SCORE

Breaking News

দক্ষিণ আফ্রিকার দাপট, বাংলাদেশের প্রাপ্তি এক উইকেট

Share Button

পচেফস্ট্রুমে ব্যাট হাতে দাপট দেখিয়েছেন স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার তিন ব্যাটসম্যান। বাংলাদেশের বোলারদের আক্রমণ যেন ছিল নখদন্তহীন। রান তুলতে তেমন কোনো সংগ্রাম করতে হয়নি এলগার-মারক্রামদের।  দিনশেষে বাংলাদেশের কোনো বোলারের নামের পাশে নেই উইকেট। সারাদিনে প্রাপ্তি একটি মাত্র রান আউট। প্রথম দিন শেষে এক উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ২৯৮। গড়ছে রানের পাহাড়।

এলগারের শতক উদযাপন
এলগারের শতক উদযাপন

টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস জানান তিনি চেয়েছিলেন ব্যাটিং নিতে। ভাগ্য সহায় না হলেও পছন্দ মতো ব্যাটিংটা পেয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাট হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার তিন ব্যাটসম্যান আলো ছড়িয়েছেন। হতাশা ছড়িয়েছেন বাংলাদেশের বোলারদের মাঝে।

অভিষিক্ত এইডেন মারক্রামকে সাথে নিয়ে ইনিংস সূচনা করেন ডিন এলগার। সতর্কতার সাথে ব্যাটিং শুরু করেন দুজন। তিন পেসার নিয়ে বাংলাদেশ একাদশ সাজালেও ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারেই স্পিন আনেন মুশফিক। বল তুলে দেন মিরাজের হাতে। অবশ্য কাজ হয়নি কাউকে দিয়েই। সব আক্রমণ দারুণভাবে সামাল দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের আউট করার সুযোগই তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশের বোলাররা।

Also Read - টিভি চ্যানেলের ভুলে সাব্বিরকে নিয়ে ধোঁয়াশা

প্রথম সেশনে কোনো উইকেট নিতে পারেনি বাংলাদেশ। বেশ কয়েক দিন ধরে টেস্টে বড় ওপেনিং জুটির অভাবে ভোগা দক্ষিণ আফ্রিকাকে সেই সমস্যার সমাধানের ইঙ্গিত দিলেন এলগার-মারক্রাম। অর্ধশতকের জুটি প্রথম সেশনের পর পরিণত হয়েছে শতরানে। ধীরে ধীরে রানের চাকার গতি বাড়ান দুজন। বাংলাদেশের খেলাও ছিল নিষ্প্রাণ।

অভিষেকেই অর্ধশতক তুলে নেন এইডেন মারক্রাম। অভিষেকে হাফসেঞ্চুরি করা নবম প্রোটিয়া ওপেনার তিনি। ২০১০ সালের পর প্রথম ওপেনিং জুটিতে ১৫০ রান পূরণ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। দুইজনের ব্যাটে ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকার রান শুধু বাড়ছিল। বাংলাদেশের বাড়ছিল হতাশা। পেসার কিংবা স্পিন- কাজ হচ্ছেনা কোনো কিছুতেই। দুই ব্যাটসম্যান রান তুলছেন বিনা ক্লেশে, অনায়েসে।

সারাদিনে প্রাপ্তি এক উইকেট। তাও সেটা বোলারদের কল্যাণে নয়। উইকেটটা ছুঁড়ে দিয়ে এসেছে দক্ষিণ আফ্রিকাই। দলীয় ১৯৬ রানের মাথায় ওপেনিং জুটি। এলগারের সাথে ভুল বোঝাবুঝির মাশুল দিতে হয় মারক্রামকে। অভিষেকে শতক হাঁকানোর কীর্তি গড়তে পারেননি তিন রানের জন্য। ৯৭ রান করে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান হতাশ চিত্তে। মারক্রাম ৯৭ রানের ইনিংস খেলেন ১৫২ বলে। হাঁকিয়েছেন ১৩ টি চার।

