SCORE

সর্বশেষ

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে এশিয়া কাপ শুরু বাংলাদেশের

কুয়ালা-লামপুরের কিনরারা একাডেমি ওভাল মাঠে এসিসি যুব এশিয়া কাপের গ্রুপ ‘এ’ এর বৃষ্টিবিঘ্নিত দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে জয়ের জন্য শেষ দুই ওভারে বাংলাদেশের অ.১৯ দলের প্রয়োজন ছিল ১৬ রান। ইনিংসের ৩৯তম ওভারে বাংলাদেশের জয়ের সহজ এই সমীকরণকে কঠিন করে দেন প্রতিপক্ষ দলের কিশোর মহাতোর। মাত্র ৫ রান খরচে থিতু হওয়া ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেনকে ফেরানোর পর কাজী অনিককে সাজঘরের পথ ধরিয়ে টাইগার যুবাদের বিপদে ফেলেন তিনি।

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে এশিয়া কাপ শুরু বাংলাদেশের

শেষ ওভারে তাই বাংলাদেশের জয়ের জন্য দরকার ছিল ১১ রান। ম্যাচের এমতাবস্থায় বল হাতে তুলে নেন কামাল সিং। আক্রমণে এসে প্রথম বলেই তুলে নেন ২০ বল মোকাবেলায় ২৩ রান করা মাহিদুল ইসলামের উইকেট। তাঁর বিদায়ে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে নেপালের যুবারা। তবে সি স্বপ্নকে সত্যি হতে দেননি নাইম হাসান-রবিউল হকরা।

Also Read - মুমিনুলের অর্ধশতকে প্রথম জয় পেলো রাজশাহী

৪০তম ওভারে ক্রিজে এসে প্রথম বলেই চার মেরে জয়ের সমীকরণকে ৪ বলে ৭ রানে নিয়ে আসেন নাইম হাসান। এরপরের বলে এক রান নিয়ে প্রান্ত বদল করে রবিউলকে স্ট্রাইক দিলে এই ব্যাটসম্যানও চার মেরে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে আসেন দলকে। এর ফলে ২ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয় দিয়ে চলমান এসিসি অ.১৯ এশিয়া কাপে যাত্রা শুরু করতে সক্ষম হয় সাইফ-আফিফরা।

এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ৪০.১ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে নেপাল ১৬১ রান তুললে ম্যাচে বাগড়া দেয় বৃষ্টি। ম্যাচের লম্বা একটা দৈর্ঘ্য বৃষ্টিতে ভেসে গেল ওভার কমিয়ে ৪০ ওভারে বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দেওয়া হয় ১৮১ রান।

বাংলাদেশের যুবা বোলারদের মধ্যে ৩৩ রান দিয়ে নাইম হাসান সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া হাসান মাহমুদ, কাজী অনিক ও আফিফ হোসেন প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নেন। নেপালের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান আসে বিম সার্কির ব্যাট থেকে। তাঁর পাশাপাশি রোহিত কুমার ৪০ ও আসিফ শেখ ৩০ রান করে দলকে লড়াকু পুঁজি পেতে সাহায্য করেন।

জবাবে বাংলাদেশকে দারুণ শুরু এনে দেন পিনাক ঘোষ, নাইম শেখ। নাইম ৫২ ও পিনাক ২৪ রান করে সাজঘরে ফিরলে টপ অর্ডারের বাকি ব্যাটসম্যানরা নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে ব্যর্থ হলে ১২২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে সাইফবাহিনী। সেখান থেকে আফিফ হোসেন ও মাহিদুল ইসলাম ৪৮ রানের জুটি গড়ে ম্যাচে ফিরিয়ে আনে বাংলাদেশকে। আফিফ ১ চার ও ১ ছয়ে ৩৯ বল মোকাবেলায় ৩৩ রান করেন আর মাহিদুল খেলেন ২০ বলে ২৩ রানের ইনিংস।

নেপালের পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন কামাল সিং ও সন্দীপ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-
নেপাল অ.১৯ঃ ১৬১/৬ (৪০.১ ওভার)
শার্কি ৪৪, রোহিত ৪০; নাইম ৩৩/৩

বাংলাদেশ অ.১৯ঃ ১৮১/৮ (৩৯.৫ ওভার)
নাইম ৫২, আফিফ ৩৩, মাহিদুল ২৩; সন্দীপ ৩৫/২, কামাল ৩৭/২

ফলাফলঃ বাংলাদেশ এক বল বাকি থাকতে ২ উইকেটে জয়ী।

আরো পড়ুনঃ মুমিনুলের অর্ধশতকে প্রথম জয় পেলো রাজশাহী

Related Articles

জাকির-আফিফকে বাদ দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা

ক্রিকেটারদের কাছে এতটাই গুরুত্ববহ ঘরোয়া ক্রিকেট!

ধারাবাহিক ভালো করার ফলাফল পেয়েছেন আফিফ

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে একাধিক চমক রাখার ব্যাখ্যা

ফিরলেন সাকিব-সৌম্য, দলে পাঁচ নতুন মুখ