SCORE

Trending Now

বাড়াবাড়ি না করার অনুরোধ মাশরাফির

Share Button

মাঠে মাশরাফি বিন মুর্তজা ও শুভাশিষ রয়ের মধ্যে ঘটা বাদানুবাদ নিয়ে বেশ গরম ছিল সামাজিক মাধ্যম। সমালোচনার তীরে বিদ্ধ হতে থাকেন শুভাশিষ। তবে কেউ আবার স্রেফ মাঠের ঘটনা হিসেবে উড়িয়ে দেন। ফেইসবুক পাতায় দেওয়া ভিডিওতে মাশরাফি বিন মুর্তজা অনুরোধ করেছেন এ ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে।

মাঠে উত্তপ্ত আবহাওয়া তৈরি করে এ ঘটনা

ভিডিও বার্তায় মাশরাফি বলেন, “আসলে যে জন্য ভিডিওটা করা সেটা আমার কাছে মনে হচ্ছে যে এটা বেশি বাড়াবাড়ি হয়ে যাচ্ছে। মানুষের কাছ থেকে অনেক ভালোবাসা পেয়েছি। অনেক কিছু পেয়েছি। কিন্তু একই সাথে মনে করি শুভাশিষও বাংলাদেশের হয়ে খেলে। তারও ভালোবাসা প্রাপ্য।”

মাশরাফি মনে করেন থ্রো করতে উদ্যত হওয়ার পর অমন প্রতিক্রিয়া তার দেখানো উচিত হয়নি। এ কারণে তিনি দুঃখিত। তিনি বলেন, “প্রেস কনফারেন্সে আমি বলে এসেছি আমি দুঃখিত। একজন সিনিয়র হিসেবে আমার রিঅ্যাক্ট করা উচিত হয়নি। বলতে পারেন শুরুটা আমার থেকেই হয়েছে। ও হয়তো বলটা থ্রো করাটা উচিত ছিল। আমি যদি রিঅ্যাকশনটা না দিতাম, ও হয়তো চলে যেত। মাঠের জিনিসটা মাঠে রাখাই ভালো।”

Also Read - তাসকিনকে কৃতিত্ব দিলেন মাশরাফিও

তিনি মনে করেন নিজে যতটুকু সম্মান পাচ্ছেন ঠিক ততটুকুই প্রাপ্য শুভাশিষের। তিনি বলেন, “সে খুব প্রমিজিং ফাস্ট বোলার। এমন নয় সে কোথা থেকে আসছে আর খেলছে। সে অনেক লড়াই করে, যুদ্ধ করে বাংলাদেশের হয়ে খেলছে। আমি একজন সাধারণ মানুষ হিসেবেও যদি বলি, আমি যতটকু সম্মান পাই বা পাচ্ছি অবশ্যই তার ততটুকু প্রাপ্য। “

প্রতিক্রিয়া না দেখালে শুভাশিষের মাথা ঠাণ্ডা থাকতো বলে মনে করেন মাশরাফি। “ছোটো ভাইয়ের” সাথে এমন করা উচিত হয়নি বলে মনে করেন তিনি। তিনি বলেন, “আমি শুভাশিষের কাছে এজন্য ক্ষমা চাচ্ছি যে ও আমার ছোটো ভাই। ওকে অবশ্যই আমার ওভাবে বলা উচিত হয়নি। তাহলে হয়তো ওরও মাথা ঠান্ডা থাকতো।”

এ ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার অনুরোধ জানান মাশরাফি, “প্লিজ, আপনাদের একটাই অনুরোধ এটা নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি না করে এটা এখানেই শেষ করেন।”

মাশরাফি জানান এ ঘটনা ভুলে যাবেন তিনিও। তিনি বলেন, “মাঠের ভেতর যা হয় আমরা বাইরে এসে ভুলে যাই। শুভাশিষ আমার টিমমেট। একই সাথে ছোটো ভাই। আমরা অবশ্যই এটা মনে রাখব না। “

সবার কাছে হাতজোড় করে আকূল আবেদনও করেন মাশরাফি। তিনি মনে করেন এ ঘটনার সমাপ্তিরেখা টানা উচিত এখানেই।

