SCORE

Trending Now

চিটাগংয়ের বিপক্ষে খেলা না থাকায় ‘ভাগ্যবান’ তামিম

Share Button

সিলেট ও ঢাকা হয়ে বিপিএল এখন চট্টগ্রামে। তবে চট্টগ্রামের লোকাল বয় তামিম ইকবাল অবশ্য খেলছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে। ইতোমধ্যেই চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে দুই ম্যাচ খেলে ফেলেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দুই ম্যাচেই হেসেছে জয়ের হাসি। অর্থাৎ, ঘরের মাঠে নিজ বিভাগের বিপক্ষে খেলতে হচ্ছে না  তামিম ইকবালকে। এ কারণে নিজেকে ভাগ্যবান ভাবছেন তামিম ইকবাল।
চিটাগংয়ের বিপক্ষে খেলা না থাকায় 'ভাগ্যবান' তামিম
বিপিএল খেলতে ইতোমধ্যেই চট্টগ্রামে পৌঁছে গিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তামিম ইকবাল।

চট্টগ্রামের জহুর আমেদ চৌধুরী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে দশটি ম্যাচ। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ম্যাচ তিনটি। রাজশাহী কিংস, খুলনা টাইটান্স ও ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে মাঠে নামবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তামিম ইকবালের ব্যাট হাতে নামা মানেই গ্যালারি থেকে “তামিম, তামিম” রব। এবারও চট্টগ্রামের মানুষের কাছ থেকে এমন সমর্থন আশা করছেন তিনি।

Also Read - ভারত সফরের জন্য মেয়েদের 'এ' দল ঘোষণা

তামিম ইকবাল বলেন, “আমি ভাগ্যবান, কারণ চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে আমার খেলতে হচ্ছে না! তবে আমি যেহেতু এখানকার ঘরের ছেলে, সুতরাং আমি যে দলেই খেলি না কেন, আশা করি চট্টগ্রামের মানুষের কাছে সমর্থন পাব। “

গত আসরে ঘরের ছেলে ছিলেন ঘরের দলেই। চিটাগং ভাইকিংসের আইকন ছিলেন এ বাঁহাতি হার্ডহিটিং ওপেনার। তবে এবার পাড়ি জমিয়েছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে। চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রথম ম্যাচে চোটের কারণে নামা হয়নি তামিমের। দ্বিতীয় মোকাবেলায় ১০ বলে ৪ রান করেছিলেন তামিম।

৬ ম্যাচের ৫ টিতে জিতে বেশ সুবিধাজনক স্থানে রয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে দলটি। এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখার প্রত্যয় তামিমের কণ্ঠে। তামিম চান ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে যেতে। তামিম ইকবাল বলেন, “আমরা এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই। এভাবেই এগোতে চাই। দিন শেষে এটা ক্রিকেট, এখানে যেকোনো কিছু হতে পারে। আমরা তাই ধারাবাহিকতা হারাতে চাই না। “

পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকলেও এখনো স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছেন না তামিম। যেকোনো সময় যেকোনো কিছু হতে পারে বলে স্বস্তির সুযোগ নেই বলে মনে করছেন তামিম।

তিনি বলেন, “ক্রিকেট একটা অনিশ্চিত খেলা। আমাদের প্রথম পাঁচ ম্যাচ দুর্দান্ত গেছে। পরের তিনটা ম্যাচ খারাপও হতে পারে। সুতরাং স্বস্তির কোনো সুযোগ নাই। আমাদের কোচ এই বিষয়ে খুবই স্পষ্টবাদী। আমাদের আসলে ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে।”

এবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মিশন শিরোপা পুনরুদ্ধার। ২০১৫ সালের শিরোপা জয়ী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়া। তামিম মনে করছেন সবার লক্ষ্যই চ্যাম্পিয়নশিপ। তবে আগে সুপার ফোরে জায়গা নিশ্চিত করতে চান তিনি।
স্থানীয়দের পারফরম্যান্স নিয়েও কথা বলেন তামিম। জানান স্থানীয়দের পারফরম্যান্সে খুশি নন তিনি। তার মতে আরো ভালো পারফরম্যান্স করা উচিত স্থানীয় ক্রিকেটারদের। তবে এবারের বিপিএলে একাদশে পাঁচ বিদেশি খেলানোর সুযোগ থাকায় স্থানীয়দের পারফরম্যান্স করা চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠেছে বলে মনে করেন অনেকে। তবে এটাকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে নারাজ তামিম। এখন পর্যন্ত যারা পারফরম্যান্সের সুযোগ পেয়েছে তাদের কাছ থেকে আরো ভালো আশা করেছিলেন তিনি।

” একজন বাংলাদেশি হিসেবে বলব, আমরা যতটা ভালো খেলেছি, তার চেয়ে ভালো করা উচিত ছিল। এই বিষয়ে কথা বলতে গেলে বারবার পাঁচজন বিদেশির (একাদশে) কথা এসে যায়। আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়, পাঁচজন বিদেশির কারণে যে সব স্থানীয় ক্রিকেটার ওপরে ব্যাটিং করতে পারত, তাদেরকে নিচে ব্যাটিং করতে হচ্ছে। এটাকে আমি অজুহাত হিসেবে দেখাতে চাই না। কারণ আমার মনে হয়, যারা যেমন খেলেছে, তাদের আরো ভালো খেলা উচিত ছিল,” বলেন তামিম।

এক্ষেত্রে নিজেকেও উদাহরণ হিসেবে টানেন তামিম। নিজের পারফরম্যান্সেও খুশি নন তিনি। তিন ম্যাচ মিলিয়ে রান করেছেন ৪৩। তবে ধীরে ধীরে স্থানীয় ক্রিকেটারদের উন্নতি হচ্ছে বলে মনে করেন তামিম।

বেশ কয়েকজন স্থানীয় ক্রিকেটার দারুণ করছেন বিপিএলে। খুলনা টাইটান্সের হয়ে চমৎকার সব ইনিংস খেলছেন আরিফুল হক। নিয়মিত রান পাচ্ছেন রাজশাহী কিংসের জাকির হাসান। খুলনা টাইটান্সের পেসার আবু জায়েদ চৌধুরী, ঢাকা ডায়নামাইটসের আবু হায়দার রনি সহ অন্যান্য পেসাররাও উইকেট পাচ্ছেন নিয়মিত।

১২ উইকেট নিয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট আবু জায়েদের দখলে। পাকিস্তানের শহিদ আফ্রিদির সমান ১১ উইকেট তারই সতীর্থ আবু হায়দারের।

আরিফুল হকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ছিলেন তামিম। এমন পারফরম্যান্স প্রতি ম্যাচেই দেখার অপেক্ষায় আছেন তিনি। এ পারফরম্যান্সগুলো বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য বেশ ইতিবাচক বলে মনে করছেন তামিম। তিনি বলেন, “আপনারা যদি আরিফুলের ইনিংস দেখেন, ওই ইনিংসটা দারুণ ছিল। এ রকম ইনিংস যদি প্রতি ম্যাচে বা প্রতি দুই ম্যাচে হয়; আমাদের ক্রিকেটের জন্য ভালো।”

আরো পড়ুনঃ ভারত সফরের জন্য মেয়েদের ‘এ’ দল ঘোষণা

 

Related Articles

টেস্ট নিয়ে তাড়াহুড়া নেই সাইফউদ্দিনের

আমরাই সেরা দল ছিলাম: তামিম

কোয়ালিফায়ারের বিতর্ক নিয়ে বিসিবির ব্যাখ্যা

ফাইনালে রংপুর রাইডার্স

কুমিল্লাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ বিসিবির