SCORE

সর্বশেষ

এবার কাঠগড়ায় মেলবোর্নের পিচ

ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার ঐতিহাসিক ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জয় আর হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়লেও ম্যাচ শেষে ছিল একটি দুঃসংবাদ। সংস্কারের মধ্য দিয়ে যাওয়া মিরপুরের উইকেট নিয়ে ঐ ম্যাচের পর অসন্তোষ প্রকাশ করেছিল আইসিসি। এবার একই বিষয় ঘটল মেলবোর্নের পিচ নিয়েও।

ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার ঐতিহাসিক ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জয় আর হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়লেও ম্যাচ শেষে ছিল একটি দুঃসংবাদ। সংস্কারের মধ্য দিয়ে যাওয়া মিরপুরের উইকেট নিয়ে ঐ ম্যাচের পর অসন্তোষ প্রকাশ করেছিল আইসিসি। এবার একই বিষয় ঘটল মেলবোর্নের পিচ নিয়েও। সদ্য শেষ হয়েছে অ্যাশেজের চতুর্থ ও বক্সিং ডে টেস্ট, যার ভেন্যু ছিল মেলবোর্ন। ইংল্যান্ডের দাপট সত্ত্বেও ম্যাচটি ড্র করতে সক্ষম হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। টানা তিন ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের পর ড্র-টাই ছিল অস্ট্রেলিয়ার স্বস্তি। কিন্তু ম্যাচ শেষ হলেও শেষ হয়নি সেটি নিয়ে বিতর্ক। মেলবোর্নের ঐ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বলেছিলেন, ‘পাঁচদিনেও পিচের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আমার মনে হয় আমরা যদি আগামী কয়েকদিনও এখানে খেলতে থাকি, তারপরও পিচে কোনো পরিবর্তন আসবে না। এমন পিচ টেস্ট খেলার জন্য মোটেও উপযোগী নয়।’ ইংলিশ ক্রিকেটার জো রুট বলেছিলেন, ‘এটি বক্সিং-ডে টেস্ট খেলার জন্য নয়। এমন পিচে কোনো ফলাফল আশা করা বা ফলাফলের জন্য লড়াই করা বোকামি। জয়ের জন্য আমরা আমাদের সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করে দিয়েছি। কিন্তু এমন পিচে ফলাফল পাওয়া কঠিন।’ অংশগ্রহণকারী দলের খেলোয়াড়দের পর এবার অভিযোগ এনেছে খোদ আইসিসি। ম্যাচে ১০৮১ রানের বিপরীতে উইকেট পড়েছিল মাত্র ২৪টি। পিচের এমন অদ্ভুত আচরণ দেখে আইসিসির কাছে রিপোর্ট করেন ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাধুগালে। তার রিপোর্টে তিনি বলেন, ‘এই পিচে বাউন্স কম হয়েছে। বোলাররা সুইং-এর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। এ ছাড়া বোলারদের পেসের গতিও কম লক্ষ্য করা গেছে। পাঁচদিনেও পিচের কোনো পরিবর্তন হয়নি। এটি বোলারদের কোনো সহায়তা করতে পারে না। তাই ব্যাটসম্যানদের সাথে বোলারদের লড়াই হবার কোনো উপায়ও দেখা যায়নি।’ মাধুগালের এমন কথায় কর্ণপাত না করে উপায় ছিল না আইসিসির। আর তাই ম্যাচের উইকেট নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এ নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সান্ডারল্যান্ডের ভাষ্য, ‘বক্সিং-ডে টেস্টে মেলবোর্নের পিচের এমন আচরণ খুবই হতাশার। আইসিসি পরামর্শ নিয়ে আমরা বোর্ড থেকে পিচ নিয়ে নতুনভাবে কাজ করবো, যাতে ভবিষ্যতে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।’

সদ্য শেষ হয়েছে অ্যাশেজের চতুর্থ ও বক্সিং ডে টেস্ট, যার ভেন্যু ছিল মেলবোর্ন। ইংল্যান্ডের দাপট সত্ত্বেও ম্যাচটি ড্র করতে সক্ষম হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। টানা তিন ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের পর ড্র-টাই ছিল অস্ট্রেলিয়ার স্বস্তি। কিন্তু ম্যাচ শেষ হলেও শেষ হয়নি সেটি নিয়ে বিতর্ক।

Also Read - ওয়ানডেতে সম্ভব ত্রিশতকও!

মেলবোর্নের ঐ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বলেছিলেন, ‘পাঁচদিনেও পিচের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আমার মনে হয় আমরা যদি আগামী কয়েকদিনও এখানে খেলতে থাকি, তারপরও পিচে কোনো পরিবর্তন আসবে না। এমন পিচ টেস্ট খেলার জন্য মোটেও উপযোগী নয়।’

ইংলিশ ক্রিকেটার জো রুট বলেছিলেন, ‘এটি বক্সিং-ডে টেস্ট খেলার জন্য নয়। এমন পিচে কোনো ফলাফল আশা করা বা ফলাফলের জন্য লড়াই করা বোকামি। জয়ের জন্য আমরা আমাদের সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করে দিয়েছি। কিন্তু এমন পিচে ফলাফল পাওয়া কঠিন।’

অংশগ্রহণকারী দলের খেলোয়াড়দের পর এবার অভিযোগ এনেছে খোদ আইসিসি। ম্যাচে ১০৮১ রানের বিপরীতে উইকেট পড়েছিল মাত্র ২৪টি। পিচের এমন অদ্ভুত আচরণ দেখে আইসিসির কাছে রিপোর্ট করেন ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাধুগালে।

তার রিপোর্টে তিনি বলেন, ‘এই পিচে বাউন্স কম হয়েছে। বোলাররা সুইং-এর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। এ ছাড়া বোলারদের পেসের গতিও কম লক্ষ্য করা গেছে। পাঁচদিনেও পিচের কোনো পরিবর্তন হয়নি। এটি বোলারদের কোনো সহায়তা করতে পারে না। তাই ব্যাটসম্যানদের সাথে বোলারদের লড়াই হবার কোনো উপায়ও দেখা যায়নি।’

মাধুগালের এমন কথায় কর্ণপাত না করে উপায় ছিল না আইসিসির। আর তাই ম্যাচের উইকেট নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এ নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সান্ডারল্যান্ডের ভাষ্য, ‘বক্সিং-ডে টেস্টে মেলবোর্নের পিচের এমন আচরণ খুবই হতাশার। আইসিসির পরামর্শ নিয়ে আমরা বোর্ড থেকে পিচ নিয়ে নতুনভাবে কাজ করবো, যাতে ভবিষ্যতে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।’

আরও পড়ুনঃ সাব্বির-তামিমের দুই বিপরীত সাজা

Related Articles

পরাজয়ের বৃত্তে বন্দী অস্ট্রেলিয়া

দুই ম্যাচ হাতে রেখেই ইংলিশদের সিরিজ জয়

রেকর্ড বই ওলট-পালট করে দিল ইংল্যান্ড

ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের রেকর্ড গড়ল ইংল্যান্ড

ছিটকে গেলেন ওকস এবং স্টোকস