শ্রীলঙ্কায় শুরু হচ্ছে নতুন টি-টোয়েন্টি লিগ

বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বে তুমুল জনপ্রিয় ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ। যার মধ্যে ভারতের আইপিএল, অস্ট্রেলিয়ার বিগব্যাশ, বাংলাদেশের বিপিএল, ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি ব্ল্যাস্ট অন্যতম। অন্যান্য টেস্ট খেলুড়ে দেশের মতো শ্রীলঙ্কাও ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজন করতে যাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কার এই টি-টোয়েন্টি লিগের নাম দেয়া হয়েছে লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগ (এলপিএল)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী অ্যাশলে ডি সিলভা। শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের আন্তর্জাতিক খেলা না থাকা সময়ে আয়োজিত হবে এই টি-টোয়েন্টি লিগ।

Also Read - আকবরের অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে জয় পেল কলাবাগান

লঙ্কানদের এই লিগে থাকবে ছয়টি ফ্র্যাঞ্চাইজি। গ্রুপ পর্বে প্রতিটি দল একে অপরের সাথে দুইবার করে মুখোমুখি হবে। গত সপ্তাহে এই লিগ আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। এক সপ্তাহ পরেই (১৬ ফেব্রুয়ারি) বিষয়টি নিশ্চিত করলো তারা। প্রাথমিকভাবে চলতি বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের পরিকল্পনা করছে শ্রীলঙ্কা।

এদিকে আগামী মাসে শ্রীলঙ্কায় তিন জাতির টুর্নামেন্ট ‘নিদাহাস ট্রফি’ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার পাশাপাশি বাংলাদেশ ভারত অংশ নিবে। গ্রুপ পর্বে প্রতিটি দল চারটি করে ম্যাচ খেলবে।

উল্লেখ্য, এর পূর্বে ২০১১-১২ মৌসুমে শ্রীলঙ্কান প্রিমিয়ার লিগ (এসএলপিএল) নামে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক একটি টি-টোয়েন্টি লিগের আয়োজন করেছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। তবে তা চালিয়ে যেতে পারে নি। প্রথম আসরের পরেই অর্থ সংকটে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল এসএলপিএল। সেবার বাংলাদেশ জাতীয় দলের কয়েকজন ক্রিকেটার অংশ নিয়েছিলেন এসএলপিএলে।

[আরও পড়ুনঃ শেষ ভালোতে বিশ্বাসী বাংলাদেশ
ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার কাছে ত্রিদেশীয় সিরিজ, টেস্ট সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও লঙ্কানদের কাছে হেরেছে স্বাগতিকরা। টানা হারের বৃত্ত থেকে যেন বেরই হতে পারছেনা বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা ভালো করলেও বোলিং ব্যর্থতায় শ্রীলঙ্কার কাছে বড় ব্যবধানে হারতে হয় বাংলাদেশকে। ঘরের মাঠে স্বাগতিকদের এমন ছন্দপতনে খানিকটা অবাক হয়েছেন নিজেদের সাবেক ও শ্রীলঙ্কার বর্তমান প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সিরিজের প্রথম ম্যাচ হেরে টি-টোয়েন্টিতে সিরিজ জয়টা যেন হাতছাড়া হয়ে গেছে বাংলাদেশের। তবে শেষ ম্যাচে ভালো করে ঘুরে দাঁড়াতে চায় টাইগাররা। ম্যাচের আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর কথা বলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।]