SCORE

সর্বশেষ

ফাইনালে রংপুর রাইডার্স

মিরপুরে ব্যাট হাতে ব্রেন্ডন ম্যাককালাম আর জনসন চার্লসের ঝড়ে যেন বিধ্বস্ত কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।  তাদের ৩৬ রানে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কেটেছে রংপুর রাইডার্স।

৭৮ রানের ইনিংসের পথে চার্লস
৭৮ রানের ইনিংসের পথে চার্লস

ব্রেন্ডন ম্যাককালাম আর জনসন চার্লসের ব্যাটিং তাণ্ডবে রংপুর রাইডার্সের রান পৌঁছায় ১৯২ রানে। শতক হাঁকান জনসন চার্লস। ৭৮ রানের ইনিংস খেলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। এ দুজনের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের সামনে নখদন্তহীন ছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বোলিং।

৭ ওভার শেষে রংপুর রাইডার্সের সংগ্রহ ছিল ১ উইকেটে ৫৫ রান। বিগত দিন এ সময় বাগড়া দিয়েছিল বৃষ্টি। আজ খেলা শুরু হয় এখান থেকেই। চার-ছক্কার বন্যা বইয়ে দেন জনসন চার্লস ও ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

Also Read - রাহীর লক্ষ্য এখন জাতীয় দল

ম্যাককালামের ইনিংসে ছিল নয়টি ছক্কা
ম্যাককালামের ইনিংসে ছিল নয়টি ছক্কা

যেখান থেকে চার্লস শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই যেন শুরু করলেন। সাইফউদ্দিনকে এক ওভারে দুই ছক্কা হাঁকান তিনি।  এরপর ক্রেমারের দুই বলে দুই ছক্কা মারেন ম্যাককালাম। চার নয়, বলকে হাওয়ায় ভাসিয়ে সীমানার বাইরে আঁছড়ে ফেলছিলেন ম্যাককালাম।  প্রায় প্রতি ওভারেই ছক্কা আসছে ম্যাককালামের ব্যাট থেকে। অপর প্রান্তে চার্লসও ব্যাটিং করছিলেন খুনে মেজাজে।

শেষ চার ওভারে ৫৩ রান তুলে রংপুর রাইডার্স। ১৭ তম ওভারে আল-আমিন হোসেনের তিন বলে তিন ছক্কা হাঁকান ম্যাককালাম।  রানের বন্যা কোনোভাবেই আটকাতে পারছিল না কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বোলাররা। শেষ ওভারে দুই চার মেরে শতক পূর্ণ করেন চার্লস।  ৯ চার ও ৭ ছক্কায় ৬৩ বলে ১০৫ রান করেন চার্লস। ব্রেন্ডন ম্যাককালাম শেষ ওভারের আগের ওভারে আউট হন। ম্যাককালামের ব্যাট থেকে আসে ৭৮ রান। ১ টি চারের সাথে তার ইনিংসে ছিল ৯ টি ছক্কা।

বড় লক্ষ্য তাড়ার জন্য শুরু যেমনটা হওয়া চাই তেমনটাই হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাস দ্রুত রান তুলতে থাকেন। প্রথম ওভারে লিটন দাস মারেন এক চার ও এক ছয়। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের রান হয় ১৩।

লিটন দাসের সঙ্গে রান উৎসবে যোগ দেন তামিম ইকবাল। তামিম ও লিটনের ব্যাটে বড় স্কোর তাড়া করে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সমর্থকরা। লিটন দাসকে বেশ কয়েকবার রান আউট করার সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি রংপুর রাইডার্সের ফিল্ডাররা।

দুর্দান্ত ব্যাটিং করতে থাকা তামিম ইকবাল একবার বেঁচে যান আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের ফলে। থামেন ৩৬ রান করে। মাশরাফি বিন মুর্তজার বলে টানা দুই বলে দুই চার মারার পর ডাউন দ্যা উইকেটে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন তামিম।  ১৯ বলে ৩৬ রান করেন তামিম। তার ইনিংসে ছিল ৬ চার ও ১ ছক্কা।

