SCORE

Trending Now

বোলিং নিয়েই খুশি মিরাজ

মূলত তার পরিচয়, একজন অলরাউন্ডার। দলে আবির্ভাব ঘটেছিলও এই সত্তা বহন করেই। তবে জাতীয় দলে জায়গা পোক্ত করতে করতে বেশি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজের বোলার পরিচয়টাই।

বোলিং নিয়েই খুশি মিরাজ
অনুশীলনে মেহেদী হাসান মিরাজ। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

তবে আপাতত বোলিংয়ে ভালো করা নিয়েই সন্তুষ্ট আছেন তরুণ এই ক্রিকেটার। বুধবার জাতীয় দলের অনুশীলনের প্রথম দিনে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এমনটাই জানান তিনি।

দলের ব্যাটিং অর্ডারের বিন্যাসের কারণে মিরাজকে ব্যাট হাতে নামতে হয় অনেক দেরিতে। এ প্রসঙ্গে মিরাজ বলেন, ‘আসলে এখন বাংলাদেশ দলের যে ব্যাটিং অর্ডার আছে, সেখানে আমাকে অনেক দেরিতে ব্যাটিং করতে হয়। তবুও আমি খুশি তাতে। সুযোগ পেলে অবশ্যই ভালো কিছু করার চেষ্টা করবো। কিন্তু বর্তমানে কিছু হচ্ছে না। ইচ্ছা আছে বাংলাদেশ দলের হয়ে অনেক ম্যাচ খেলবো। একই সঙ্গে ব্যাটিংয়ের উন্নতি করে উপরে খেলার চেষ্টা করবো।’

Also Read - প্রথম দিনে 'মধুর সমস্যায়' মেহেদি

বোলিং নিয়েই নিজের সন্তুষ্টি প্রকাশ করে প্রতিভাবান এই ক্রিকেটার আরও বলেন, ‘এখন বোলার হিসেবে আছি। দুটাতেই ভালো করবো সুযোগ পেলে চেষ্টা করবো। তবে এ মুহূর্তে আমি খুশি, বোলিংটা ভালো হচ্ছে। বোলিংও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সামনে আমাকে আরো ভালো করতে হবে।’

সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে শ্রীলঙ্কা সিরিজে নিজেদের শতভাগ দিয়ে ভালো করার চেষ্টা করা হবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মিরাজ। তার ভাষ্য, ‘আসলে কেমন হবে সেটা তো আমি বলতে পারব না; কিন্তু চেষ্টা করব ভালো কিছু করার। ইনশাল্লাহ, আল্লাহ যেটা লিখে রেখেছেন সেটাই হবে। আমাদের চেষ্টা থাকবে শতভাগ দেয়ার। আশা করি, ভালো কিছুই হবে। আমাদের দলের সবাই কঠোর পরিশ্রম করছে। আজ থেকে ক্যাম্প শুরু হলো। সবাই পরিশ্রম করছে। সিরিজের আগে যে কয়দিন সময় পাই, আশা করি এই সময়ের মধ্যে নিজেদের তৈরি করতে পারব।’

নতুন অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়ক দলের প্রতি কী বার্তা রেখেছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে মিরাজ জানান- ‘আসলে সেভাবে কোন বার্তা নয়। সবাই যেমন কথা বলে তেমনি। খেলায় তো একজন অধিনায়ক থাকবেনই। সবার সাথে সবার যোগাযোগ খুবই ভালো। অধিনায়ক বা সহ-অধিনায়ক কোনো কিছু না। দিনশেষে কিন্তু দেখা যায় সবাই দেশের জন্যই খেলছেন। যেই অধিনায়ক হোক না কেন, তিনি তো দলের জন্যই খেলছেন, দেশের জন্যই খেলছেন।’

সিনিয়র ও অগ্রজরা মিরাজদের প্রেরণা জুগিয়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়তই, দিচ্ছেন ভালো করার তাড়না। ২০১৮ সালে ভালো ক্রিকেট উপহার দেওয়ার প্রত্যাশা করে মিরাজ বলেন, ‘সাকিব ভাই একটা কথা বলেছে যে, এ বছর আমাদের অনেক খেলা আছে। সবাই যেন ফিট থেকে নিজেদের সবটুকু দিতে পারি। সুজন স্যারও বলেছে, এইটা প্রথম ক্যাম্প এই বছরের। তো সবাই যেন ফিট থাকি। যার যতটুকু আছে তা যেন সব দিতে পারি। আমাদের সামনে অনেক খেলা। বাংলাদেশ আরও উপরে যেতে পারবে, যদি আমরা আমাদের ওইভাবে তৈরি করতে পারি। সে সময়টাই এখন আমাদের।’

এদিকে মেহেদী হাসান মিরাজের আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিষেক হয়েছিল গত বছর, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে। তার অসাধারণ নৈপুণ্যে ঐ সিরিজে ইংল্যান্ডকে বধ করেছিল বাংলাদেশ। আবির্ভাবেই ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দিয়ে হয়েছিলেন সিরিজের সেরা খেলোয়াড়। এর পর থেকে মিরাজের চমক দেখানো চলছেই। আর তার ভালো ক্রিকেটের উপহার হিসেবে মিরাজকে জমি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সম্প্রতি সেই জমির মালিকানা পুরোপুরি পেয়েছেন মিরাজ। এতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি তার ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতাও ঝরল সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে।

মিরাজ বলেন, ‘প্রথম সিরিজেই ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট। বাংলাদেশকে জিতিয়েছিলাম। আর সে উপলক্ষে আমাকে জমি দেয়া হয়েছে। এ কারণে প্রধানমন্ত্রীকে আমার এবং আমার পরিবারের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ। কারণ তিনি কথা দিয়ে কথা রেখেছেন। খুব ভালো লাগছে নিজের কাছেও। পরিবারের কাছেও অনেক ভালো লাগছে, এ রকম একটা বাসস্থান পাওয়া গেছে বলে।’

আরও পড়ুনঃ বিপ টেস্টে সবার থেকে এগিয়ে শান্ত

Related Articles

ছুঁরির নিচে যেতে হতে পারে মিরাজকে

‘খেলতে গেলে চোটে পড়তেই পারে’

ইনজুরির শিকার তাসকিন-মিরাজ

শিরোপার জন্য সেরাটাই দেবে আবাহনী

আক্ষেপ নেই মিরাজের