মুস্তাফিজকে নিয়ে বোলিংয়ের ধার বাড়ালো রাজশাহী

0

প্লেয়ার্স ড্রাফটের আগেই জল্পনা-কল্পনা ছিল বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে। অনেকের কাছেই প্লেয়ার্স ড্রাফটের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ছিলেন তিনি। সবচেয়ে  কাটার-মাস্টার ছিলেন সব দলেরই নজরে। প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে রাজশাহী কিংসের সৌভাগ্য হলো মুস্তাফিজুর রহমানকে দলে নেওয়ার। বাঁহাতি এ পেসারের অন্তর্ভুক্তি শাণিত করবে রাজশাহী কিংসের বোলিংয় আক্রমণের ধার।

মুস্তাফিজকে দলে নিলো রাজশাহী

এবারের বিপিএলে আইকন ক্রিকেটার ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু বিপিএলের শর্ত ভাঙায় বাদ পড়তে হয় তার দল বরিশাল বার্নার্সকে। তাই প্লেয়ার্স ড্রাফটে ছিল তার নাম। প্লেয়ার্স ড্রাফটে এ+ ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান।

Also Read - অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের দলে ভিড়ালো রংপুর

প্লেয়ার্স ড্রাফটে প্রথম ক্রিকেটার পছন্দের সুযোগ পায় রাজশাহী কিংস। প্রথম সুযোগেই মুস্তাফিজকে দলে টানে তারা। ৬০ হাজার ডলার পারিশ্রমিক নির্ধারণ করা হয়েছিল মুস্তাফিজের জন্য। গত বিপিএলে খেলেননি মুস্তাফিজ। ২০১৫ সালের আসরে খেলেছিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে। এক আসর পর ফিরলেন বিপিএলে।

শনিবার দুপুর বারোটায় রাজধানীর একটি হোটেলে প্লেয়ার্স ড্রাফট অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে নয়জন ক্রিকেটারকে দলে নিয়েছে গত আসরের রানার্স-আপরা। তাদের মধ্যে সাতজন দেশি ক্রিকেটার ও দুইজন বিদেশি ক্রিকেটার।

ব্যাটসম্যানদের মধ্যে জাকির হাসান ও রনি তালুকদারকে দলে নিয়েছে রাজশাহী কিংস। গত আসরে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে খেলেছিলেন জাকির হাসান। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি উইকেটরক্ষকের দায়িত্বও সামাল দেওয়ার সামর্থ্য রয়েছে এ তরুণ ক্রিকেটারের। দলের হয়ে ইনিংস সূচনায় দেখা যেতে পারে রনি তালুকদারকে। অলরাউন্ডার নিহাদ-উজ-জামানকেও দলে টেনেছে রাজশাহী।

দুই বিদেশী ক্রিকেটারের মধ্যে দুইজনই পাকিস্তানের। এরা হলেন লেগ স্পিনার উসামা মীর ও রেজা আলি। এ দুইজনের কারোই এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা হয়নি।

প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে বাছাই করা রাজশাহী কিংসের ক্রিকেটাররাঃ 

বাংলাদেশের ক্রিকেটারঃ মুস্তাফিজুর রহমান, জাকির হাসান, নিহাদ-উজ-জামান, কাজী অনিক, রনি তালুকদার, নাঈম ইসলাম জুনিয়র ও হোসেন আলি।

বিদেশী ক্রিকেটারঃ উসামা মীর এবং রেজা আলি।