অনন্য উচ্চতায় সাকিব আল হাসান

Share Button

অনন্য এক মাইলফলক অর্জনের দুয়ারে থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কিম্বার্লির ডায়মন্ড ওভালে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নেমেছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। প্রত্যাশামত সিরিজের প্রথম ম্যাচেই কাঙ্ক্ষিত সেই মাইলফলক স্পর্শ করেছেন বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।

দ্বিতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ৫ হাজার রান করলেন সাকিব।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ডায়মন্ড ওভালে আজ ৪৫ বলের মোকাবেলায় ২৯ রান করেছেন সাকিব। আর এতেই দ্বিতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পাঁচ হাজার রান সংগ্রাহকের তালিকায় প্রবেশ করেছেন তিনি।

Also Read - কিম্বার্লিতে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

শুধু তাই নয় একই সাথে ক্রিকেট ইতিহাসের পঞ্চম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে ৫,০০০ রান করার সাথে ২০০ উইকেট নেওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন তিনি তাও আবার দ্রুততম সময়ে। সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি জ্যাক ক্যালিস, শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি সনাথ জয়াসুরিয়া, পাকিস্তানের দুই ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি ও আব্দুল রাজ্জাকের পর এই এলিট ক্লাবে প্রবেশ করেছেন বাংলাদেশি এই অলরাউন্ডার।

একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আগেই ২০০ উইকেট শিকারের মাইলফলক স্পর্শ করেছিলেন তিনি। এবার পাঁচ হাজারি রান সংগ্রাহকদের ক্লাবে প্রবেশ করতে সময় নিলেন মাত্র ১৭৮ ম্যাচ। আর এর মধ্য দিয়েই দ্রুততম সময়ের মধ্যে পাঁচ হাজার রান ও ২০০ উইকেট শিকারের রেকর্ডটি নিজের দখলে নিলেন ৩০-বছর-বয়সী এই অলরাউন্ডার।


উল্লেখ্য, সাকিবের আগে এই এলিট ক্লাবে নাম লেখানো ক্রিকেটারদের মধ্যে জ্যাক ক্যালিস ২২১ ম্যাচ খেলে সর্বাধিক ৭,৭০৩ রান করার পাশাপাশি নিয়েছিলেন ২০০ উইকেট। তারপরেই রয়েছেন লঙ্কান ক্রিকেটার জয়াসুরিয়া। ২৩৫ ম্যাচ খেলে তাঁর সংগ্রহে ৬৬০১ রানের পাশাপাশি ২০০ উইকেট। পাকিস্তানের আফ্রিদি রয়েছেন তালিকার তৃতীয় স্থানে। ২৩৯ ম্যাচ খেলা আফ্রিদি ২০১ উইকেটের সাথে ওয়ানডে ক্যারিয়ারে রান করেছিলেন ৫০৭১। এলিট ক্লাবে সাকিব আল হাসানের ঠিক উপরের অবস্থানে থাকা আব্দুল রাজ্জাক সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলে ৫০৪০ রানের সাথে তাঁর থলিতে রয়েছে ২৬৩ উইকেট।

ওয়ানডেতে ৫,০০০ রান আর ২০০ উইকেট নেওয়া এলিট ক্লাবের সদস্যদের মধ্যে একমাত্র সাকিবই বর্তমানে ক্রিকেট খেলছেন তাই নিকট ভবিষ্যতে বাকিদের ছাড়িয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ থাকছে বিশ্বসেরা বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার সামনে।