাপের মধ্যে অনেক ম্যাচ খেলেছে। ওরা জানে যে চাপের মধ্যে কীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়। আমাদের মাথায় এটা আছে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঢাকা টেস্ট জয়ের পর চট্টগ্রাম টেস্টেও একই ধরণের ফল পেতে আত্মবিশ্বাসী মুশফিক-সাকিবরা। ঢাকা টেস্টে অজি বধই দলের ক্রিকেটারদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে আর ভালো করার অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন মুশফিক। সেইসাথে বাংলাদেশের শেষ দুই টেস্ট সিরিজে (ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে) পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত সিরিজ ড্র করতে পারা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভালো ফলাফলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা শেষ দুই সিরিজে (ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা) প্রথম টেস্ট হেরে যাওয়ার পর দ্বিতীয় টেস্টে ভালোভাবে ফিরে এসেছিলাম। মানসিকভাবে আমরা কতটুকু উন্নতি করেছি এটাও কিন্তু তার প্রমাণ দেয়। আমরা অবশ্যই সেরা সাফল্যের চেষ্টা করব। প্রথম টেস্টে তাদেরকে (অস্ট্রেলিয়া) একটা বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করেছি; তবে কালকে (সোমবার) আমাদের একটা নতুন দল হিসেবেই মাঠে নামতে হবে।’