উইন্ডিজের পরাজয়, বিশ্বকাপ নিশ্চিত শ্রীলঙ্কার

0

শ্রীলঙ্কা এবং উইন্ডিজ ক্রিকেটের বর্তমান সময়কে নিজেদের সবচেয়ে বাজে সময় হিসেবে ধরা হয়। একদিকে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটে ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর কুমার সাঙ্গাকারা এবং মাহেলা জয়াবর্ধনের অবসরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের বাজে সময় শুরু হয়েছে।

সরাসরি বিশ্বকাপ নিশ্চিত করলো শ্রীলঙ্কা

একের পর এক পরাজয় হুমকির মুখে পড়েছিল ১৯৯৬ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ী দলের আগামী ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার। তবে সব শঙ্কা কাটিয়ে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলতে পারবে শ্রীলঙ্কা। আইসিসির নতুন নিয়ম অনুযায়ী র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ ৮ দল অংশগ্রহণ করতে পারবে বিশ্বকাপের মূল লড়াইয়ে।

Also Read - ইংল্যান্ড সফর নিয়ে শান্ত'র কন্ঠে তৃপ্তির সুর

বিগত বেশ কয়েকদিন আগেও নিজেদের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ৪-১ এ হেরেছে শ্রীলঙ্কা দল। এই সিরিজ হারায় শঙ্কায় মুখে ছিল বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার। তবে সেই সাথে উইন্ডিজকে জিততে হবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজও।

তবে গতকাল ম্যানচেস্টারের ওল্ড টাফোর্ড স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের কাছে উইন্ডিজদের ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হওয়াতে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার টিকেট পায় শ্রীলঙ্কা। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে শ্রীলঙ্কা দলও।

শ্রীলঙ্কার কোয়ালিফাইতে উইন্ডিজ দলকে খেলতে হবে আফগানিস্তান, আয়ারল্যান্ড, জিম্বাবুয়েদের বিপক্ষে খেলতে বাছাই পর্বের ম্যাচ। এইদিকে বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত হওয়াতে বেশ আনন্দিত লঙ্কান ওয়ানডে অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা।

“এটা সত্যি যে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল বর্তমানে অনেক কঠিন সময় পার করছে। তবে আমি আমাদের দর্শকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। তারা আমাদের খারাপ সময়ে সবসময় আমাদের উপর আস্থা রেখেছিল। আইসিসির প্রতি ইভেন্টেই শ্রীলঙ্কার জন্য ভাল কিছু বয়ে আনে। নিজেদেরকে প্রমাণ করার আরেকটি সুযোগ পেলাম।”

তিনি আরো যোগ করেন, “বিশ্বকাপকে ঘিরে আমাদের বেশকিছু পরিকল্পনা রয়েছে। টুর্নামেন্টের প্রত্যেকটি ধাপ অর্জন করতে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে আমাদের। ছোট জয় হোক বা বড়, সেটিতেই ফোকাস করতে চাই। আশা করছি খুব শীঘ্রই আবারো পুরনো রূপে ফিরবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট।”