SCORE

Trending Now

‘কম টি-টোয়েন্টি খেলা অজুহাত নয়’

Share Button

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের প্রচলিত তিন ফরম্যাটের মধ্যে সর্বাধুনিক টি-২০ ফরম্যাটই সবচেয়ে কম খেলা হয়। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সেটি কমে যায় আরও। ফলে হঠাৎ কোনো সিরিজে খেলতে গেলে টাইগারদের একটু হিমশিমই খেতে হয়।

shakib imrul

শনিবার টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসানের কণ্ঠে উঠে আসে এসব বিষয়ই। বিরতি দিয়ে দিয়ে টি-২০ ক্রিকেটে ভালো খেলা কঠিন বলে অভিমত তার।

Also Read - মাশরাফির নেতৃত্বে খেলতে পেরে খুশি বোপারা

সাকিব বলেন, ‘হঠাৎ করে যখন খেলবেন, তখন প্রথম ম্যাচে এমনিতেই প্রথম মনে হবে। তারপর আস্তে আস্তে মাথা খোলা শুরু হয়। খুলতে খুলতে আবার ছয় মাসের বিরতি চলে আসে। এটা কঠিন। কোনো দেশই তো একটা-দুইটার বেশি টি-টোয়েন্টি খেলে না। হাতেগোনা কয়েকটা দল আছে, যারা হয়তো তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে। অবশ্যই যত বেশি খেলা হবে, তত বেশি ভালো হবে। কিন্তু এগুলো তো আর অজুহাতের মধ্যে পড়ে না। যখনই খেলব, চেষ্টা থাকবে যেন ভালো করতে পারি। ম্যাচটা জিততে পারি।’

প্রথম টি-২০’তে লড়াই করেও ২০ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। ইনিংসে বাংলাদেশ খেলেছিল ৪৫টি ডট বল, যা ফরম্যাটের বিচারে অনেক বেশি। দ্বিতীয় টি-২০’তে অধিক ডট বল খেলার মানসিকতা বর্জন করবেন ব্যাটসম্যানরা, সেটিই ফুটে উঠল সাকিবের কথায়।

টি-২০ ফরম্যাটে বাংলাদেশের অধিনায়ক বলেন, ‘এগুলো নিয়ে আলোচনা হয়। সাধারণত যেটা হয় যে, টি-টোয়েন্টিতে ডট বল ৩০ থেকে ৪০-এর ভেতরে থাকে। তাই ৩০ থেকে ৩৫ এর ভেতরে যদি ডট বলের সংখ্যা রাখা যায় তাহলে আমার কাছে খুবই ভালো মনে হয়। তাই চেষ্টা থাকবে যত কম ডট বল খেলা যায়। বিশেষ করে মিডল ওভারগুলোতে, এমনকি প্রথম ৬ ওভারেও। বাউন্ডারির সাথে সাথে যদি প্রান্ত বদল করে খেলা যায় তাহলে ব্যাটসম্যানের ওপর থেকে চাপটাও কমে যায়। একই সময়ে রানটাও বাড়তে থাকে।’

প্রথম ম্যাচে আরেকটু সতর্ক হয়ে খেললে জয় পাওয়া সম্ভব ছিল। সাকিব বলেন, ‘যদি আরেকটু দায়িত্ব নিয়ে খেলতাম, তাহলে আরও বেশি ম্যাচের কাছে যেতাম বা জেতাও সম্ভব ছিল। ওই পরিস্থিতিতে আমাদের দরকার ছিল, চার-পাঁচ ওভার উইকেট না হারিয়ে রান করার। রান করতে গেলে তো ঝুঁকি নিতেই হয়। তাই ওখানে আসলে সমস্যাটা তৈরি হয় বলে আমার মনে হয়। কিন্তু এই দুইটার একটা ভারসাম্য আনা জরুরি। যেহেতু টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট, আপনার ঝুঁকিও নিতে হবে, রানও করতে হবে, আবার উইকেটও থাকতে হবে। সব কিছুর একটা ভারসাম্য যদি থাকে, আমার কাছে মনে হয় ভালো রান করা সম্ভব।’

আরও পড়ুনঃ মাশরাফির নেতৃত্বে খেলতে পেরে খুশি বোপারা

Related Articles

চারদিনের অভিষেক টেস্টের জিম্বাবুয়ে দল ঘোষণা

হাথুরুসিংহের পদত্যাগের ভাবনা টেরও পাননি মাশরাফি

ফর্মে ফিরেও অখুশি সৌম্য

পাঁচ ছক্কার কথা ভুলে গিয়েছেন সাইফউদ্দিন

বিপিএল দিয়ে দুঃসময় কাটানোর প্রত্যাশায় মাশরাফি