SCORE

Breaking News

১২ পেসারকে নিয়ে চম্পকার ক্যাম্প

Share Button

বোলিং কোচ চম্পকা রমানায়েকের অধীনে সপ্তাহব্যাপী ক্যাম্প শুরু করেছেন বারো জন তরুণ পেসার। এদের মধ্যে সাত জনই এসেছেন অনূর্ধ্ব-১৭ দল থেকে। বাকি পাঁচ জন পেসার হান্টের ফসল।

১২ পেসারকে নিয়ে চম্পকার ক্যাম্প
চম্পকা রমানায়েকে। – ফাইল ছবি

সাত দিনের এই ক্যাম্প শেষে আগামী জানুয়ারিতে আরও বড় পড়িসরে কাজে নামবেন বাংলাদেশেই কোচিং ক্যারিয়ারের বড় সময় পার করে দেওয়া এই শ্রীলঙ্কান। মূলত বাংলাদেশের পেস বোলারদের ভাণ্ডার বাড়াতেই এমন উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

ক্যাম্প প্রসঙ্গে চম্পকা বলেন, এটা ডেভলাপমেন্ট প্রোগ্রাম কোনো চাপ ছাড়াই বোলিং উপভোগ করা আর কি… প্রথমে ফাস্ট বোলিংয়ের বেসিকটা ধরে নিজ নিজ স্কিল অনুযায়ী এগিয়ে যাবে ছেলেরা শুরুতে কবজির ব্যবহার আর লেন্থ নিয়ে কাজ করছি লেন্থ ঠিক না থাকলে বোলারের কোন দাম নেই ভালো লেন্থে বল না করলে দলের অধিনায়কের কাছ থেকে বল করার সুযোগ পাওয়া মুশকিলভালো লেন্থে কিভাবে টানা বল করে যেতে হয় সেটা শেখানো হচ্ছে। পাশাপাশি বল কিভাবে ছাড়তে হয় সেটা বুঝাচ্ছি, যাতে সুইং সিম করানোটা শিখতে পারে ছেলেরা।

Also Read - ''ও আমার পাশে তাজিম থেকেই"

স্পিন নির্ভর বাংলাদেশের পেস দাপট শুরু হয় মূলত ২০১৫ বিশ্বকাপ থেকে। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের সিমিং কন্ডিশনে অনুষ্ঠিত ঐ বিশ্বকাপে গতির ঝড় তুলে সাফল্য পিয়েছিলেন মাশরাফি-রুবেলরা। এরপর বেশ কিছুদিন বজায় ছিল পেসারদের দাপট। স্পিনারদের জন্য এতে যেমনি কমে গিয়েছিল ভালো করার চাপ, তেমনি দলের সাফল্যের হারও বাড়ছিল ক্রমশ।

তবে সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বাংলাদেশের পেস আক্রমণের সামনে ঝুলিয়ে দিয়েছে বড় এক প্রশ্নবোধক চিহ্ন। হিথ স্ট্রিক চলে যাওয়ার পর কোর্টনি ওয়ালশকে টাইগারদের পেস বোলিং কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বিসিবি। তার কাজেরও হতে চলল প্রায় দেড় বছর। স্ট্রিককে বিশ্বমানের পেসার বলা গেলেও ওয়ালশ নির্দ্বিধায় একজন কিংবদন্তী। কিন্তু তার অধীনে বাংলাদেশের পেস আক্রমণ ভালো করতে পারছে না। চম্পকার পরিশ্রমে ভবিষ্যতে জাতীয় দলের পেস আক্রমণ আবারও শক্তিশালী হোক, বেরিয়ে আসুক নতুন নতুন মুখ- এমনই প্রত্যাশা সবার।

আরও পড়ুনঃ নানির জন্যই ক্রিকেটে মাশরাফি

Related Articles

চম্পকাকে ওয়ালশের ‘স্বাগতম’