SCORE

Breaking News

‘হাথুরুসিংহেকে ক্ষমতা দেওয়াই বুমেরাং হচ্ছে’

Share Button

দুঃস্বপ্নের একটি সফর কাটিয়ে আসার পর স্বভাবতই এ নিয়ে চলছে কাঁটাছেঁড়া। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের বাংলাদেশ সবার কাছেই ছিল অচেনা। সাম্প্রতিক সময়ের জৌলুস, লড়াকু মনোভাব, আগ্রাসী পারফরমেন্স- সব যেন হুট করে উধাও।

শ্রীলংকা দলে ফোর্ডের উত্তরসূরি হাথুরুসিংহে?

কেন এমন হল? ক্রিকেট বিশ্লেষক সালেক সূফী বিডিক্রিকটাইমকে বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের প্রস্তুতি যথাযথ ছিল না। সবসময় একটা উদ্বেগ ছিল সেখানকার পেসবান্ধব উইকেটে আমাদের দল মানিয়ে নিতে পারবে কিনা। কিন্তু সেজন্য যে ধরণের পরিবেশে প্রস্তুতি নেওয়ার প্রয়োজন ছিল তার কিছুই করা হয়নি। ঘরোয়া লঙ্গার ভার্সনে যারা অনেকদিন ধরে ভালো খেলছে, যেমন শাহরিয়ার নাফীস, নাঈম ইসলাম, তুষার ইমরান এদের শারীরিকভাবে তৈরি করে দলে নেওয়া উচিত ছিল। সৌম্য, সাব্বির- এরা হয়ত দেশের মাটিতে কিছু ভালো ইনিংস খেলেছে। কিন্তু ওদের এখনও সব উইকেটে লঙ্গার ভার্সনে খেলানোর ঝুঁকি নেওয়া উচিত হয়নি। সাকিবের এই সিরিজে বিশ্রাম নেওয়া দলকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।’

Also Read - ফাইনালের বিকল্প ভাবছে না রাজশাহী

বাংলাদেশের ব্যর্থতার পেছনে ম্যানেজমেন্টের অতিরিক্ত তদারকি দায়ী উল্লেখ করে একসময় ঘরোয়া ক্রিকেট সালেক সূফী বলেন, ‘ব্যাটিং নিদারুণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বোলিং খেলার মতো মানসিক বা শারীরিক সক্ষমতাই ছিল না। ওরা (প্রোটিয়ারা) ক্রমাগত শরীরের সোজা শর্ট বল করে নাকানিচুবানি খাইয়েছে। বোলিংয়ের কথা বললে, টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া ছিল পরিস্থিতি অনুযায়ী আত্মঘাতী। বিশাল রানে চাপা পড়ে বাংলাদেশ খাবি খেয়েছে, ছিল না বোলারদের ধারাবাহিকতা। ব্যাটিং-বোলিংয়ের অসহায়ত্ব ফিল্ডিংয়ে প্রতিফলিত হয়েছে। অধিনায়ককে বাইরে থেকে প্রভাবিত করায় তার আর দলের মনোবল ভেঙে গেছে। টেস্টে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পেছনে টিম ম্যানেজমেন্টের অতিরিক্ত তদারকি দায়ী।’

সবকিছু মিলিয়ে তিনি আঙুল তুলছেন প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দিকে। তিনি বলেন, ‘ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফি এবং সাকিব ফিরে আসলেও দলের ভেঙে পড়ার মনোভাব পাল্টায়নি। সবকিছু মিলিয়ে দুঃস্বপ্নের সফর ছিল। দলের ভেতরের কথা বাইরে থেকে বলা সমীচীন হবে না। তবে মিডিয়া রিপোর্ট থেকে যতটুকু আঁচ করতে পারি, বেশ কিছুদিন ধরে দলের হেড কোচের সাথে সিনিয়র ক্রিকেটারদের দুরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। শ্রীলঙ্কা সফরে পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটারের সাথে বোর্ড সভাপতির কথোপকথন কিংবা টি-২০ থেকে মাশরাফির হঠাৎ অবসর, এসব শুভ ইঙ্গিত নয়। মুমিনুলকে প্রথমে দলে না নিয়ে পরে ফিরিয়ে আনা, মাহমুদউল্লাহকে অস্ট্রেলিয়া সফরে বাদ দেওয়া, নাসির নিয়ে টালবাহানা… আমি মনে করি চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে এক্সক্লুসিভ অথোরিটি দেওয়া বুমেরাং হচ্ছে। সাকিবের হঠাৎ গুরুত্বপূর্ণ সিরিজে বিশ্রাম নেওয়া, মুশফিকের সংবাদ সম্মেলনে চাপা ক্ষোভ- কিছুই ইতিবাচক ইঙ্গিত দেয়নি।’

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে পেসবান্ধব উইকেট পেয়েও নিষ্প্রভ ছিলেন পেসাররা। এজন্য অনেকে দোষারোপ করছেন পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশকে। তবে সালেক সূফীর মতে, বোলিং ব্যর্থতার পেছনে কোনো দায় নেই ওয়ালশের- ‘কোর্টনি ওয়ালশ কিংবদন্তী এক পেসার। কিন্তু ওর থেকে পেস বোলারদের নেওয়ার মতো পরিবেশ তো দিতে হবে। আমি নিশ্চিত নই দলের এখন সেই পরিবেশ আছে কিনা। তবে এটা নিশ্চিত, দক্ষিণ আফ্রিকায় কী ধরণের বল করতে হবে এটা ওয়ালশের চেয়ে ভালো কেউ জানে না। ওয়ালশের কন্ট্রিবিউশন কেন প্রতিফলিত হচ্ছে না সেটা সে নিজেই ভালো বলতে পারবে।’

বিপিএলের তাড়াহুড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ব্যর্থতা… সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচারিত এমন দাবি কতটুকু যৌক্তিক? তিনি বলেন, ‘বিপিএলের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। এগুলো বানোয়াট গল্প। আমি বিশ্বাস করি না।’

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তান সফরে যাবে বাংলাদেশ!

Related Articles

এসএলসির সাথে আলোচনা সম্পন্ন করেছেন হাথুরুসিংহে

হাথুরুসিংহে প্রসঙ্গে এখনও দ্বিধায় বিসিবি

অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হতেও প্রস্তুত সুজন

হাথুরুসিংহেকে পেতে মরিয়া লঙ্কানরা

হাথুরুসিংহেকে ‘ক্রিকেট গিয়ার্স’ আনতে বলেছিলেন ইমরুল!