‘বেসিকটা নিয়ে কাজ করতে চাই’

Share Button

২০১৮ সালের ১৫ই জানুয়ারি শুরু হবে বাংলাদেশের নতুন বছরের প্রথম মিশন। শ্রীলঙ্কা, জিম্বাবুয়ের সাথে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও শ্রীলঙ্কার সাথে সিরিজের (টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি) জন্য টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসেবে বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজনকে দায়িত্ব দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর এই দায়িত্বে আসন্ন সিরিজে বোলারদের নিয়ে চমক দেখাতে চান সুজন।

 

ত্রিদেশীয় সিরিজে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর সুজন
ত্রিদেশীয় সিরিজে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর সুজন

 

Also Read - ক্রিকেটের চেয়েও বিয়ে গুরুত্বপূর্ণ!

খালেদ মাহমুদ সুজনের ভাষ্যমতে বাংলাদেশকে ম্যাচ জেতায় ব্যাটসম্যানরা। বোলারদের ক্ষেত্রে উদাহরণ হাতে গোনা কয়েকটি। এই প্রসঙ্গে সুজন বলেন, ‘আমার যেটা নিয়ে ভাবনা, সব সময় দেখা যায় ব্যাটসম্যানরা ম্যাচ জেতায়। তবে মুস্তাফিজের স্পেলে জিতেছি, মিরাজের স্পেলে জিতেছি। এরকম হাতে গোনা কিছু স্পেলও আছে। এটা নিয়ে ওদের সাথে কথা বলছি। নতুনরা তো সব সময় রোমাঞ্চ নিয়ে আসে। সেটাও একটা ব্যাপার। আমার কথা হলো, পারফরমারদের সব সময় সুযোগটা থাকবেই। এটা এখনি বলার সময় হয়নি। কিন্তু এতগুলা তরুণকে যখন ডাকা হয়েছে। ইতিবাচক কিছু তো আছেই। তারপরও অভিজ্ঞদের কথা ভুলে গেলে চলবে না।’

বোলারদের বেসিকটা নিয়ে কাজ করতে চান সুজন। তিনি আরো বলেন, ‘যখন স্কিল ট্রেনিং শুরু হয়ে যায় ব্যাটসম্যানরা অনেক সময় নিয়ে ব্যাটিং করে। পেসাররা অত সময় পায় না। সব ফরম্যাটেই বোলারদের দরকার হয় ব্যাটিং করার। টেল এন্ডে গিয়ে ১৫/২০ রান করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। ওদের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করছিলাম। আর বোলিং যেহেতু ৪ তারিখ থেকে শুরু করবে। মাত্রই ফার্স্ট ক্লাস শেষ করে এল, সবাই ওভারলোডেড। বেসিকটা নিয়ে কাজ করতে চাই, সুইং বোলিং নিয়ে কাজ করতে চাই।’

এদিকে প্রাথমিক ৩২ জনের স্কোয়াডে প্রথমবারের মতো সুযোগ পেয়েছেন কিছু তরুণ ক্রিকেটার। আর এদের নিয়ে রোমাঞ্চিত সুজন বলেন, ‘দল কেমন হবে, সেটা পরের ব্যাপার। আমি রোমাঞ্চিত। সবাই পারফর্ম করেছে, আবু হায়দার রনি কিংবা আবু জায়েদ রাহি; অফ স্পিনার হিসেবে মেহেদী, অপুরা আছে।’

[আরো পড়ুনঃ ‘দায়িত্বটা হেড কোচের মতোই’]

Leave A Comment