SCORE

Breaking News

সাকিবদের শেষ সুযোগ

Share Button

দীর্ঘ চার সপ্তাহের বাজে অভিজ্ঞতার পর সদ্য সমাপ্ত প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরা টাইগারদের কিছুটা লড়াকু ভূমিকায় দেখা গেছে। যদিও ম্যাচটিতে ২০ রানের পরাজয় বরণ করে বাংলাদেশ। কিন্তু মানসিকতায় একটা পরিবর্তন ছিল লক্ষণীয়। সেই ম্যাচে পাওয়া আত্মবিশ্বাস নিয়ে এবার শেষ ম্যাচে জয় নিয়ে দেশে ফেরার মিশনে সাকিবরা। এই ম্যাচে জয় হতে পারে দীর্ঘ যন্ত্রণা মুক্তির স্বস্তি। ফলে একটা জয় এখন ভীষণ প্রয়োজন।

shakib imrul

বেশ প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ প্রথম ম্যাচে টাইগারদের মূলত ভুগিয়েছে ডট বল। মাত্র ২০ ওভারের এক ইনিংসে যদি ৪৫টি ডট বল হয় তাহলে সেটা ভাবনার বিষয় বই কি! অধিনায়ক সাকিবও তাই মনে করেন। অপরদিকে বাউন্ডারির সংখ্যায়ও এগিয়ে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা যেখানে ২০টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা হাঁকিয়েছেন ২১টি। অনভিজ্ঞ বোলিং আক্রমণ নিয়েও প্রোটিয়াদের বোলিং বেশ নিয়ন্ত্রিতই ছিল। কিন্তু, বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে রুবেল-মিরাজ ছাড়া আর কেউ প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেন নি।

Also Read - আইপিএলের গুরু-শিষ্যের সাক্ষাৎ বিপিএলে

দক্ষিণ আফ্রিকার আক্রমণাত্মক ব্যাটিং লাইনআপকে ২০০-এর নিচে বেঁধে রাখায় বড় ভূমিকা ছিল মেহেদী হাসান মিরাজের। বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ানক ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্সকে যেভাবে হাত খুলে খেলা থেকে থামিয়ে রেখেছিলেন এবং যেভাবে আউট করেছেন সেটা আশা জাগানিয়া বটে। এক্ষেত্রে মিরাজ ছাড়াও বাকি বোলারদের আরও ভাল কিছু করে দেখাতে হবে।

তবে, মূল কাজটা করতে হবে ব্যাটসম্যানদের। টি-টোয়েন্টিতে আগ্রাসী ব্যাটিং ছাড়া জয় সম্ভব নয়। সৌম্য আগের ম্যাচে বেশ ভাল খেলেছেন। এই ম্যাচেও তার উপর ভাল শুরু নির্ভর করছে। দলে সাকিব-সাব্বিরের মতো আগ্রাসী ব্যাটসম্যান আছেন। মুশফিক-মাহমুদুল্লাহও হাত খুলে খেলতে পারেন। সিনিয়রদের আরও দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করতে হবে। নয়তো দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে খালি হাতে ফিরতে হবে।

এই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের মধ্যে নজর কাঁড়তে পারেন আগের ম্যাচেই অভিষিক্ত প্রোটিয়া বোলার রবি ফ্রাইলিঙ্ক। ৩৩ বছর বয়সে অভিষিক্ত হওয়া এই পেসার আগের ম্যাচে দারুণ বোলিং করে সাকিবের উইকেট সহ ২ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন। দ্বিতীয় ম্যাচেও তেমন কিছুই করতে চাইবেন তিনি।

সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী দক্ষিণ আফ্রিকা দলে কোন পরিবর্তন আসছে না। জয়ী দলটিকে এই ম্যাচে অপরিবর্তিত রাখা হতে পারে। তবে, এই ম্যাচে উইকেটের পিছনে কুইন্টন ডি ককের স্থলে মাঙ্গালিসো মোসেলে, ফাস্ট বোলার ডোয়াইন প্রোটিয়াস এবং বাঁহাতি রিষ্ট স্পিনার তাবরাইজ শামসির (অ্যারোন ফাঙ্গিসোর স্থলে) একাদশে ঢোকার সম্ভাবনা আছে।

