SCORE

সর্বশেষ

আশরাফুলকে দেখে ক্রিকেটে আগ্রহ আল-আমিনের

মোহাম্মদ আল-আমিন, ২৪ বছর বয়সী বাংলাদেশি ক্রিকেটার। সর্বশেষ বিপিএলে এই অলরাউন্ডার খেলেছেন চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে। জাতীয় দলের জার্সি এখনও গায়ে চাপাতে না পারলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি এক পরিচিত মুখ, যার আছে সমৃদ্ধ পরিসংখ্যান।

আশরাফুলকে দেখে ক্রিকেটে আগ্রহ আল-আমিনের

সম্প্রতি এই প্রতিভাবান ক্রিকেটার প্রিয়.কমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান তার ক্রিকেটার হয়ে ওঠার গল্প।

Also Read - কেন্দ্রীয় চুক্তির অবস্থান হারাচ্ছেন ধোনি

আল-আমিন জানান, তার ক্রিকেটার হওয়ার পেছনে অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। এছাড়া নিজ এলাকার ‘বড়ভাই’ মার্শাল আইয়ুবও রেখেছেন প্রভাব।

আল-আমিন বলেন, ‘আমি যে এলাকাতে থাকি, মার্শাল আইয়ুব ভাইয়ের বাসা একই এলাকায়। আমার বাসা থেকে ওনার বাসা কাছেই, হেঁটে গেলে দুই মিনিটের মতো লাগে। ছোটবেলায় দেখতাম, উনি ব্যাগ নিয়ে অনুশীলন করতে যাচ্ছেন। কিছুদিন পরপর পেপারে ওনার নাম দেখতাম। তখন থেকে আসলে খেলার জন্য খুব ইচ্ছা।’

আশরাফুলের কথা জানিয়ে আল-আমিন বলেন, ‘এছাড়া আমি মোহাম্মদ আশরাফুলের খেলার বড় ভক্ত। ওনাকে দেখার পরই আগ্রহটা আরও বেড়েছে। এরপর ক্রিকেটার হওয়াটা লক্ষ্যে পরিণত হয়। ২০০৫ সালে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজে আশরাফুল ভাইয়ের সেঞ্চুরিটা দেখার পর আরও বেশি অনুপ্রাণিত হই।’

ক্রিকেটের প্রতি আল-আমিনের ডেডিকেশন ছোটবেলা থেকেই। ভদ্রলোকের খেলা নেশা-পেশা হিসেবে গ্রহণ করার পথে ঘটিয়েছেন অনেক অদ্ভুত ঘটনা। এমনকি অনুশীলন করতে গিয়ে মাত্রাতিরিক্ত পরিশ্রমে অজ্ঞান হয়েও পড়ে গিয়েছিলেন!

এ প্রসঙ্গে আল-আমিন বলেন, ‘প্রথম যেদিন অনুশীলনে যাই, তখন কোচ এক সিনিয়র ভাইকে বলছিলেন, তার ফিটনেস ততটা ভাল না। এ জন্য কোচ তাকে বেশি বেশি রানিং করার পরামর্শ দিলেন। স্যার ওনাকে বললেও আমি ধরে নিয়েছিলাম, স্যার সবাইকে রানিং করার জন্যই বলেছেন। এরপর থেকে আমি প্রতিদিনই রানিং করতাম। একদিন প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছিল। সেদিন আর ব্যাটিং-বোলিং করার উপায় ছিল না। এ সময় চিন্তা করলাম স্যার যেহেতু বলছে, আমি রানিং করি। রানিং করতে গিয়ে পল্টন মাঠে ২২টি চক্কর দেই। কিন্তু পরের চক্কর দিতে গিয়েই আমি অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাই। এরপর যখন জ্ঞান ফেরে, স্যার জানতে চাইলেন কী হয়েছিল? সবটা শোনার পর স্যার বললেন, তোমার তো মাত্রই ক্রিকেট শুরু। ফিটনেস নিয়ে সমস্যা নেই তোমার। তোমার রানিং করার দরকার নাই। এরপর থেকে আমি বললেই রানিং করবা, না বললে রানিং করার প্রয়োজন নাই।’

আরও পড়ুনঃ বিসিএলের জন্য ক্যাম্প ছাড়ছেন আট ক্রিকেটার

Related Articles

বিসিবি ও চিটাগং ভাইকিংসকে সিকান্দার রাজার ‘ধন্যবাদ’

ব্যর্থতার কারণ জানেন না রনকিও

বড় জয়ে শেষ চারের লড়াইয়ে টিকে রইলো নাসিররা

এক ম্যাচে নাসিরের দুই মাইলফলক স্পর্শ

ভাইকিংসের ব্যর্থতায় দেশিদের দুষলেন নান্নু