SCORE

সর্বশেষ

সানরাইজার্সের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাড়ালেন ওয়ার্নার

বল টেম্পারিং ইস্যুকে কেন্দ্র করে সদ্যই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট দলের সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে বাধ্য হয়ে সরে যাওয়া ডেভিড ওয়ার্নারকে এবার আইপিএলেও নিজের অধিনায়কত্ব হারাতে হল। গত কয়েকদিন ধরেই আইপিএলে ওয়ার্নারের অধিনায়কত্ব থাকবে কি না তা নিয়ে গুঞ্জন চলছিল ক্রিকেট পাড়ায়। আর এবার সব গুঞ্জনকে সত্য করে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব থেকে নিজ থেকেই সরে দাড়ালেন এই মারকুটে অজি ওপেনার। বুধবার এক টুইট বার্তার মাধ্যমে ওয়ার্নারের অধিনায়কত্ব হতে সরে দাড়ানোর ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছে তার আইপিএল দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। সানরাইজার্সের নায়কত্ব হতে সরে দাড়ালেন ওয়ার্নার

 এর আগে ভারতের সাবেক মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান ও  সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মেন্টর  ভিভিএস লক্ষণ জানিয়েছিলেন যে, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের উপরই নির্ভর করবে আইপিএলে ওয়ার্নারের অধিনায়কত্ব করার বিষয়টি।। কেপটাউনে বল টেম্পারিং নিয়ে পিটিআইকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে লক্ষণ বলেন, ‘কেপটাউন টেস্টে যা ঘটেছে, এটি সত্যি দুভার্গ্যজনক। সানরাইজার্সের পক্ষ থেকে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে আমরা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করব। তারপর ওয়ার্নারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবো।’

উল্লেখ্য যে, চলমান অস্ট্রেলিয়া-সাউথ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজে বল টেম্পারিংয়ের ঘটনা ঘটান অজি ওপেনার ক্যামেরুন বেনক্রফট। ফিল্ডিং করার সময় হলুদ রঙের একটি কাগজজাতীয় বস্তু দিয়ে বলের উপর ঘষা দেন বেনক্রফট। দিনের খেলা শেষে অস্ট্রলিয়া দলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন ম্যাচ অফিশিয়ালরা। ক্যামেরায় বল টেম্পারিংয়ের দৃশ্য পরিষ্কার ভাবেই ধরা পড়ে যার ফলে ঘটনা কোনো অজুহাত ছাড়াই ঘটনা স্বীকার করে নেন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ এবং ওই দিনের খেলা শেষ হবার পর  তিনি জানান, ‘বল টেম্পারিংয়ের সিদ্ধান্তটা দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের সাথে আলাপ আলোচনা করেই করা হয়েছে।’ তাই স্মিথের মতো বাধ্য হয়ে নিজের সহ-অধিনায়কের পদ ছেড়ে দেন ওয়ার্নার।

Also Read - নিজ দেশেই ভর্ৎসনার শিকার স্মিথ-ওয়ার্নাররা

আরও পড়ুনঃ নিজ দেশেই ভৎসর্নার শিকার স্মিথ-ওয়ার্নাররা

Related Articles

প্রথমবারের মত সিপিএলে নাম লেখালেন ওয়ার্নার

অজিদের ইংল্যান্ড সফরে নতুন ভূমিকায় ওয়ার্নার

মাঠে ফিরেই ৮৪ লক্ষ টাকা!

অজি দলের সহ-অধিনায়ক পদকে না বলবেন না লায়ন

চারদিন টানা কেঁদেছিলেন স্মিথ!