শিরোপা ধরে রাখতে চায় ঢাকা

0

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এর পঞ্চম আসরের পর্দা ওঠা এখন সময়ের ব্যাপার। সবগুলো দলই গুছিয়ে নিয়েছে নিজেদের স্কোয়াড। ২রা নভেম্বর সিলেটে শুরু হবে ২০ ওভারের এই জমজমাট লড়াই।

সাকিব, মোসাদ্দেক ও শহীদকে রেখে দিতে চায় ঢাকা

সব ফ্র্যাঞ্জাইজির মতই দল গোছানো শেষ ঢাকা ডায়নামাইটস দলের। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা দলে ভিড়িয়েছেন নামীদামি সব বিদেশি খেলোয়াড়কে। শুধু নাম নয় পারফরম্যান্সেও এদের রয়েছে সুনাম। বিদেশিদের মধ্যে রয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারা , শেন ওয়াটসন , শহিদ আফ্রিদি , মোহাম্মদ আমির , কেভন কুপার, সুনিল নারিন এর মত পরীক্ষিত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটাররা।

Also Read - সেরা পাঁচে মুস্তাফিজ , অপরিবর্তিত সাকিব

আইকন ক্যাটাগরিতে তাদের রয়েছে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান আর দেশি ক্যাটাগরিতে আগের আসর থেকে তারা রেখে দিয়েছে বিধ্বংসী ওপেনার মেহেদি মারুফ , তরুন অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ শহীদকে।

প্লেয়ারস ড্রাফটেও বেশকিছু ভালো প্লেয়ার সংগ্রহ করেছে ঢাকা ডায়নামাইটস। দেশিদের মধ্যে রয়েছেন উইকেট কিপার জহুরুল ইসলাম অমি , পেসার আবু হায়দার রনি , নাদিফ চৌধুরি, বাঁহাতি স্পিনার সাকলাইন সজীবসহ আরও কয়েকজন। এছাড়া বিদেশি কোটা থেকে তারা নিয়েছে ইংল্যান্ড দলের জো ডেনলি ও জিম্বাবুয়ে দলের প্লেয়ার আকিল হোসেনকে।

সব মিলিয়ে অসাধারণ ব্যালেন্সড একটি দল। তবে এত বিদেশী কেন এমন একটা প্রশ্ন থেকেই যায়। উত্তরটা দিলেন বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার ও ঢাকা ডায়নামাইটস এর হেড কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি বলেন,‘আমরা আবারো চ্যাম্পিয়ন হতে চাই। যখন আপনি শিরোপা জেতার চিন্তায় দল সাজাবেন, তখন কিছু বাড়তি অপশন হাতে রাখতেই হবে। যে কোন কারনে হঠাৎ একজন বা দুজন ভাল পারফরমার মিস হয়ে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে তো সেকেন্ড অপশন রাখা খুব জরুরি। বড় প্লেয়ার মিস হলে সেকেন্ড অপশন রাখতে হবে। আমরা যদি কোনো কারনে কাউকে মিস করি, তাহলে যাতে ব্যাকআপ পারফরমার থাকে সেজন্যই এতগুলো বিদেশি নিয়েছি।’

এছাড়া প্রধান নির্বাহী ওবায়েদ নিজামও বললেন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কথা।  তার মতে, ‘চ্যাম্পিয়ন টিম করতে হলে ভাল প্লেয়ার নিতেই হবে। আমরা চেষ্টা করেছি একঝাঁক ভাল পারফরমারকে দলে নিতে। আমারা গতবার লোকাল প্লেয়ারদেও কম পেয়েছি। তারপরও আমরা খুব ভাল প্লেয়ার পেয়েছি। যাদের টার্গেট করেছিলাম তাদের। সব মিলে যে লাইনআপ হয়েছে তা নিয়ে আমরা আশাবাদী।’

  • রাইয়ান কবির, প্রতিবেদক , বিডিক্রিকটাইম