মাবিয়ার সাফল্যে কেঁদেছিলেন মাশরাফিও!

Share Button

দক্ষিণ এশিয়ান গেমস, ভারতের গৌহাটি। ৬৩ কেজি ওজন শ্রেণিতে শক্তিশালী সব প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে দিয়ে সোনা জিতেছেন বাংলাদেশেরই এক মেয়ে। তিনি মাবিয়া আক্তার সীমান্ত।

যাত্রা শুরু দেশের প্রথম স্পোর্টস রেডিওর
রেডিও এজ ৯৫.৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাশরাফি ও মাবিয়া। উপস্থিত ছিলেন ফুটবলার মামুনুল ও রেডিও এজ’এর কর্মকর্তারা।

মাবিয়ার গলায় সোনার মেডেল পরিয়ে দেওয়ার সময় বাজছিল জাতীয় সংগীত। আর তখন, অঝোর ধারায় কেঁদে চলেছেন মাবিয়া। এ যে খুশির কান্না!

মাবিয়ার সেই কান্নার দৃশ্য ছুঁয়ে গিয়েছিল দেশবাসীর মন। ঐ মুহূর্ত দেখে কাঁদেননি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সহায়তায় দ্রুত ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে সবার কাছে। দেশের নায়ক বনে যান মাবিয়া।

Also Read - 'হাথুরুসিংহেকে ক্ষমতা দেওয়াই বুমেরাং হচ্ছে'

সোমবার রাজধানীর গুলশানে দেশের প্রথম স্পোর্টস রেডিও স্টেশন রেডিও এজ ৯৫.৬-এর উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। এ সময় মাবিয়া আক্তার সীমান্তর সাথে উপস্থিত ছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও ফুটবলার মামুনুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানের আলোচনায় মাশরাফি জানান, মাবিয়ার সাফল্যে সেদিন কেঁদেছিলেন তিনিও!

মাশরাফি বলেন, এখনও স্পষ্ট মনে আছে তখন আমরা চট্টগ্রামে ক্যাম্পে যাচ্ছি ফেসবুক অন করে দেখি আপনি (মাবিয়া) কাঁদছেন প্রথমে বুঝতে পারিনি পুরোটা জানার পরগাড়ির গ্লাসগুলো বন্ধ ছিল অন্ধকার মনের অজান্তে আমিও কাঁদছিলাম

মাবিয়াদের খেলাও মাশরাফি দেখেন- এমনটা জানিয়ে দেশের ক্রিকেটের সর্বকালের অন্যতম সেরা অধিনায়ক বলেন, এমন না যে আমি শুধু ক্রিকেট দেখি আমি কিন্তু আপনাদের খেলাও দেখি এবং মনে প্রাণে চাই আপনারা জেতেন আমিও আপনাদের ফলো করি অন্যান্য খেলাও ফলো করি হকি খেলা (এশিয়া কাপ) হলো, সাউথ আফ্রিকায় ছিলাম যদিও ওভাবে দেখা হয়নি তবে রেজাল্ট ফলো করেছি আমি মনেপ্রাণে চাই আপনারা ভালো করেনএই জন্য বারবার বলছি একটা স্পোর্টস টিভি চ্যানেল যদি আসে, আরও বেশি ফলো করতে পারব রেডিওর মাধ্যমে শুরু হলো, সামনে হয়ত টিভি চ্যানেল চলে আসবে

আরও পড়ুনঃ ফাইনালের বিকল্প ভাবছে না রাজশাহী