“আপনাদের কাছে হাত জোড় করে বলছি জিনিসটা বেশি বাড়তে দিবেন না। তাহলে বিষয়টা শুভাশিষ বা আমি- কারো জন্যই ভালো হবে না, “ বলেন মাশরাফি।  ভিডিওর শেষে দারুণ জয়ের জন্য চিটাগং ভাইকিংস এবং বোলিং নৈপুণ্যের জন্য তাসকিন ও শুভাশিষকে অভিনন্দন জানান মাশরাফি। সদ্য বিয়ের পিঁড়িতে বসা পেসার তাসকিন আহমেদের দাম্পত্য জীবনের জন্য শুভকামনা জানান তিনি।

চিটাগং ভাইকিংস বনাম রংপুর রাইডার্সের তখন ১৭ তম ওভার। ম্যাচে টান টান উত্তেজনা। রংপুর রাইডার্সের জয়ের জন্য প্রয়োজন ৩৮ রান। হাতে আছে ২০ বল। ব্যাটিংয়ে মাশরাফি বিন মুর্তজা আর বোলিংয়ে শুভাশিষ রয়।  ওভারের চতুর্থ বলে দারুণ এক ইয়র্কার দিয়েছিলেন শুভাশিষ। মাশরাফি ঠেকালেন। ফলো থ্রুতে ফিল্ডিং করে বল থ্রো করতে উদ্যত হন শুভাশিষ। মাশরাফি হাতের ইশারায় শুভাশিষকে ফিরে যেতে বলেন বোলিং প্রান্তে।

তাতে বেশ ক্ষেপে যায় শুভাশিষ। মাশরাফির সামনে তেড়ে যান তিনি।  এগিয়ে আসেন মাশরাফি ও তার ব্যাটিংয়ের সঙ্গী সোহাগ গাজী। উইকেটের মাঝে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয় দুজনের মাঝে। তাকে থামাতে এগিয়ে আসেন সতীর্থ তানভীর হায়দার ও সিকান্দার রাজা। শুভাশিষকে যখন নিয়ে যাওয়া হয় তখন প্রতিক্রিয়াহীন ছিলেন মাশরাফি। নির্লিপ্ত দৃষ্টি নিয়ে তাকিয়ে ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে এসে জানান, শুভাশিষকে দুঃখিত বলা উচিত তার। ঐ বলের আগের বলেই চার মেরেছিলেন মাশরাফি।

প্রেস কনফারেন্সে এসেই মাশরাফি জানান সিরিয়াস কিছুই হয়নি। তিনি বলেন, “যেহেতু সে আমার ছোট, আমার আরেকটু মাথা ঠাণ্ডা রাখলে ভালো হতো। সিরিয়াস কিছু হয়নি অবশ্যই। “ তবে ততক্ষণে উত্তপ্ত হয়ে গিয়েছিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেইসবুক। এ ঘটনা নিয়ে নানান ধরণের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে দর্শক ও ক্রীড়া সাংবাদিকরা।  ম্যাচের পরবর্তী সময় ফেইসবুক উত্তপ্ত ছিল মাশরাফি ও শুভাশিষের এ ঘটনা নিয়ে। অনেকেই এ ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ফেইসবুকে যে আগুন জ্বালিয়েছিল এ ঘটনা, মাশরাফি বিন মর্তুজার এ ভিডিও সেই আগুনে কিছুটা হলেও জল ঢালবে।

ম্যাচটিতে ১১ রানে জয়ী হয় চিটাগং ভাইকিংস। চিটাগংয়ের ১৬৬ রানের জবাব রংপুর থামে ১৫৫ রান করে।

আরো পড়ুনঃ তাসকিনকে কৃতিত্ব দিলেন মাশরাফিও

Related Articles

বিসিবি ও চিটাগং ভাইকিংসকে সিকান্দার রাজার ‘ধন্যবাদ’

আশরাফুলকে দেখে ক্রিকেটে আগ্রহ আল-আমিনের

ব্যর্থতার কারণ জানেন না রনকিও

বড় জয়ে শেষ চারের লড়াইয়ে টিকে রইলো নাসিররা

এক ম্যাচে নাসিরের দুই মাইলফলক স্পর্শ

Leave A Comment