SCORE

সর্বশেষ

অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে যারা

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে নাজুক অবস্থা অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটে। এলোমেলো জাতীয় দল। অধিনায়ক, সহ অধিনায়ক বরখাস্ত হয়েছেন। অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ও সহ অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার পেয়েছেন এক বছরের নিষেধাজ্ঞা। অন্যদিকে ব্যাটসম্যান ক্যামেরন ব্যানক্রফট পেয়েছেন নয় মাস ক্রিকেট আঙ্গিনায় না থাকার শাস্তি।

সবকিছুর বেশ আড়ালেই ছিলেন কোচ। তাঁর বিরুদ্ধে প্রথম দিকে অভিযোগ উঠলেও নির্দোষ প্রমাণিত হন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এর তদন্তে। এসব কিছুর মধ্যে চুপচাপই ছিলেন কোচ ড্যারেন লেহম্যান। তিনি পদ ছাড়বেন না বলে জানিয়েও দিয়েছিলেন। কিন্তু স্মিথের চোখের অশ্রু দেখে আর টিকে থাকতে পারলেন না। শেষপর্যন্ত ছেড়ে দিলেন অস্ট্রেলিয়ার কোচিংয়ের দায়িত্ব।

Also Read - ঢাবিতে প্রীতি ম্যাচ উপভোগ করলেন মাশরাফি

বর্তমান কোচ ড্যারেন লেহম্যান সরে যাওয়ার পরই গুঞ্জন শুরু হয়ে যায়, চলমান দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার কোচ কে হবেন তা নিয়ে। কার হাতে উঠবে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব সেটা নিয়ে চলে আলোচনা পর্যালোচনা। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে এখন এটাই মূল আলোচনার বিষয় বলেই ধরে নেয়া যায়।

তবে অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার দৌড়ে শোনা যাচ্ছে বেশ কয়েকজনের নাম। টিম পেইনদের কোচ হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন সাবেক ওপেনার জাস্টিন ল্যাঙ্গার। অনেক দিন ধরেই তার নাম শোনা যাচ্ছিল লেহম্যানের উত্তরসূরি হিসেবে। আগে থেকেই বলা হচ্ছিল, ২০১৯-এর অ্যাশেজ সিরিজের পরপরই ল্যাঙ্গারের হাতেই দায়িত্ব তুলে দেওয়ার কথা ছিল লেহম্যানের। কিন্তু তার অনেক আগেই বল-টেম্পারিং কেলেঙ্কারির ফলে লেহম্যান পদত্যাগ করায় এখন সেই ল্যাঙ্গারের নামই উঠে আসছে বারবার।

২০১৬ সালে লেহম্যান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যেতে না পারায় ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার এই সাবেক টেস্ট ক্রিকেটারই দলের কোচের দায়িত্বে ছিলেন। এ ছাড়াও দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে একাধিক দলের কোচের দায়িত্ব পালন করার অভিজ্ঞতা রয়েছে ল্যাঙ্গারের। পার্থ স্কোর্চার্সকে তিনবার বিগব্যাশ লিগ চ্যাম্পিয়ন করেছেন তিনি। এই অভিজ্ঞতার জন্যই ল্যাঙ্গারকে এগিয়ে রাখা হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাদ যান নি সাবেক কাপ্তান রিকি পন্টিং। জাস্টিন ল্যাঙ্গারের পর এই পদের জন্য সবচেয়ে বেশি এগিয়ে রয়েছেন ২০০৭ বিশ্বকাপজয়ী এই সফল অধিনায়ক। এর আগে পুরো সময়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার দায়িত্ব নিতে না চাইলেও পরে জাতীয় দলের কোচ হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন ‘পান্টার’। গত বছর শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে লেহম্যানের সহকারী হিসেবে দলের সঙ্গেও ছিলেন।

কিছুদিন আগেই শেষ হওয়া নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার ত্রিদেশীয় সিরিজেও একই ভূমিকায় দেখা যায় পন্টিংকে। আইপিএলে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের কোচ হিসেবে নিয়োগ পাওয়া পন্টিংকে এবার সহকারী থেকে প্রধান কোচের পদেও আনা হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা।

তবে গত বছর থেকে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে যে দুই ফরম্যাটের জন্য আলাদা কোচের ভাবনা শুরু হয়েছে, তাতে এই দু’জনকে লাল বলের ও সাদা বলের ক্রিকেটের দায়িত্ব আলাদাভাবে দেওয়া হতেও পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে। সত্যিই সে রকম হলে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়াকে কোচিং করাতে রাজি আছেন বলে ঘনিষ্ঠ মহলে আগেই জানিয়ে রেখেছেন পন্টিং।

অন্যদিকে পন্টিং-ল্যাঙ্গার ছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার দৌড়ে নাম শোনা যাচ্ছে সাবেক পেসার জ্যাসন গিলেস্পিরও। এ বছর বিগব্যাশ লিগে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকারকে প্রথম শিরোপা এনে দেওয়ার পেছনে এই সাবেক পেসারের ভূমিকা অনেক। অতীতে তিনি অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি দলের সহকারী কোচ হিসেবেও কাজ করেছেন। আপাতত ইংলিশ কাউন্টি সাসেক্সের তিন বছরের চুক্তির প্রস্তাব পেলেও জাতীয় দলের দায়িত্ব পাওয়ার আশায় এই চুক্তিতে এখনও সই করেননি। ২০১৫ সালে ইংল্যান্ডের কোচের দৌড়েও ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ট্রেভর বেলিসই জেতেন সেই দৌড়ে।

এবার অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার দৌড়েও বেইলিসের নাম শোনা যাচ্ছে। সঙ্গে ডেভিড সাকের, ব্র্যাড হাডিন, ক্রিস রজার্সের নামও উঠছে। কিন্তু এত নামের ভিড়ে শেষ পর্যন্ত কে যে কোচ হন, সেটাই দেখার বিষয় এখন।

এর আগে ২৯ মার্চ পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে লেহম্যান জানান, ‘খেলোয়াড়দের বিদায় বলার মতো কঠিন কাজটি আমি কখনোই করতে পারিনি। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সরে দাঁড়ানোর এটাই উপযুক্ত সময়। এই দলটাকে সাম্প্রতিক সময়ে খুবই নেতিবাচকভাবে দেখা গেছে এবং আমরা যেভাবে খেলছি তার কিছু দর্শনে পরিবর্তন আনা দরকার। তারা একটি ভুল করেছে। খেলাটাকে সম্মান করা, এটির ঐতিহ্য ও বিশ্ব জুড়ে ক্রিকেট যেভাবে নিজের অবস্থান ধরে রেখেছে তা বুঝতে পারা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৩ অ্যাশেজের আগে অস্ট্রেলিয়ার কোচের দায়িত্ব নেন লেহম্যান। ২০১৫ বিশ্বকাপ, টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে এক নম্বর অবস্থান, অ্যাশেজ জয়সহ অসংখ্য সাফল্য আসে লেহম্যানের অধীনে।

 

আরো পড়ুনঃ

Related Articles

নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করবেন না স্মিথ, ব্যানক্রফট

অস্ট্রেলিয়াকে ছাপিয়ে ২ লাখ ডলার নিউজিল্যান্ডের

ওয়ার্নার-ডি কক কাণ্ডে নতুন বিতর্ক

বক্সিং ডে টেস্টে থাকছেন না স্টার্ক

চতুর্থ টেস্টের অস্ট্রেলিয়া দল ঘোষণা