তামিম ইকবালের বিদায়ের পরেই ছন্দপতন ঘটে কুমিল্লার। তামিম যে ভিত গড়ে দিয়ে যান তাতে সৌধ গড়তে পারেনি বাকি ব্যাটসম্যানরা। রংপুর রাইডার্সের বোলাররা লাগাম ধরেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের রানে। তামিমের বিদায়ের পরের ওভারে সোহাগ গাজীকে ক্রিজ থেকে বাইরে এসে মারতে গিয়ে স্টাম্পিং হন ইমরুল কায়েস (০)।

এরপর শোয়েব মালিক ফিরে যান থিতু হওয়ার আগেই। ১৪ বলে ১০ রান করে নাজমুল ইসলামের বলে আউট হন রুবেল হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে। ৭৫ রানের মাথায় তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে। লিটন দাস লড়াই করলেও তার ইনিংস লম্বা হয়নি। দলীয় ৯৫ রানের মাথায় ইসুরু উদানার অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের ডেলিভারি সুইপ করতে গিয়ে ক্যাচ দেন উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ মিঠুনকে। দারুণ ক্যাচ নেন মিঠুন।

লিটনের বিদায়ের পর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ভরসা ছিল ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান মারলন স্যামুয়েলস। কিন্তু তিনি ব্যাটিং করেন মন্থর গতিতে। জস বাটলার ১৬ বলে ২৬ রানের ইনিংস খেললেও তা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ইনিংসের জন্য যথেষ্ট ছিল না। রংপুর রাইডার্সের পেসার ইসুরু উদানার ওয়াইডিশ ইয়র্কারে একের পর এক পরাস্ত হয়েছেন কুমিল্লার ব্যাটসম্যানরা। যদিও বেশ কয়েকটি ডেলিভারিতে ওয়াইডের আবেদন করেছিলে স্যামুয়েলস।

ধীরে ধীরে রানের সাথে বলের পার্থক্যটা বাড়তেই থাকে। এক সময় ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফিল্ডিংয়ে দারুণ প্রাণবন্ত ছিলেন রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি। ৩০ বলে ২৭ রান করে বিদায় নেন স্যামুয়েলস। এরপর অন্যরা এসে উড়িয়ে শট মারলেও তা বাউন্ডারি পাড়ি দেয়নি। জমা পড়েছে ফিল্ডারদের হাতে। হাসান আলি করেন ৬। সাইফুদ্দিনের ব্যাট থেকে আসেনি কোনো রান। শেষ ওভারে তিন উইকেট নেন রুবেল হোসেন। ইনিংসের শেষ বলে আল-আমিনকে ফিরিয়ে দিয়ে কুমিল্লার কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন রুবেল হোসেন। ৩৬ রানের জয় নিশ্চিত করেন রংপুর রাইডার্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

রংপুর রাইডার্স: ১৯২/৩, ২০ ওওভার .
চার্লস ১০৫*, ম্যাককালাম ৭৮, গেইল ৩
হাসান আলি ১/২৩, সাইফউদ্দিন ১/৮

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সঃ ১৫৬/১০, ২০ ওভার
লিটন ৩৮, তামিম ৩৬, স্যামুয়েলস ২৭
রুবেল ৩/৩৪, বোপারা ২/১৭

ম্যাচসেরাঃ জনসন চার্লস

আরও পড়ুনঃ রাহীর লক্ষ্য এখন জাতীয় দল

 

Related Articles

রশিদকে নিয়ে ভাবতে মানা তামিমের

ত্রুটিই ধরা পড়ল আল-আমিনের বোলিংয়ে

তামিমের শুনানি আজ

টেস্ট নিয়ে তাড়াহুড়া নেই সাইফউদ্দিনের

আমরাই সেরা দল ছিলাম: তামিম