SCORE

সর্বশেষ

জিয়াউর রহমানের ব্যাটে ভর করে জিতল শেখ জামাল

চলমান ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে স্বস্তির জয় পেয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। সোমবার প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে নুরুল হাসান সোহানের নেতৃত্বাধীন দলটি।

জিয়াউর রহমানের ব্যাটে ভর করে জিতল শেখ জামাল

ফতুল্লাহর খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় প্রাইম ব্যাংক। নির্ধারিত ৫০ ওভারে সবকটি উইকেট হারানোর বিনিময়ে দলটি সংগ্রহ করে ২২৭ রান।

Also Read - ইরফান-রকিবুলের ব্যাটে মোহামেডানের বিশাল জয়

ওপেনার শাহনাজ আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে দিনের শুরুতে দলকে শুভসূচনা এনে দিয়েছিলেন অধিনায়ক মেহেদি মারুফ। যদিও দলীয় ৪৯ রানে শাহনাজের উইকেটের পতন ঘটে। এরপর দলীয় ৭৬ ও ব্যক্তিগত ৪১ রানে সাজঘরে ফেরেন মারুফও। দুই ওপেনারের বিদায়ের পর ক্রমশ শ্লথ হতে থাকে রানের গতি। তাদের ধারাবাহিকতায় প্রায় সব ব্যাটসম্যানই ব্যাট হাতে বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে সক্ষম হননি। এতে মূল কৃতিত্ব ছিল শেখ জামালের বোলিং ইউনিটের।

দলের পক্ষে মেহেদি মারুফের ৪১ রানই ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর। এছাড়া শেষদিকে সাজ্জাদ হক করেন ৩৫ রান। শেখ জামালের পক্ষে রবিউল হক একাই শিকার করেন তিনটি উইকেট। এছাড়া আবু জায়েদ রাহী ও ইলিয়াস সানি দুটি এবং নাজমুল ইসলাম ও সোহাগ গাজী একটি করে উইকেট শিকার করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শেখ জামালকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার। সৈকত আলী ও জিয়াউর রহমানের অনবদ্য ৭০ রানের উদ্বোধনী জুটিতেই জয়ের ভিত পেয়ে যায় শেখ জামাল। ৩৯ রান করে সৈকত ফিরে গেলেও একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকেন জিয়াউর। শেষপর্যন্ত তিনিই হয়েছেন দলের জয়ের নায়ক। তার ৬৭ রানের ইনিংসে ভর করেই ৩২ বল ও ৫ উইকেট হাতে থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় শক্তিশালী দলটি। সৈকতের মতো বিদেশি খেলোয়াড় দিগ্বিজয়ের ব্যাট থেকেও আসে ৩৯ রান।

প্রাইম ব্যাংকের পক্ষে মনির হোসেন দুটি উইকেট শিকার করেন। শেখ জামালের জিয়াউর রহমান নির্বাচিত হন ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

প্রাইম ব্যাংক ২২৭ (মারুফ ৪১, সাজ্জাদ ৩৫, রবি ৩৪/৩)

শেখ জামাল ২২৯/৫ – ৪৪.৪ ওভার (জিয়া ৬৭, সৈকত ৩৯, মনির ৩৮/২)

ফল- শেখ জামাল ৫ উইকেটে জয়ী।

আরও পড়ুনঃ ক্রিকইনফোর সেরাদের তালিকা প্রকাশ

Related Articles

উপরের দিকে চোখ শান্ত’র

অসুস্থ রুবেল, দোয়া চাইলেন সবার কাছে

বোলিং অ্যাকশন নিয়ে বাড়ছে সচেতনতা

দুঃসময়ে তরুণদের পাশে মাশরাফি

নির্ভার থাকার জন্যই অধিনায়কত্ব করেননি মাশরাফি