মারক্রামের রান আউটে কিছুটা উদ্দীপ্ত হয়েছিল বাংলাদেশ। অবশ্য সেই ক্ষীণ স্বস্তি নিমিষেই মিলিয়ে দিয়েছেন  ডিন এলগার ও হাশিম আমলা। এডেইন মারক্রামের সঙ্গী এলগার অবশ্য নার্ভাস নাইন্টি থেকে শতকে গিয়েছেন নিরাপদেই। এ বছরের চতুর্থ শতক এলগারের। টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম। ১৯৮ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশন শেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। এলগারকে সঙ্গ দেন হাশিম আমলা। শেষ সেশনে ১০০ রান তুলেছেন দুজন।

দিনের শেষটাও হতাশাময় ছিল বাংলাদেশের জন্য। এলগার ও আমলা মিলে এখন পর্যন্ত অবিচ্ছিন্ন ১০২ রানের জুটি গড়েছেন। মিরাজের বলে ছক্কা মেরে অর্ধশতক পূরণ করেন আমলা। সময় যত গড়িয়েছে, রান বেড়েছে স্বাগতিকদের। বাংলাদেশের দিন কেটেছে তেজহীন ফিল্ডিং করে। প্রথম দিন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকা তুলেছে ২৯৮ রান।

হাতে এখনো রয়েছে নয় উইকেট। ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটসম্যানও থিতু হয়ে গিয়েছেন অনেক আগেই। প্রথম দিন শেষে ২৮৫ বল মোকাবেলা করে ১২৮ রান করে অপরাজিত আছেন ডিন এলগার। হাঁকিয়েছেন ৯ চার ও ২ ছক্কা। সঙ্গী হাশিম আমলা ৭ চার আর ১ ছক্কায় ১০৩ বলে রান করেছেন ৬৮।

রানের পাহাড়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে স্বাগতিকরা। প্রথম দিন শেষে স্পষ্টভাবেই তারা রয়েছে চালকের আসনে। দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশ চাইবে দ্রুত উইকেট নিয়ে খেলায় ফেরার চেষ্টা করতে। বাংলাদেশের জন্য দিনটা হতাশাময়। বোলিংয়ে পরিবর্তন, নতুন বল- সব কৌশল হয়েছে ব্যর্থ। নিখুঁত আর সাবলীল ব্যাটিং করে দক্ষিণ আফ্রিকা রান তুলেছে। সময়ের সাথে রক্ষণাত্মক হয়েছে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকা এগিয়ে গিয়েছে বড় স্কোরের দিকে। টস হারার পরেও ব্যাটিং পেয়ে ফাফ ডু প্লেসিসের খুশি হওয়ার কারণ এখন আর বুঝতে বাকি নেই।

বাংলাদেশের হয়ে মুস্তাফিজুর রহমান করেছেন ১৬ ওভার। রান দিয়েছেন ৫৪। তাসকিন আহমেদ শফিউল ইসলাম ওভার করেছেন ১৫ টি করে। দুজনই পেয়েছেন তিনটি মেইডেন। তবে কিছুটা খরুচে ছিলেন তাসকিন। শফিউল রান দিয়েছেন ৪৪, তাসকিন দিয়েছেন ৫২। তিন পেসার মিলে করেছেন ৪৬ ওভার। আর স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ একাই করেছেন ৩৬ ওভার। রান দিয়েছেন ১০১।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ দক্ষিণ আফ্রিকা ২৯৮/১ (প্রথম ইনিংস), ৯০ ওভার
ডিন এলগার ১২৮*, এইডেন মারক্রাম ৯৭, হাশিম আমলা ৬৮
মুস্তাফিজুর ০/৫৪, শফিউল ০/৪৪, তাসকিন ০/৫২, মিরাজ ০/১০১

Related Articles

বাংলাদেশের সামনে কঠিন সময়

শেষ বিকেলে স্বস্তি দিল পেসাররা

তামিম-মুমিনুলের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ

বরিশালের চাই ৩৭১, ড্রয়ের পথে চট্টগ্রাম-রাজশাহীর লড়াই

ঢাকা টেস্টঃ শেষ বিকেলের আলোতে উজ্জ্বল বাংলাদেশ