SCORE

Trending Now

চিটাগংকে হারিয়ে শেষ চারের আশা টিকিয়ে রাখল রাজশাহী

Share Button

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টির ৫ম আসরের চট্টগ্রাম পর্বের শেষদিনে টুর্নামেন্টে টিকে থাকার লড়াইয়ে চিটাগং ভাইকিংসকে হারিয়েছে রাজশাহী কিংস। এই জয়ে শেষ চারে যাওয়ার আশা টিকিয়ে রাখল রাজশাহী কিংস।

চিটাগংকে হারিয়ে শেষ চারের আশা টিকিয়ে রাখল রাজশাহী

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রাজশাহী কিংসের অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি। দুই পরিবর্তন নিয়ে একাদশ সাজায় রাজশাহী। ব্যাটিং করতে নেমে দলীয় ১০ রানের মাথায় মুমিনুলকে হারায় রাজশাহী; ভাইকিংসের হয়ে প্রথম আঘাত হানেন তাসকিন আহমেদ।

Also Read - অবসরে যাচ্ছে শচীনের ১০ নম্বর জার্সিও!

লুক রাইট ও জাকির হাসানের ব্যাটে বড় সংগ্রহের আশা দেখালেও দলীয় ৪১ রানেই সাজঘরে ফিরে যান জাকির (১৭)। চলতি আসরে রানের খরায় থাকা মুশফিকের ব্যাটও হাসে এই ম্যাচে। ব্যক্তিগত ২৫ রান করে সানজামুলের বলে সাজঘরে ফিরে যান রাইট। তার বিদায়ে ব্যাট হাতে দলের হাল ধরেন মুশফিক।

চলতি আসরে এক ফিফটি বাদে নামের প্রতি তেমন সুবিচার করতে পারেনি মুশফিক। তবে এই ম্যাচে আরেকটি বড় ইনিংসের আশা দেখালেও ব্যক্তিগত ৩১ রানেই থেকে যায় মুশফিকের ইনিংস। দলের বিপদে ব্যাট হাতে আবারো হাল ধরেন অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি। ফ্র্যাঙ্কলিনকে সঙ্গে নিয়ে একাই দলকে টেনে তুলেন স্যামি।

ব্যাট হাতে গত ম্যাচেও ঝলক দেখালেও জয়ের দেখা পায়নি স্যামির রাজশাহী। ফ্র্যাঙ্কলিনের সঙ্গে ৬৯ রানের জুটি গড়েন স্যামি; ব্যাট হাতে ৪০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। মুশফিক, ফ্র্যাঙ্কলিন ও স্যামির ব্যাটিং কল্যাণে ১৫৭ রান সংগ্রহ করে রাজশাহী। ভাইকিংসের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন লুইস রিস।

রাজশাহীর দেওয়া ১৫৮ টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় ভাইকিংস। দলীয় ১৩ রানেই ভাইকিংস অধিনায়ক রনকিকে ফেরান মোহাম্মদ সামি। তবে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেও উইকেটের পেছনে বল ধরতে গিয়ে আঙুলে চোট পান মুশফিক, বদলি উইকেটকিপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জাকির।

রনকির বিদায়ে দলের হাল ধরেন এনামুল হক বিজয় ও সৌম্য সরকার। টুর্নামেন্ট থেকে ইতোমধ্যে ছিটকে গেলেও আশা হারায়নি ভাইকিংস। সৌম্য-বিজয়ের ব্যাটে জয়ের আশা দেখালেও দলীয় ৫১ রানে মুস্তাফিজের বলে সৌম্য আউট হলে কিছুটা পিছিয়ে পড়ে ভাইকিংস। চোট নিয়েও ব্যাট করে নামা বিজয় (২৩) ফিরে যান অভিষিক্ত কাজী অনিকের বলে।

বিজয়ের বিদায়ের পর ভ্যান জিল বাদে ব্যাট হাতে কেউই জ্বলে উঠতে পারেনি ভাইকিংসের হয়ে। সিকান্দার রাজা-ভ্যান জিলের ৩২ রানের জুটি গড়লেও রাজার বিদায়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় ভাইকিংস। চিটাগংয়ের হয়ে ভ্যান জিলের ২৭ ও রাজার ১৭ বাদে তেমন কেউ রান পাননি।

শেষ পর্যন্ত ১২৪ রানেই ইনিংস থামে চিটাগং ভাইকিংসের। এই পরাজয়ে টুর্নামেন্ট থেকে প্রথম দল হিসেবে বাদ পড়লো ভাইকিংস। রাজশাহীর হয়ে একাই বল হাতে ৪ উইকেট লাভ করেন কাজী অনিক।

আরও পড়ুনঃ অবসরে যাচ্ছে শচীনের ১০ নম্বর জার্সিও!

Related Articles

২০ ডিসেম্বর জাতীয় লিগের ৬ষ্ঠ রাউন্ড শুরু

অধিনায়কত্ব হারানোয় অভিযোগ নেই তামিমের

বিজয় দিবসের ক্রিকেটে সাবেকদের মিলনমেলা

শ্রীলঙ্কা সিরিজের জন্য সূচি প্রকাশ বিসিবির

ত্রিদেশীয় সিরিজের সময়সূচি চূড়ান্ত