এনসিএলে খেলবেন মাশরাফি!

Share Button

ইনজুরির কারণে মাশরাফির টেস্ট ক্যারিয়ার দীর্ঘায়িত হয়নি। এই ফরম্যাটে লম্বা সময় ধরে বল করতে হয়, যার ধকল সামলাতে পারেন না বহুবার পায়ের ইনজুরির কারণে শল্যবিদের ছুঁড়ির নিচে যাওয়া মাশরাফি। ২০০৯ সালে অধিনায়ক হিসেবে নিজের প্রথম টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে ভালো খেলার ছন্দ খুঁজে পেতেই ইনজুরির শিকার হয়েছিলেন। সেই ইনজুরি মাশরাফিকে ভুগিয়েছিল দীর্ঘদিন।

এনসিএলে খেলবেন মাশরাফি!

এরপর টেস্ট ক্রিকেটে ফেরার সাহস করতে পারেননি নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত দেশসেরা পেসার। মূলত সীমিত ওভারে তার চাহিদার কথা মাথায় রেখেই তাকে লঙ্গার ভার্শন থেকে দূরে রেখেছে বোর্ড। যদিও ২০১৪ সালে জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) খেলেছিলেন একটি ম্যাচে। সেই মাশরাফি এবার আবারও যোগ দিচ্ছেন এনসিএলে। আসন্ন জাতীয় ক্রিকেট লিগের ১৯তম আসরে নিজ বিভাগ খুলনার সাদা জার্সি গায়ে মাঠ মাতাবেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক।

Also Read - বিশ্ব একাদশের পাকিস্তান সিরিজে আম্পায়ার যারা

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর খুলনার হোম ভেন্যু শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে খুলনা। ঐ ম্যাচে খেলবেন মাশরাফিও। জানা গেছে, মাশরাফির ইচ্ছাতেই তাকে দলে অন্তর্ভুক্ত করেছে খুলনার টিম ম্যানেজমেন্ট। একই সময়ে জাতীয় দল উড়াল দিবে দক্ষিণ আফ্রিকায়। তবে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে সফর শুরু হবে টেস্ট সিরিজ দিয়ে, যাতে অংশ নেবেন না মাশরাফি। আর তাই পরবর্তী সিরিজ তথা ওয়ানডে সিরিজের প্রস্তুতির ষোলোআনা পূরণ করতে মাশরাফি বেছে নিয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট লিগকেই।

মাশরাফির খেলা প্রসঙ্গে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে খুলনা বিভাগীয় দলের কোচ মনোয়ার আলী মনু বলেন, মাশরাফি মাশরাফিই। আমরা সবাই তাকিয়ে আছি মাশরাফির দিকে যে সে আসবে তিন বছর পরে। সে ড্রেসিংরুমে থাকা মানেই একটা বাড়তি প্রেরণা।

২০০১-০২ মৌসুমে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে মাশরাফির। ইনজুরির কারণে এই ফরম্যাটে অনিয়মিত হওয়ার আগে মাশরাফি খেলেছেন ৫৪টি ম্যাচ, যেখানে তার উইকেট সংখ্যা ১২৯টি। ১৫ সেপ্টেম্বরের ম্যাচটি হতে যাচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেটে সাদা পোশাকে তার ৫৫তম ম্যাচ।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম