SCORE

Trending Now

রেকর্ড গড়ে অবশেষে এলো স্বস্তির জয়

কলম্বোয় চলমান নিদাহাস ট্রফির তৃতীয় ও নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। নিজেদের টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে এটিই টাইগারদের সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের ঘটনা।

অবশেষে এলো স্বস্তির জয়

প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২১৪ রানের পাহাড় দাঁড় করে শ্রীলঙ্কা। জবাবে খেলতে নেমে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল লিটন কুমার দাস এবং শেষদিকে মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদের দৃঢ় ব্যাটিংয়ে জয়ের দেখা পায় বাংলাদেশ।

Also Read - জবাবদিহিতা নেই নির্বাচকদের!

টস হেরে ব্যাট করতে নামার আগে লঙ্কান অধিনায়ক দীনেশ চান্দিমালই বলেছিলেন, টস জিতলে তিনি নিতেন ব্যাটিংই। টস হারায় তাই কোনো মানসিক খেসারত দিতে হয়নি শ্রীলঙ্কাকে। অধিনায়কের কথা যে ভুল ছিল না, সেই প্রমাণ রেখে শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানরা খেলতে থাকেন চওড়া ব্যাটে। ২৬ রান করা গুনাথিলাকার বিদায়ে ৫৬ রানে স্বাগতিকদের প্রথম উইকেটের পতন ঘটলেও বিপদ ঘটতে দেননি কুশল মেন্ডিস ও কুশল পেরেরা। যদিও দুজনের বিদায়ের পর কিছুটা চাপে পড়তে পারত শ্রীলঙ্কা, তবে ততক্ষণে ইনিংসই চলে এসেছে শেষের পথে। সাজঘরে ফেরার আগে কুশল মেন্ডিস ৫৭ ও কুশল পেরেরা ৭৪ রান করেন। অন্যান্যদের মধ্যে উপুল থারাঙ্গা অপরাজিত ২০ রান করেন।

নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারানো শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ দাঁড়ায় ২১৪ রান। বাংলাদেশের পক্ষে মুস্তাফিজুর রহমান তিনটি এবং মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ দুটি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া একটি উইকেট লাভ করেন তাসকিন আহমেদ।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। দুজনে মিলে উদ্বোধনী জুটিতে যোগ করেন ৭৪ রান। দলীয় ৭৪ রানে ১৯ বলে ৪৩ রান (দুটি চার ও পাঁচটি ছক্কা) করা লিটন বিদায় নেওয়ার একটু পর সাজঘরে ফিরতে হয় ২৯ বলে ৪৭ রান (ছয়টি চার ও একটি ছক্কা) করা তামিম ইকবালকে। তবে এই দুজনের বিদায়ে বাংলাদেশ যে লড়াইয়ের ভিত পায়, তাই দলকে যোগায় বাড়তি সাহস।

ওয়ান ডাউনে ক্রিজে নেমে বলের সাথে পাল্লা দিয়ে ম্যাচ অনুযায়ী রান নিতে পারেননি সৌম্য সরকার। ২২ বলে ২৪ রান করে তিনি বিদায় নিলে একটু চাপ ঘিরে ধরে বাংলাদেশকে। তবে এরপর দলকে আলোর পথ দেখান মুশফিকুর রহিম ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ। দুজনে যথারীতি মারকুটে ব্যাট চালাতে থাকলে একপর্যায়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে শ্রীলঙ্কার বোলিং লাইনআপ। ইনিংসের ১৮তম ওভারে পৌঁছে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে মাহমুদউল্লাহ্‌ বিদায় নেন, তার আগে ১১ বল খেলা অধিনায়কের ব্যাট থেকে আসে ২০ রান। এর একটু পর আউট হয়ে যান সাব্বিরও। তবে ফিফটি তুলে নেওয়া মুশফিক মেহেদি হাসান মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে শেষ পর্যন্ত পৌঁছে যান জয়ের বন্দরে, ৫ উইকেট ও ২ বল হাতে রেখে।

পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কায় ৩৫ বলে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকা মুশফিকই নির্বাচিত হন ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়। শ্রীলঙ্কার পক্ষে নুয়ান প্রদীপ শিকার করেন দুটি উইকেট।

উল্লেখ্য, ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাট টি-২০’তে এটিই রানের ব্যবধানে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জয়। শুধু তা-ই নয়, পরে ব্যাট করে এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি রান করার কীর্তিও এটি। এমন জয়ে এখনও টিকে রয়েছে টাইগারদের ফাইনালের আশা।

একনজরে স্কোর

টসঃ বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কা ২১৪/৬ (২০ ওভার)

কুশল পেরেরা ৭৪ (৪৮), কুশল মেন্ডিস ৫৭ (৩০), উপুল থারাঙ্গা ৩২ (১৫), দানুশকা গুনাথিলাকা ২৬ (১৯)

মুস্তাফিজুর রহমান ৪-০-৪৮-৩, মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ ২-০-১৫-২, তাসকিন আহমেদ ৩-০-৪০-১

বাংলাদেশ ২১৫/৫ (১৯.৪ ওভার)

মুশফিকুর রহিম ৭২ (৩৫), তামিম ৪৭ (২৯), লিটন ৪৩ (১৯), সৌম্য ২৪ (২২), মাহমুদউল্লাহ ২০ (১১),

চামেরা ৪-০-৪৪-১, নুয়ান প্রদিপ ৪-০-৩৭-২, থিসারা পেরেরা ৩.৪-০-৩৬-১

ফলাফলঃ বাংলাদেশ জয়ী ৫ উইকেটে

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-

আরও পড়ুনঃ নির্বাচক কমিটির যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন ফারুকের

Related Articles

অসুস্থ রুবেল, দোয়া চাইলেন সবার কাছে

যেখান থেকে শুরু ‘নাগিন ড্যান্স’ উদযাপনের

‘খারাপ করছি দেখেই বেশি চোখে পড়ছে’

লঙ্কান দর্শকরা ভুল বুঝেছিল বাংলাদেশকে!

বোর্ড চাইলে প্রধান কোচ হবেন ওয়ালশ