SCORE

Trending Now

যুবাদের গড়ে তুলতে বাংলাদেশে মানহাস

Share Button

জাতীয় দলের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ অনেকাংশেই নির্ভর করে বয়সভিত্তিক দলের উপর, বিশেষ করে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের উপর। বাংলাদেশের মতো তারুণ্য নির্ভর দলের ক্ষেত্রে ব্যাপারটি একটু বেশিই ঘটে। প্রতি বছরই বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার জাতীয় দলের সুযোগ পান অনূর্ধ্ব-১৯ দল থেকে উঠে এসে। অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে তাই সবসময় একটু বেশিই গুরুত্ব দিয়ে থাকে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড- বিসিবি। সেই ধারাবাহিকতায় এবার যুবাদের ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ পেয়ে বাংলাদেশে পা রেখেছেন ভারতীয় মিথুন মানহাস।

যুবাদের গড়ে তুলতে বাংলাদেশে মানহাস

দলের সাথে যোগ দেওয়ার পর বৃহস্পতিবার মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমীতে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। সংবাদ সম্মেলনের সময় উঠে আসে অনূর্ধ্ব-১৯ দল নিয়ে মিথুন মানহাসের নানা ভাবনার কথা।

Also Read - দ্বিতীয় ওয়ানডের মাঠ নিয়ে পাপনের অসন্তুষ্টি

অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে খেলোয়াড়দের নিজেকে গড়ার সুযোগ থাকে। আর তাই মূলত যুবাদের ব্যাটিং ও মানসিকতা দক্ষতার উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করবেন জানিয়ে মানহাস বলেন, ‘আমি ওদের ব্যাটিংয়ে উন্নতির লক্ষ্যে কাজ করবো। পাশাপাশি ভালো ক্রিকেটার হিসেবে গড়ে তুলতে ওদের মানসিক দক্ষতা বৃদ্ধিতেও সাহায্য করবো। আজ যেসব ব্যাটসম্যানরা এখানে খেলছে আগামীতে আমি ওদের বাংলাদেশ জাতীয় দলে দেখতে চাই। তাছাড়া আমি যদি ওদের আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সর্বোচ্চ পর্যায়ে দেখতে পাই, তাহলে আমার চাইতে খুশি বোধ হয় কেউই হবে না।’

বাংলাদেশে অবশ্য এটি মানহাসের প্রথম সফর নয়। এর আগে খেলোয়াড়ের ভূমিকায় ঢাকা আবাহনী ও ঢাকা মোহামেডানের মতো দেশের শীর্ষ দুই ক্লাবের অংশ ছিলেন, খেলেছিলেন প্রাইম দোলেশ্বরেও। ঢাকা শহর তাই মানহাসের কাছে মোটেও অপরিচিত নয়। এখানে অনেক পরিচিত রয়েছেন তাঁর।

আগে থেকে চেনাজানা কোথাও কাজ করা যে কারও জন্যই স্বস্তির বিষয়। এই বিষয়টিকে ‘বাড়তি সুবিধা’ আখ্যা দিয়ে হাস্যজ্বল কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, অবশ্যই এটা আমার জন্য বাড়তি সুবিধা। কেননা, আমি কয়েকটি মৌসুম আবাহনী, মোহামেডানের হয়ে খেলেছি। তাই এখানকার অনেকেই আমার জানাশোনা। তাছাড়া আরেকটি ভালো ব্যাপার হলো, ছেলেরা হিন্দি বোঝে। আমার মতো ওরাও হিন্দিতে কথা বলতে পারে।’

মানহাসের সঙ্গে বিসিবি চুক্তি করেছে চলতি মাস থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত। সেই হিসেবে আর তিন মাস পরই অনুষ্ঠিতব্য যুব বিশ্বকাপ মানহাসের প্রথম মিশন। ২০১৮ সালের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে আগামী অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আসর। মানহাস জানান এ নিয়ে তাঁর ভাবনা ও প্রস্তুতির কথা, ‘দেখুন, আপনি যখন লড়াইয়ে নামবেন তখন কোনো কিছুই হালকাভাবে নেয়া ঠিক হবে না। কেননা মাঠের কাজটি কিন্তু সবসময়ই কঠিন। যদিও আমরা নিয়মিতই ম্যাচের মধ্যে থাকবো। তাছাড়া উন্নতি হলো একটি চলমান প্রক্রিয়া।’

আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কাছে সম্প্রতি পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৩-১ ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল, যা বাংলাদেশের জন্য ব্যর্থতাই। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সাম্প্রতিক ব্যর্থতায় স্বভাবতই গণমাধ্যমে হয়েছে দলের খেলোয়াড়দের সমালোচনা। তবে মানহাস সংবাদমাধ্যমকে অনুরোধ করলেন দুঃসময়ে তাদের সমর্থন জোগানোর। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটে এমন তিনটি খারাপ দিন আসতেই পারে। এই তিনটি ম্যাচ দিয়ে ওদের যোগ্যতা পরিমাপ করা ঠিক হবে না। আপনাদের প্রতি আমার অনুরোধ, ওদের সমর্থন দিন। ওরা এখনও ছোট। আপনারা যদি ওদের ওপর চাপ তৈরি করেন তা পুরো দলের ওপরই নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।’

৩৮ বছর বয়সী ভারতের প্রতিভাবান এই সাবেক ব্যাটসম্যান ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছেন বেশ দাপটের সাথে। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ফিল্ডিংয়েও ছিল বেশ ভালো দক্ষতা। চলতি বছর খেলোয়াড় হিসেবে ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন তিনি। ভালো খেলেও জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়ায় কিছুটা অভিমানও হয়ত কাজ করে তাঁর!

দীর্ঘ খেলোয়াড়ি জীবনে মানহাস তার পরিসংখ্যানকে ক্রমশ সমৃদ্ধ করেছেন। ১৯৯৭-৯৮ মৌসুমে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। একই বছর লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে অভিষেকের পর এই পর্যায়ের শেষ ম্যাচটি খেলেছেন গত বছর ফতুল্লায় মোহামেডানের জার্সি গায়ে ক্রিকেট কোচিং স্কুলের বিপক্ষে মাঠে নেমে। টি-২০’তে মানহাসের অভিষেক ঘটে অবশ্য অনেক পরে, ২০০৭ সালে।

২০ বছরের সুদীর্ঘ ক্রিকেট জীবনে মিথুন মানহাস ১৫৭টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। ২৪৪ ইনিংস খেলে তার মোট রান সংগ্রহ ৯৭১৪, অল্পের জন্য দশ হাজার রানের ক্লাবে অন্তর্ভুক্ত করাতে পারেননি নিজের নাম। এই ফরম্যাটে তার রয়েছে ২৭টি শতক ও ৪৯টি অর্ধ-শতক। ১৩০টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচের ক্যারিয়ারে ৪১২৬ রান করেছেন মানহাস, যেখানে রয়েছে ৫টি সেঞ্চুরি ও ২৬টি হাফ-সেঞ্চুরি। অবশ্য খুব একটা সমৃদ্ধ নয় টি-২০ ক্যারিয়ার। ৯১টি ঘরোয়া টি-২০ ম্যাচ খেলে তার রান মাত্র ১১৭০। নেই কোনো সেঞ্চুরি, ফিফটি আছে মাত্র একটি। তবে অবাক করা ব্যাপার, আনকোরা বোলার হলেও মানহাসের ঝুলিতে রয়েছে ৭০টি উইকেট!

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম

Related Articles

লিডিং রানস্কোরার হতে চান পিনাক

১ ডিসেম্বর শুরু হচ্ছে যুবাদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি

এশিয়া জয় করল ক্ষুদে আফগানরা

২ রানের পরাজয়ে ফাইনাল-স্বপ্ন শেষ যুবাদের

ভারতকে রুখে দিলো নেপালের যুবারা