ওয়ার্নার-হ্যান্ডসকম্বের ব্যাটে চালকের আসনে অস্ট্রেলিয়া

0

প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া স্পিনার নাথান লায়ন বোলিং জাদু দেখালেও বল হাতে সেই সুবিধা নিতে ব্যর্থ বাংলাদেশের স্পিনাররা। লায়নের বোলিং ঘূর্ণিতে ৩০৫ রানেই অল-আউট হয়ে বাংলাদেশ। জবাবে অস্ট্রেলিয়া ইনিংসের শুরুতেই মুস্তাফিজের বলে মুশফিকের দুর্দান্ত ক্যাচে সাজঘরে ফিরেন ম্যাট রেনশ।

বড় ইনিংসের পথে হ্যান্ডসকম্ব-ওয়ার্নার

তবে রেনশর বিদায়ের পর দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। দু’জনে মিলে গড়েন ৯৩ রানের জুটি তবে চা-বিরতির আগে তাইজুলের প্রথম ওভারেই ৫৮ রান করা স্মিথকে বোল্ড করলে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান।

Also Read - স্মিথের উইকেটে স্বস্তিতে বাংলাদেশ

তবে চা-বিরতির পর আবারো ঘুরে দাঁড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়া। স্মিথের পর অর্ধশতক হাঁকান ওয়ার্নারও। তবে ওয়ার্নারকে আউট করার সুযোগ এলেও সেটি হাতছাড়া করেন বাংলাদেশের ফিল্ডার মুমিনুল হক। সুযোগ পেয়ে নিজের ইনিংস বড় করতে থাকেন অজি সহ-অধিনায়ক ওয়ার্নার।

হ্যান্ডসকম্বকে সাথে নিয়ে গড়েন বড় জুটি। শেষ বেলায় ওয়ার্নারের আরো একটু আউটের সুযোগ হাতছাড়া করেন কিপার মুশফিকুর রহিম। এইদিনে দলের নিয়মিত বোলার সাকিব, মিরাজ, তাইজুলরা ব্যর্থ হলে অধিনায়ক মুশফিক চেস্টা চালিয়ে যান পার্ট-টাইম বোলারদের দিয়ে।

দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে ওয়ার্নার ও হ্যান্ডসকম্বের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ১২৭ রানের জুটি গড়েন তারা। স্মিথ, ওয়ার্নারের পাশাপাশি অর্ধশতক হাঁকান হ্যান্ডসকম্বও। দিনশেষে ১৭০ বলে ৮৮ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন ওয়ার্নার এবং ১১৩ বলে ৬৯ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন হ্যান্ডসকম্ব।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস ৩০৫

মুশফিক ৬৮, সাব্বির ৬৬, নাসির ৪৫: লায়ন ৭-৯৪

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস ২২৫-২ (ওভার ৬৪)

ওয়ার্নার ৮৮*, হ্যান্ডসকম্ব ৬৯*, স্মিথ ৫৮:  মুস্তাফিজ ১-৪৫

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের চেয়ে ৮০ রানে পিছিয়ে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া