মুশফিকের ফিল্ডিং পজিশনও ঠিক করেন হাথুরুসিংহে

0

পচেফস্ট্রুমের পর ব্লুমফন্টেইনেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে টস জিতেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। নিয়েছিলেন একই সিদ্ধান্ত বোলিংয়ের। প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় টেস্টেও এই সিদ্ধান্ত কাজে লাগেনি। প্রথম দিনের প্রথম সেশনে একটি উইকেটও নিতে পারেননি বাংলাদেশের বোলাররা। বিনা উইকেটে ১২৬ রান তোলে দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনার মারক্রাম ও এলগার। দিনশেষে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোরবোর্ডে রান ৪২৮, উইকেটের পতন মাত্র ৩ টি। তাই স্বভাবতই আবারো হচ্ছে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকের সমালোচনা। পাশাপাশি তাঁর ফিল্ডিং পজিশন নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন। প্রথম দিনের সংবাদ সম্মেলনে এসে সব প্রশ্নেরই উত্তর দিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

মুশফিক জানিয়েছেন টিম ম্যানেজমেন্টের চাওয়া অনুযায়ীই ফিল্ডিং সাজান তিনি এবং কোচের পরামর্শেই মাঠের বাইরে নিজেও দাঁড়ান ফিল্ডিংয়ে। এই প্রসঙ্গে মুশফিক সব খোলাসা করে বলেন, “আমি একটা ব্যাপার পরিষ্কার করি, আমি ফিল্ডার হিসেবে খুব একটা ভালো না। আমার কোচরা চেয়েছে আমি যেন বাইরে বাইরে ফিল্ডিং করি। কারণ, আমি সামনে থাকলে আমার কাছ থেকে নাকি রান হয়ে যায় বা আমার হাতে ক্যাচ-ট্যাচ আসলে নাকি (ধরার) চান্স থাকে না। টিম ম্যানেজমেন্ট যেটা বলবে, সেটা তো আপনার করতে হবে। আমি চেষ্টা করেছি, বেশিরভাগ সময় বাইরে বাইরে থাকার। যখন ভেতরে ছিলাম তখন চেষ্টা করেছি, বোলারদের সঙ্গে কথা বলার।’

Also Read - অল্পের জন্য ভাঙল না লজ্জার রেকর্ড

পাশাপাশি বাংলাদেশ দলের ব্যর্থতার দায়ভার নিজের ঘাড়ে নিয়েছেন বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়ক। তিনি বলেন, “অবশ্যই এটা আমার ব্যক্তিগত ব্যর্থতা। আমি হয়তো দলকে সেভাবে উৎসাহ দিতে পারছি না বা বোলারদের সেভাবে গাইড করতে পারছি না। বোলাররা চেষ্টা করছে হয়তোবা, হয়নি। এটা আমার ব্যর্থতা।”

তবে দ্বিতীয় দিনে সব ভুলে ম্যাচে ফেরার কথা জানিয়েছেন মুশফিক “যে দুই জন ব্যাটসম্যান এখন খেলছে, তাদের যদি কাল দ্রুত ফেরাতে পারি তাহলে চেষ্টা থাকবে ওদের একশ-দেড়শ রানের মধ্যে অলআউট করার।”