SCORE

সর্বশেষ

হারের কারণ ব্যাখ্যা রিয়াদের

হারের বৃত্ত থেকে যেন বেরই হতে পারেনি বাংলাদেশ দল। ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ে-শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা করলেও বাকিটা যেন আক্ষেপের গল্প। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল সহ শেষ দুই ম্যাচে লঙ্কানদের কাছে হারে বাংলাদেশ। সেই সাথে হারে টেস্ট সিরিজও। বাকি ছিল দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সেই সিরিজকে ঘিরে তরুণদের নিয়ে দল ঘোষণা করেছিলো বিসিবি।

হারের কারণ ব্যাখ্যা রিয়াদের

প্রথম ম্যাচেই চার তরুণ ক্রিকেটার, জাকির হাসান, আফিফ হোসেন, নাজমুল অপু, আরিফুল হককে অভিষেক করেছিলো টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে তারুণ্যনির্ভর দলেও প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে।  জাকির, আফিফ ব্যাট হাতে ছিলেন ব্যর্থ। সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে চার পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ, অভিষেক হয় দুই ক্রিকেটারের।

Also Read - সাকিবকে মিস করেছে বাংলাদেশ

ইনজুরি কাটিয়ে তামিম ইকবাল দলে ফেরাতে বাদ পড়তে হয় জাকিরকে।  সেই সাথে বাদ পড়েন আফিফ, সাব্বির ও রুবেল। শেষ ম্যাচটি জিততে অঢেল পরিবর্তন নিয়ে আসে টিম ম্যানেজমেন্ট। একজন স্পিনার মেহেদি হাসান ও আরেকজন পেসার আবু জায়েদ রাহী। দুই অভিষিক্ত ক্রিকেটারই ছিলেন ব্যর্থ।

৪ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে রাহী পেয়েছেন একটি উইকেট অন্যদিকে অভিষেক ম্যাচেই উইকেটশূন্য থাকতে হয়েছে মেহেদিকে। দুই ম্যাচেই একাধিক পরিবর্তন করেছে বাংলাদেশ। ফলে দ্বিতীয় ম্যাচেও হারতে হয়েছে স্বাগতিকদের। একাধিক পরিবর্তনই দলের হারের মূল কারণ? অবশ্য সেটি মানতে নারাজ বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সংবাদ সম্মেলনে সেটিকে কোন বড় ইস্যু মানছেন না তিনি।

“আমার মনে হয় না এটার পেছনে বেশি পরিবর্তনের কোনো প্রভাব রয়েছে। যাদের সুযোগ দেওয়া হয়েছে তারা দলে আসার দাবি রাখে। চেষ্টা করছি ঠিক কম্বিনেশনটা তৈরি করতে, এর খোঁজে আছি এখনো।”

ত্রিদেশীয় সিরিজের আগেই দল গোছানো নিয়ে স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছিলো বিসিবির পক্ষ থেকে। ত্রিদেশীয় সিরিজে সব ধরণের পরিবর্তনের কাজে প্রাধান্য দিয়েছে অধিনায়কের মতকে। সাকিব না থাকায় অধিনায়কের দায়িত্ব এসে পড়ে রিয়াদের কাঁধেই। তবে টি-টোয়েন্টিতেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। একাদশ পরিবর্তনে টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে পূর্ণ সহযোগিতা পেয়েছিলেন রিয়াদ।

“টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে আমাকে স্বাধীনতা দেওয়া ছিল। আমরা নিজেদের মধ্যে কথা বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দলের জন্য যেটা ভালো মনে হয়েছে, যারা কোচিং স্টাফ ছিলেন, সবার পরামর্শেই দলটা করা হয়েছে। চাপিয়ে দেওয়া কিছু ছিল না।”

আরও পড়ুনঃ কোবরা দেখিয়ে শেষ করলো শ্রীলঙ্কা

Related Articles

কারস্টেনের দৃষ্টি বিশ্বকাপে

সাদা ও লাল বলের জন্য পৃথক কোচ!

কারস্টেন ব্যর্থ হলেও প্রস্তুত আছেন কোচ!

উইন্ডিজ সফরের আগেই নতুন কোচ

‘র‍্যাঙ্কিং নয়, সিরিজ জয় নিয়েই ভাবনা’