SCORE

Trending Now

অধিনায়কত্ব হারানোয় অভিযোগ নেই তামিমের

Share Button

ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালকে নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোন অবকাশ নেই। ক্রিকেটের সবক্ষেত্রে নিজেকে প্রমাণ করলেও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অধিনায়ক তামিমের প্রমাণ করাটাই বাকি ছিল। তবে সেই সুযোগ পেয়েও যেন হাতছাড়া করলেন তামিম। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে মুশফিকের অনুপস্থিতে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন তামিম।

অধিনায়কত্ব হারানোয় অভিযোগ নেই তামিমের

তবে অভিজ্ঞতা তেমন সুখকর হয়নি তামিমের জন্য। মূল অধিনায়কের দায়িত্বে থাকার সুযোগ খুব একটা বেশি না হলেও সহ-অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন দীর্ঘ সময় ধরে। ২০০৯ সালে দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফির ইনজুরিতে নতুন অধিনায়ক ও তার ডেপুটির নাম ঘোষণা করেছিলো বিসিবি।

Also Read - কোড অব কন্ডাক্ট থেকে বেশি বলাতেই তামিমের শুনানি

সেসময় মূল অধিনায়কত্ব সাকিবের পাশাপাশি তার ডেপুটির দায়িত্ব পেয়েছিলেন তামিম। তবে ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩-২ ব্যাবধানে সিরিজ হারাতে সাকিব সহ দায়িত্ব হারাতে হয় তাকেও। তাছাড়াও তাঁদের বিরুদ্ধে আনা হয়েছিলো নানা অভিযোগ। তবে সেসব সমলোচনাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে আবারো অধিনায়কত্বের দায়িত্বে আসেন তামিম-সাকিব।

২০১৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষে পরিবর্তন আনে অধিনায়কত্বে। সেসময়ে তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি থেকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয় মাশরাফি মুর্তজাকে এবং তার ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় সাকিব আল হাসানকে। অন্যদিকে সীমিত ওভারের ক্রিকেটের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিলেও টেস্ট দলের দায়িত্ব থাকে মুশফিকের কাঁধেই।

তবে মুশফিকের ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব পান তামিম ইকবাল। তিন বছরের সহ-অধিনায়কত্বের যুগের অবসান ঘটে আবারো। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট সিরিজের জন্য ঘোষণা করা হয় নতুন অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের নাম। যে সাকিবের কাছ থেকে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব পেয়েছিলেন ২০১১ সালে, সেই সাকিবের কাছেই টেস্ট অধিনায়কের দায়িত্ব হারাতে হয় মুশফিককে।

অন্যদিকে দ্বিতীয় কিস্তিতে আবারো সহ-অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মজার বিষয় যেই মাহমুদউল্লাহর কাছ থেকে সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছিলেন তামিম, সেই মাহমুদউল্লাহ কাছে দায়িত্ব হারাতে হয় তামিমের। তবে তামিমের অধিনায়কত্ব হারানোর কারণ এখনো ধোঁয়াশাই রয়ে গেছে।

সহ-অধিনায়কত্ব হারানোর ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি বিসিবির কাছ থেকেও। তবে এগুলো নিয়ে ভাবছেন না দেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। জানান, সহ-অধিনায়কত্ব হারানোতে কোন অভিযোগ নেই তার এবং চাইলে নতুন অধিনায়কদের সহায়তা করবেন তামিম।

“এটা নির্ভর করে পুরোটা উনাদের উপর। কারণ আমাকে যখন টেস্টের সহ-অধিনায়কত্বের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিলো, তখন আমাকে উপযুক্ত মনে করে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। এখন যাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তাকে আমার চেয়ে ভালো মনে হয়েছে দেখেই বিসিবি তাকে দায়িত্ব দিয়েছে। এটা নিয়ে আমার কোন অভিযোগ নেই।”

তিনি আরো যোগ করেন, “আমি যা করতে পারি, দলের সিনিয়র ক্রিকেটার হিসেবে যারা নতুন অধিনায়কত্বে এসেছে তাদেরকে সহযোগিতা করতে পারি এবং সেটির জন্য আমি প্রস্তুত।”

আরও পড়ুনঃ কোড অব কন্ডাক্ট থেকে বেশি বলাতেই তামিমের শুনানি

Related Articles

ওয়াটসনকে পেছনে ফেললেন তামিম

জয় দিয়ে মিশন শুরু বাংলাদেশের

তামিমের সামনে দুই মাইলফলকের হাতছানি

ডিপিএলের আইকন তালিকায় বিজয়, বাদ সাব্বির

তামিমকে দলে পেতে আগ্রহী প্রীতি জিনতা!

Leave A Comment