SCORE

Trending Now

অবসরে যাচ্ছেন সাঈদ আজমল

Share Button

পাকিস্তান দলের অফ স্পিনার সাঈদ আজমল এই মাসের শেষেই সব ধরণের ক্রিকেট থেকে অবসর নিবেন বলে জানা গেছে। পাকিস্তানের আরেক ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপ শেষ হলেই অবসরে যাবেন ৪০ বছর বয়সী এই স্পিনার।

saeed ajmal

ফয়সালাবাদ দলকে এই মূহুর্তে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি। লাহোরের বিপক্ষে ২৬ রান দিয়ে তিন উইকেট নিয়ে সামনে থেকেই ম্যাচ জিতানোর দিনেই আসল এমন খবর। আহমেদ শেহজাদ , বাবর আজম এর উইকেট নেয়ার পাশাপাশি তিনি মোহাম্মদ হাফিজ এর রান আউটেও রেখেছেন ভূমিকা।

Also Read - ঢাকার মুখোমুখি খুলনা, কুমিল্লার হয়ে ফিরছেন তামিম

অবসরে যাওয়ার সময় পাকিস্তানের একজন সফল স্পিনার হিসেবেই অবসরে যাবেন তিনি যদিও তাঁর অভিষেক হয় কিছুটা দেরিতেই। ২০০৮ সালে এশিয়া কাপে অভিষেক হয় তাঁর। ২০১১ সাল থেকেই দলের নিয়মিত এক অংশ হয়ে দাঁড়ান তিনি।

সাদা পোশাক পরে ৩৫ ম্যাচে ২৮.১০ গড়ে ১৭৫ উইকেট নিয়েছেন সাঈদ আজমল। ১০ বার পাঁচ উইকেট এর সাথে চারবার ম্যাচে দশ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব আছে তাঁর। অধিনায়ক মিসবাহ উল হক এর নেতৃত্বে মাত্র ২৬ টেস্টে ১৪১ উইকেট দখল করেন তিনি।

ওয়ানডে ফরম্যাটে ১১৩ ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ১৮৪ উইকেট। গড় ২২.৭৮, যা যে কোনো বোলারের জন্যই ঈর্ষণীয়। ওভার প্রতি খরচ করেছেন চার রানের একটু বেশি। সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম ফরম্যাটে ৬৪ ম্যাচে নিয়েছেন ৮৫ উইকেট। ইকোনমি সাড়ে ছয়েরও কম।

তবে এত সাফল্যের মাঝে তাঁর জন্য সবচেয়ে দুঃখজনক ছিল দুইবার বোলিং একশনের জন্য আইসিসির কাঠগড়ায় দাড়ানোর ঘটনা। ব্যাটসম্যানদের জন্য মরণাস্ত্র দুসরা বারবার হয়েছে প্রশ্নবিদ্ধ। ব্যান হওয়ার সময় ওয়ানডেতে এক নম্বর বোলার ছিলেন সাঈদ আজমল। সেরা দশের মধ্যে ছিলেন অন্য দুই ফরম্যাটেও। তবে ব্যান থেকে ফিরে এসে আর জ্বলে উঠতে পারেন নি আগের মত। ২০১৫ বিশ্বকাপের পর মাত্র দুই ওয়ানডে আর একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। আর সেটা প্রমাণ করে কতটা ধার হারিয়েছেন তিনি।

পিএসএল দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরত আসার চেষ্টা করলেও ইসলামাবাদ ইউনাইটেড এর হয়ে চার ম্যাচে মাত্র তিন উইকেট নেন তিনি। অবসরের পর ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের হয়ে তিনি স্পিন বোলিং কোচের দায়িত্ব পালন করবেন।

আরো পড়ুনঃ

দীর্ঘ মেয়াদেই জাতীয় দলের কোচ হতে চান সুজন

Related Articles

শেষবেলায়ও আজমলের অভিযোগের তীর