SCORE

আউট হয়েও যেখানে আমলা অনন্য

Share Button

টেস্ট ক্রিকেটের গৌরবময় ইতিহাসে বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা পচেফস্ট্রুম টেস্টটি সংখ্যার দিক থেকে ৪৫৪৮তম। মুশফিকুর রহিম আর ফ্যাফ ডু প্লেসিসের দল যখন মাথায় চিন্তার ভাঁজ ফেলে একে অপরকে মোকাবেলা করছেন, তখন আরেকটি টেস্টে মাঠে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়রাও।

আমলা

একটা সময়ে এসে দারুণ এক সুযোগ দাঁড়িয়েছিল দুই টেস্টের চার ব্যাটসম্যানের সামনে। পচেফস্ট্রুম টেস্টে ব্যাট করছিলেন ডিন এলগার ও হাশিম আমলা, আবুধাবি টেস্টে ব্যাট হাতে ক্রিজে ছিলেন দীনেশ চান্দিমাল ও দিলরুয়ান পেরেরা। ঠিক এমন মুহূর্তে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে মোট উইকেটের পতন ঘটেছে ঊনসত্তর হাজার নয়শ নিরানব্বইটি। অর্থাৎ আর একটি উইকেটের পতন ঘটলেই সেটি হবে টেস্ট ক্রিকেটের সত্তর হাজারতম উইকেট!

Also Read - প্রথমবারের মতো ওপেনিংয়ে নেই তামিম

কিছুক্ষণের জন্য তাই ক্রিকেট-বোদ্ধাদের চোখ আটকে ছিল এই দুই ম্যাচে। নীরবে লড়াই চলছিল বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বোলারদের মধ্যেও- কে নেবেন সত্তরহাজারতম উইকেট! শেষপর্যন্ত সেই নীরব লড়াইয়ে জিতেছেন টাইগার পেসার শফিউল ইসলাম। ১৩৭ রান করা হাশিম আমলাকে মেহেদী হাসানের হাতে ক্যাচ হিসেবে তুলে দিয়েই মাইলফলকে নাম লেখান শফিউল, তবে সেক্ষেত্রে একটু বেশি উচ্চারিত হবে আমলার নামই। শফিউল ৭০,০০০তম উইকেটের শিকারি, আমলা যে শিকারই!

আমলার ‘কীর্তি’ বনে যাবার দিনে স্মরণ করতে হয় ন্যাথানিয়েল ফ্রাম্পটন ডেভিস থমসনকে, যার সংক্ষিপ্ত নাম ন্যাট থমসন। ইতিহাসের প্রথম টেস্ট উইকেট যে ছিলেন তিনিই! উইকেটটির শিকারি ছিলেন ডানহাতি ইংলিশ পেসার অ্যালেন হিল।

এদিকে ১৩৭ রানের ইনিংস খেলার পথে আরেকটি কীর্তি গড়েছেন আমলা, যা গৌরবেরই। ইনিংসটিতে সেঞ্চুরি করার সাথে সাথেই তিনি বনে গেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি করা টেস্ট ক্রিকেটার। এক্ষেত্রে অবশ্য তার পাশে আছে সাবেক অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথের নামও। দুজনেরই সেঞ্চুরি ২৭টি করে। সবার উপরে সাবেক কিংবদন্তী অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিস, তার সেঞ্চুরির সংখ্যা ৪৫টি। তাকে স্পর্শ করতে অবশ্য আরও বেশ কয়েকটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলতে হবে আমলাকে।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম

Related Articles

টাইগারদের পাশেই আছেন নান্নু

কোচের কাছে ব্যর্থতার কারণ জানতে চাইবেন পাপন

নীরবেই দেশে ফিরল টাইগাররা

‘হাথুরুসিংহেকে ক্ষমতা দেওয়াই বুমেরাং হচ্ছে’

‘পেস বোলিং এ পিছিয়ে যাচ্ছি’ – সুজন