অল্পের জন্য ভাঙল না লজ্জার রেকর্ড

0

প্রথম টেস্টে টস জিতে মুশফিকুর রহিমের ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত কতটা আত্মঘাতী ছিল, তা নিশ্চয়ই পাঠকদের নতুন করে বলতে হবে না। তবে অতীত ঝেড়ে ফেলে ক্রিকেট-অঙ্গনের সব মনোযোগ এখন দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের চলমান দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে, ব্লুমফন্টেইন টেস্টে।

south africa

মুশফিকের টস-ভাগ্য নিয়ে এতদিন সবচেয়ে বেশি ভাবনার বিষয় ছিল- তিনি টস জিততে পারেন না। দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে সেই ‘কুফা’ কেটেছে, মুশফিক টস জিতেছেন দ্বিতীয় টেস্টেও। তবে এবারও সিদ্ধান্ত সেই একই, প্রথমে ফিল্ডিং। আগের ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক ছিল, সেটি অবশ্য বলার সুযোগ নেই; অন্তত পিচ দেখে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার রান পাহাড় ঠিকই মুশফিকুর রহিমকে ফের ফেলে দিচ্ছে হাজারটা প্রশ্নের মুখে।

Also Read - ইমরুলের ফেরার প্রত্যাশায় মুশফিক

ব্লুমফন্টেইন টেস্টের উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশের ম্যাড়মেড়ে বোলিংয়ের সামনে দেদারসে রান হাঁকিয়েছেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা। তাতে স্বস্তির জায়গা না থাকলেও তা খুঁজে নিতে হচ্ছে ‘জোর করে’! আর একটু হলেই টেস্টের প্রথম দিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাটিং করা দলের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটাই গড়ে ফেলত দক্ষিণ আফ্রিকা। টাইগাররা সেটি থেকে তো অন্তত বাঁচল!

২০০৫ সালে কলম্বো টেস্টের প্রথম দিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৭ উইকেটে ৪৪৯ রান সংগ্রহ করেছিল শ্রীলঙ্কা। এটিই এখন পর্যন্ত আছে রেকর্ডের পাতার প্রথম সারিতে। শুক্রবার দক্ষিণ আফ্রিকার ৩ উইকেটে করা ৪২৮ রান আছে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে।

টেস্টের প্রথম দিনে রান করার দিক থেকে এটি দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ২০০৩ সালে কেপটাউন টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩ উইকেটে ৪৪৫ রান সংগ্রহ করেছিল স্বাগতিকরা। এটাই একদিনে দলটির সবচেয়ে বেশি রান করার সেরা কীর্তি।

এই হিসেবনিকেশের বিশ্বরেকর্ড অবশ্য আরও দুর্দান্ত, সেই সাথে পুরনোও। ১৯১০ সালে এই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া প্রথম দিনে সংগ্রহ করেছিল ৪৯৪ রান। আর একটু হলে ঐদিন ৫০০ রানই করে ফেলত অজিরা!

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম