মুশফিককে নিয়ে ভাবছে বিসিবি

Share Button

Mushfiqur Rahim-Australia-SecondTest

টেস্ট দলে মুশফিকুর রহিমের ভূমিকা কম নয়। অধিনায়কত্ব, উইকেট কিপিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংয়েও নির্ভরতার প্রতীক। ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একজন। কিন্তু ব্যাটিং অর্ডারে তার জায়গাটা নির্ধারিত নয়। কখনো দেখা যায় চারে, কখনো ছয়ে। দীর্ঘক্ষণ কিপিং করেন। সেই ক্লান্তি নিয়ে টপ বা মিডল অর্ডারে ব্যাট করাটা কঠিনই বটে।

টেস্টে মুশফিকুর রহিমের ভূমিকা কি হবে তা খোদ নিজেই জানতে চেয়েছেন তিনি। জানিয়েছেন টিম ম্যানেজমেন্ট যেখানেই চাইবেন সেখানেই উজাড় করে দিবেন নিজের শতভাগ। কিপিংটা মুশফিক নিজেও পছন্দ করেন খুব। কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে কিপিং করার পর ব্যাটিংয়ে শতভাগ দেওয়ার কঠিন কাজটা কি মুশফিক চালিয়ে যাবেন নাকি মুশফিকের ব্যাটিংটা আরো ভালোভাবে পাওয়ার জন্য গ্লাভস হাতে দায়িত্ব দেওয়া হবে অন্য কাউকে?

Also Read - খুলনা টাইটান্সে আরো এক ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার

টেস্ট দলে কি হতে চলেছে মুশফিকের ভূমিকা- তা নিয়ে ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি)। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির প্রধান আকরাম খান মনে করেন দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিক। সিনিয়র ক্রিকেয়ার হিসেবে তার দলের স্বার্থই বেশি দেখতে হয় বলে মনে করেন তিনি।

তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “বোর্ড সিনিয়র খেলোয়াড়দের অনেক সম্মান করে। তাদের পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে। এটা সত্যি যে এ গরমে সারা দিন কিপিং করে চার নম্বরে ব্যাটিং করা কঠিন। ওরও দায়িত্ব আছে। সিনিয়র খেলোয়াড় ও অধিনায়ক হিসেবে দলের স্বার্থটাই ওকেই বেশি দেখতে হয়। আগেও টেস্টে আমরা তাকে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলিয়েছি। সে আমাদের দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান।”

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগেই মুশফিকের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, “উভয় পক্ষের বসে ঠিক করতে হবে। এই ভাবনাটা (মুশফিককে ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলানো) ছিল বলেই লিটনকে দলে রাখা (অস্ট্রেলিয়া সিরিজে)।দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে যেটা ভালো হয় সেটাই করা হবে।”

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক জানিয়েছেন টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তেই ঠিক হয় মুশফিকের ভূমিকা। যদিও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন যমুনা টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, মাঠে মুশফিকের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।  তিনি জানান মাশরাফির অধিনায়কত্বে এমন সমস্যা হচ্ছে না, টি-২০ তে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পাওয়া সাকিব আল হাসানও এমন সমস্যার সম্মুখীন হবে না বলে আশাবাদী তিনি।

শ্রীলঙ্কা সফরে গল টেস্টে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেছিলেন মুশফিক। বিকল্প হিসেবে ওই টেস্টে উইকেটকিপিং করেছেন লিটন দাস। এরপর আবার উইকেটের পেছনে ফেরেন মুশফিক।