সব ধরণের ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন নেহরা

0

লম্বা রানআপে দৌড়ে উইকেটের কাছে এসে একটু কমলো গতি, এরপর আলতো করে ছেড়ে দিলেন বল। সেই ট্রেডমার্ক ডেলিভারি কত বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানদের যে বেকায়দায় ফেলেছে তার ইয়ত্তা নেই। তবে আগামী ১ নভেম্বরের পর থেকে আর দেখা যাবে না ট্রেডমার্ক সেই বোলিং। ঐদিনই ভারতের জার্সি গায়ে নিজের শেষ ম্যাচ খেলবেন প্রখ্যাত ক্রিকেটার আশিস নেহরা।

nehra

১ নভেম্বর ফিরোজ শাহ কোটলায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-২০ ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারত। ফিরোজ শাহ কোটলা নেহরার ঘরের মাঠ। ঐদিনই তিনি নামবেন ভারতের হয়ে নিজের শেষ ম্যাচ খেলতে। জাতীয় দল তো বটেই, একইসাথে সব ধরণের ক্রিকেট থেকেও এদিন খেলোয়াড় হিসেবে অবসর নিবেন নেহরা।

Also Read - অজিদের বাসে ঢিলঃ দুই ভারতীয় আটক

২০১৬ সাল থেকে ভারতের হয়ে শুধু টি-২০-ই খেলে যাচ্ছেন তিনি। নেহরা দলে আছেন চলমান ভারত-অস্ট্রেলিয়া তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজেও। যদিও সিরিজের দুটি ম্যাচ চলে গেলেও কোনো ম্যাচেই একাদশে জায়গা পাননি তিনি। হয়ত এই অভিমান থেকেই অকস্মাৎ অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন ৩৮ বছর বয়সী পেসার। কেননা কয়েকদিন আগেই নেহরা জানিয়েছিলেন, আরও দুই বছর খেলে এরপরই অবসর নিতে চান।

১৯৯৯ সালে ভারতের জার্সি গায়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আবির্ভাব ঘটে নেহরার। এখনও খেলে যাচ্ছেন- নব্বই দশকে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা এমন হাতেগোনা কয়েকজন ক্রিকেটারের একজন নেহরা। বিংশ শতাব্দীর শেষ বছরের আগের বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় তার। যদিও টেস্টের চেয়ে নেহরা বেশি সফল ছিলেন ওয়ানডেতে, যেখানে তার অভিষেক হয় ২০০১ সালে। ২০০৩ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার ২৩ রানে ৬ উইকেট দখল এখনও আইসিসির আসরটিতে ভারতের সেরা বোলিং ফিগার।

২০১১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে শেষবারের মতো ওয়ানডে খেলেছিলেন এই ফরম্যাটের স্পেশালিষ্ট ক্রিকেটার নেহরা। বাকি জীবনে নিশ্চিতভাবেই আর কোনো ওয়ানডে ম্যাচ খেলা হচ্ছে না তার। নেহরা জানিয়েছেন, সব ধরণের ক্রিকেট থেকেই স্থায়ীভাবে দূরে সরে যাচ্ছেন তিনি। এমনকি খেলবেন না নিজ দেশের জনপ্রিয় ঘরোয়া টি-২০ লিগ আইপিএলেও।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম