SCORE

সর্বশেষ

মাইলফলকের সামনে রাজ্জাক

নতুন এক মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক। দেশের ক্রিকেটের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পাঁচশো উইকেটের মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন তিনি।

এনসিএল শেষ করে রাজ্জাক বিসিএল শুরু করেছিলেন নামের পাশে ৪৯০টি উইকেট নিয়ে। বিসিএলের প্রথম রাউন্ডে তিনি শিকার করেছেন আরও ছয়টি উইকেট। এতে তার মোট উইকেট সংখ্যা এখন ৪৯৬। আর চারটি উইকেট শিকার করলেই তিনি স্পর্শ করবেন নতুন মাইলফলক, যা তার আগে ছুঁতে পারেননি দেশের কেউ।

Also Read - ডিপিএলের আইকন তালিকায় বিজয়, বাদ সাব্বির

বিসিএলের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচটি ছিল রাজ্জাকের ক্যারিয়ারের ১১২তম প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। জাতীয় দলে এখন আর জায়গা পান না রাজ্জাক, তবে কমেনি বোলিংয়ের ধার। মোট ৩০ বার ইনিংসে পাঁচ বা তারও বেশি উইকেট পাওয়া রাজ্জাক এখন পর্যন্ত নিজের শেষ ইনিংসেও পেয়েছেন ছয়টি উইকেট।

বিসিএলের গত আসরেও রাজ্জাক ছিলেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। সেবার ৬ ম্যাচে তিনি নিয়েছিলেন ৩৮ জন ব্যাটসম্যানের উইকেট। ২০১৪ সালের আগস্টে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে শেষবারের মতো খেলেছিলেন রাজ্জাক। এরপর আর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বল হাতে দেখা যায়নি তাকে।

বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে একটা সময় রাজ্জাক অপরিহার্য অংশ হলেও টেস্টে নিয়মিত ছিলেন না তিনি। ১২টি টেস্ট খেলে তার সংগ্রহে ২৩টি উইকেট। অর্থাৎ ৪৯৬ উইকেটের ৪৭৩টি উইকেটই রাজ্জাক পেয়েছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে।

২০০৪ সালের জুলাইয়ে হংকংয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আবির্ভাব ঘটে আব্দুর রাজ্জাকের। ২০০৬ সালের এপ্রিলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘটে টেস্ট অভিষেক। এরপর টেস্ট দলে সুবিধে করতে না পারলেও ওয়ানডে দলে নিয়মিত হয়ে উঠেন তিনি। একটা সময় পরিণত হন দলের সেরা স্পিনারে। যদিও সাকিব আল হাসানের আবির্ভাবের পর তার কাছে রাজ্জাককে হারাতে হয় শ্রেষ্ঠত্ব। একটা সময় ফর্ম পড়তির দিকে চলে গেলে নির্বাচকদের দৃষ্টির বাইরেও চলে যান, ফলে জায়গা হারান জাতীয় দলে।

আরও পড়ুনঃ তামিমকে দলে পেতে আগ্রহী প্রীতি জিনতা!

Related Articles

উইন্ডিজ সফরের টেস্ট স্কোয়াডে ‘ইন-আউট’ যারা

দ্বিগুণেরও বেশি বাড়ল রাজ্জাকদের বেতন

সাকিবের পাশে থিতু হতে চান অপু

রাজ্জাকের স্পিন ঘূর্ণিতে চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণাঞ্চল

‘যেখানেই খেলি না কেন ভালো খেলতে হবে’