SCORE

Trending Now

শেষবেলায়ও আজমলের অভিযোগের তীর

বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে কম আলোচনার জন্ম দেননি। ক্রিকেটের অভিভাবকদের প্রতি প্রায়ই আনতেন নতুন নতুন অভিযোগ-অনুযোগ। সম্প্রতি ক্রিকেটকে জানিয়েছেন বিদায়। তবে ক্যারিয়ারের সূর্যাস্তের পরও অভিযোগ জানানো থেকে দূরে থাকলেন না পাকিস্তানের সাবেক স্পিনার সাঈদ আজমল।

শেষবেলায়ও আজমলের অভিযোগের তীর

এবার শচীন টেন্ডুলকার প্রসঙ্গে আইসিসির প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনেছেন সাঈদ আজমল। ২০১১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ব্যক্তিগত ২৩ রানের মাথায় সাঈদ আজমলের বলে ফ্লাইট মিস করেছিলেন টেন্ডুলকার। এতে এলবিডব্লিউ-এর আবেদন জানিয়েছিলেন আজমল। আম্পায়ার আউটের সংকেতও দিয়েছিলেন। কিন্তু রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান টেন্ডুলকার। এরপর প্রশ্ন ওঠে ডিআরএসের বল ট্র্যাকিং পদ্ধতি নিয়েই।

Also Read - ‘এটা নিয়ে আমি কথা বলতে চাই না’

সেই দিকে আঙুল তুলে সম্প্রতি সাঈদ আজমল বলেন, আমি নিশ্চিত ছিলাম ওকে আউট করেছি ওকে স্টাম্পের সামনেই পেয়েছিলাম কীভাবে আম্পায়াররা ওকে আউট দিল না, সেটা এখনো বুঝতে পারি না

বারবার আইসিসির আতশ কাঁচের নিচে যেতে হয়েছে বলে ক্যারিয়ারও বাঁধাগ্রস্ত হয়েছে। অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের দায়ে বারবার হয়েছেন অভিযুক্ত। একে তিনি আখ্যা দিচ্ছেন আইসিসির ‘নিষ্ঠুরতা’ হিসেবে- আমি আক্ষেপ নিয়ে বিদায় নিচ্ছি, কারণ আমি মনে করি, আইসিসি প্রটোকল অনেক নিষ্ঠুর এখনকার বোলারদের যদি পরীক্ষা করা হয়, আমি নিশ্চিত শতকরা ৯০ ভাগই ফেল করবেন’ 

ক্যারিয়ারে মোট দুইবার অবৈধ অ্যাকশনের দায়ে নিষিদ্ধ হতে হয়েছে আজমলকে। দুইবারই ফিরে এসেছেন আপ্রাণ চেষ্টায়, তবে সেই চেষ্টা তার ক্যারিয়ার থেকে কেড়ে নিয়েছিল বড় একটা সময়। আজমলের মতে, তার প্রতি আইসিসির এই ‘প্রহসন’ নিয়ে আরও লড়াই করা উচিত ছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের।

তিনি বলেন, অ্যাকশন চ্যালেঞ্জ করার পর পিসিবি আমার পাশে ছিল কিন্তু আমার মনে হয়, তারা ব্যাপারটা নিয়ে আরও অনেক কিছুই করতে পারত আমার উদাহরণ টেনে আইসিসির এই প্রটোকলের বিপক্ষে লড়তে পারত’ 

আরও পড়ুনঃ স্লো ওভার রেটের কারণে কুমিল্লার জরিমানা

Related Articles

এবার আইপিএল নিয়ে আফ্রিদির বেফাঁস মন্তব্য

টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের সাফল্যের কারণ আইপিএল!

আফ্রিদির মন্তব্যের জবাব দিলেন শচীন টেন্ডুলকার

কাশ্মীর ইস্যুতে মুখোমুখি কোহলি-আফ্রিদিরা

নিজ ভূমে উড়ন্ত পাকিস্তান