বাংলাদেশকে খালি হাতেই ফেরত পাঠাতে চান বেহারডিন

অপরদিকে বাংলাদেশ একাদশে পরিবর্তন আসতে পারে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গত শুক্রবার এমন ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। দলে বাড়তি একজন ব্যাটসম্যানের হিসেবে নাসির বা লিটন দাসের অন্তর্ভুক্তির সম্ভাবনা আছে। সেক্ষেত্রে তাসকিন বা শফিউলের মধ্যে যেকোন একজন বাদ পড়তে পারেন। পেসারদের ব্যর্থতাই হয়তো এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার পিছনে কারণ হতে পারে।

দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে যে পিচে সফরের প্রথম টেস্ট অনুষ্ঠিত হয়েছিল, সেই পিচে রান বন্যা হয়েছিল। তবে পিচে টার্নও আছে। সেই একইরকম পিচে হবে আজকের খেলা। এই মাঠের অভিষেক টি-টোয়েন্টি আজ। আর টেস্ট সিরিজে না থাকায় সাকিবের কাছেও এই পিচ নতুন।

তবে সাকিবের কণ্ঠে আত্মবিশ্বাসের ছোঁয়া আছে, ‘খেলা শুরু না হওয়া পর্যন্ত বলা একদমই মুশকিল। তবে গ্রাউন্ডটা বড় আছে। সবাই বলছে যে, উইকেট একটু মন্থরই হয়। তবে এটা দেখে একটু ভিন্ন মনে হলো। হয়তো বল ব্যাটে আসবে। ওই রকম হাই-স্কোরিংই হবে। তাই চেষ্টা থাকবে যেন ওদেরকে কম রানে আটকাতে পারি। যদি আগে ফিল্ডিং করি। আর ব্যাটিং করলে ১৮০ না করলে সুযোগ খুবই কম থাকবে।’

এই ম্যাচের পরাজয় হতে পারে বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য ক্ষতিকর। সমর্থকদের কাছে ইতোমধ্যে দলের সব অর্জন ফ্যাকাসে হয়ে যাচ্ছে। এই দলটিই বিশ্বের বাঘা বাঘা প্রতিপক্ষকে কিছুদিন আগেও অনায়াসে হারিয়েছে তা যেন এখন সুদূর অতীত। মুশফিক পারেন নি, মাশরাফিও পারেন নি, সাকিব পারবেন তো একটা জয় এনে দিতে?

সব মিলিয়ে আজকের ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য এক অগ্নিপরীক্ষা। চরম হতাশা আর সফরে হোয়াইটওয়াশের হ্যাটট্রিক থেকে বাঁচতে হলে জয় ছাড়া কোন বিকল্প নেই। শেষ টি-২০’তে হারলে পূর্ণ হবে ব্যর্থতার ষোলকলা। আজ ২৯ অক্টোবর (রোববার), বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ইতি ঘটার শুরু বাংলাদেশের প্রায় দেড়মাসব্যাপী সফরের। সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ানোর যে প্রত্যয় আগের ম্যাচে দেখা গেছে, শেষ ম্যাচের শেষ সুযোগ নিতে পারবে তো বাংলাদেশ?

দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টির সম্ভাব্য একাদশ-

দক্ষিণ আফ্রিকাঃ কুইন্টন ডি কক/মাঙ্গালিসো মোসেলে, হাশিম আমলা, এবি ডি ভিলিয়ার্স, জেপি ডুমিনি (অধিনায়ক), ডেভিড মিলার, ফারহান বেহারডিন, অ্যান্ডিলে ফেলুকায়ো, রবি ফ্রাইলিঙ্ক, ডেন প্যাটারসন/ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, ব্যেরান হ্যান্ড্রিক্স, অ্যারোন ফাঙ্গিসো/তাবরাইজ শামসি।

বাংলাদেশঃ ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নাসির হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন।

আরও পড়ুনঃ আইপিএলের গুরু-শিষ্যের সাক্ষাৎ বিপিএলে

 

– মোয়াজ্জেম হোসেন মানিক

Related Articles

হাথুরুসিংহের পদত্যাগের ভাবনা টেরও পাননি মাশরাফি

ফর্মে ফিরেও অখুশি সৌম্য

পাঁচ ছক্কার কথা ভুলে গিয়েছেন সাইফউদ্দিন

বিপিএল দিয়ে দুঃসময় কাটানোর প্রত্যাশায় মাশরাফি

‘আরেকটু ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে ভেবেছিলাম’